শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৪:২৫

বন্যা ও ভাঙ্গনে বিপর্যস্ত যমুনা পাড়ের মানুষ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

বন্যা ও ভাঙ্গনে বিপর্যস্ত যমুনা পাড়ের মানুষ

বন্যা-ভাঙ্গনে দিশেহারা হয়ে পড়েছে যমুনা পাড়ের মানুষ। প্রতিদিন ভাঙ্গনে বসতভিটা-ফসলি জমিসহ বিভিন্ন স্থাপনা বিলীন হলেও ভাঙ্গনরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড ব্যবস্থা নেয়ায় ক্ষোভে ফুসে উঠছে স্থানীয়রা। স্থায়ী বাঁধের দাবিতে নদীপাড়ে করছে মানববন্ধনসহ অনশন। অন্যদিকে, পঞ্চম দফা নতুন করে পানি বাড়ায় বসতভিটাসহ ফসলি তলিয়ে নস্ট চরম ক্ষতিমুখে পড়েছে বন্যা কবলিতরা।

জানা যায়, দীর্ঘ চার মাস যাবত যমুনা নদীর পানি কমছে আর বাড়ছে। পানি কমা-বাড়ার সাথে তাল মিলিয়ে ভাঙ্গছে নদীর তীরও। চারমাস ধরে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার চর সলিমাবাদ, বিনানুই, বাঘুটিয়া, দেওয়ানগঞ্জ, শাকপাল, মিটুয়ানী, ওমরপুর, শৈলজানা, চৌদ্ধরশি, চর জাজুরিয়া,  ঘুষুরিয়া, এনায়েতপুর থানার ব্রহ্মগাছা থেকে পাচিল পর্যন্ত সাত কিলোমিটার, সদর উপজেলার সিমলা এলাকায় তীব্র ভাঙ্গন দেখা দেয়। ভাঙ্গনে বসতভিটা, ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েছে কয়েক হাজার পরিবার। অনেকে খোলা আকাশের নীচে বসবাস করছে। বর্তমানে ভাঙ্গন অব্যাহত থাকলেও পানি উন্নয়ন বোর্ড ব্যবস্থা গ্রহন না করায় ভাঙ্গন কবলিতদের চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। যমুনার অরক্ষিত অংশে স্থায়ী বাঁধ নির্মানের জন্য করছে মানববন্ধন ও অনশন। 

ভাঙ্গনকবিলরা বলছে, স্থায়ী বাঁধ না দিয়ে পাউবো জিওব্যাগ ফেলানোর নামে ব্যর্থ চেষ্টা করে কোটি কোটি টাকা নদীতে নষ্ট করছে। অন্যদিকে, পঞ্চম দফায় পানি বাড়ায় আবারো শতশত বসতভিটায় পানি ওঠায় ঘরবাড়ী ছেড়ে অনেকে বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে। অনেকে পানির মধ্যেই বসবাস করছে। বন্যা কবলিতদের খাদ্য ও ওষুধের সংকট দেখা দিলেও মিলছে না সরকারী সহায়তা। বন্যা কবলিতরা বলছেন, এবারে দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় ঘরবাড়ীর নিম্নাংশ ও খুটি বেড়া নষ্ট হয়ে গেছে। নতুন করে তলিয়ে গেছে প্রায় আড়াই হেক্টর জমির আমন ধান, মরিচ, শাকসবজি ও বাদাম। এতে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন তারা। 

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম ও টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম জানান, ভাঙ্গনরোধে আপতকালীণ সময়ে বালি ভর্তি জিওব্যাগ ফেলা হচ্ছে। অরক্ষিত অংশে স্থায়ী বাঁধের জন্য প্রকল্প জমা দেয়া হয়েছে। প্রকল্প অনুমোদন হলে শুস্ক মৌসুমে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা হবে। 


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর