শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৮:৩৩

‘পার্বত্যাঞ্চলের অটিস্টিকদের বিশেষ চিকিৎসার ব্যবস্থার পরিকল্পনা রয়েছে’

ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি

‘পার্বত্যাঞ্চলের অটিস্টিকদের বিশেষ চিকিৎসার ব্যবস্থার পরিকল্পনা রয়েছে’

‘পার্বত্যাঞ্চলের অটিস্টিকদের বিশেষ চিকিৎসার ব্যবস্থার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানালেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা। 

তিনি বলেন, অটিজম কোন বংশগত বা মানসিক রোগ নয়। এটা স্নায়ুগত বা মানসিক সমস্যা। অটিজমকে সাধারণভাবে শিশুর মনোবিকাশগত জটিলতা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। অটিজমের লক্ষণগুলো একদম শৈশব থেকেই। সাধারণত তিন বছর থেকে প্রকাশ পেতে থাকে। তবে সব রোগেরই চিকিৎসা রয়েছে। অটিস্টিক আক্রান্তদের সঠিক সময়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা গেলে তারা এ রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারে। তাই এ বিষয়ে চিকিৎসা ব্যবস্থা চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে। 
শনিবার সকালে রাঙামাটি শহরের ভেদভেদি রাঙ্গাপানি এলাকায় ৮০শতক জায়গায় সোসাইটি ফর দি ওয়েলফেয়ার অব অটিস্টিক চিলড্রেন (সোয়াক) এর প্রশিক্ষণ ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করতে গিয়ে নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এসব কথা বলেন।

এসময় সোসাইটি ফর দি ওয়েলফেয়ার অব অটিস্টিক চিলড্রেন (সোয়াক) এর চেয়ারপার্সন সুবর্ণা চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য পরিকল্পনা ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, চেয়ারম্যানের পত্নী বিশিষ্ট সংগীত শিল্পি অনামিকা ত্রিপুরা, ইউএনডিপি'র ন্যাশনাল প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রসেনজিৎ চাকমা, সোয়াকের সচিব সাবিনা হোসেন, সোয়াকের কোষাধ্যক্ষ সৈয়দা শামীমা আখতার, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী ত্রয়া সরকার, সোয়াকের ডেপুটি ডাইরেক্টর মোঃ মফিজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।  

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য