শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জুন, ২০২১ ১৯:১৯
প্রিন্ট করুন printer

নদীকে খাল দেখিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নদীকে খাল দেখিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন
নদীর চারভাগের একভাগকে খাল বানিয়ে বেতাই খাল প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে
Google News

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় ঐতিহ্যবাহী বেতাই নদীকে খাল দেখিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল (এলজিইডি)। যে কারণে এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

ওই খনন প্রকল্প কমিটির সভাপতি, সান্দিকোনা ইউপির সাবেক মেম্বার ইসলাম উদ্দিন জানান, মানুষের উপকারের কথা ভেবেই আমরা গত ২০১৭ সালে কয়েকজন মিলে একটি কমিটি করেছিলাম। কিন্তু নানা মন্ত্রণালয় ঘুরে ঘুরে এই খাল খনন প্রকল্প হতে হতে দুই তিন বছর লেগে গেছে। এ বছর আমরা ২ কোটি ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে সান্দিকোনা ইউপি থেকে রোয়াইল বাড়ি ইউপি পর্যন্ত ১১ কিলোমিটার খনন করেছি।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, মোঘল আমল থেকেই বেতাই নদীকে ঘিরে কেন্দুয়া উপজেলা সমৃদ্ধ হয়েছিল। একটি মহল কিছু অর্থের লোভে নদীটিকে খাল দেখিয়ে প্রকল্প করেছে। যে কারণে ইতিহাস বিকৃত ও পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। ভবিষ্যতে এলাকায় জলাবদ্ধতাসহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সৃষ্টির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কেন্দুয়া উদীচীর সভাপতি লোক সাহিত্য গবেষক রাখাল বিশ্বাস বলেন, মেঘনা থেকে এটি ইশ্বরগঞ্জ হয়ে নেত্রকোনার কেন্দুয়া দিয়ে প্রবেশ করেছে। এই নদীতে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জায়গায় দখল করতে ভূমি দস্যুরা নদীর জায়গায় খাল লিখাতে চেষ্টা চালিয়েছে। কোনোমতেই এই নদীকে খাল মানা যায় না।

পরিবেশবিদ মো. অহিদুর রহমান বলেন, কিছু অর্থ লুটপাট করতেই একটি প্রকল্প করে ফেলা হয়েছে। কারণ, প্রকল্প না দেখালে অর্থ লুপাট করা যাবে না। পরিবেশ বিনষ্টকারী এমন অন্যায়কারীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিয়ে নদীকে নদীর জায়গায় ফিরিয়ে আনা হোক।

এ বিষয়ে এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী বিশ্বজিৎ কুমার কুন্ডু মুঠোফোনে বলেন, প্রকল্প যখন পাস হয়েছে সেটিতে পানি উন্নয়ন বোর্ড, জেলা প্রশাসন সবাইতো ছিলেন। কমিটিতে উনাদের যাচাই-বাছাই পরেই আমরা পাস করি। আমাদের কাছে প্রপোজাল দিয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে। আমরাতো এতকিছু জানতাম না। এখন স্থানীয়ভাবে তারা যদি নদীকে খাল দেখায় আমরা কি করে বুঝব?

এডিসি (রাজস্ব) মো. মনির হোসেন বলেন, নদী দখলদারদের উচ্ছেদ করে কাগজপত্র দেখে নদীকে নদীর জায়গায় রাখতেই ইতোমধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এলজিইডিকে ইতোমধ্যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


 

 

 

এই বিভাগের আরও খবর