১৪ জুন, ২০২৪ ১৬:৫২

মাটির উর্বরতা বাড়াতে বিএডিসির ধৈঞ্চা চাষ

নীলফামারী প্রতিনিধি:

মাটির উর্বরতা বাড়াতে বিএডিসির ধৈঞ্চা চাষ

নীলফামারী জেলার ডোমারে বীজ উৎপাদন (বিএডিসি) খামারে মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি ও ফলন বাড়াতে ২০০ একর জমিতে ধৈঞ্চা চাষ করা হয়েছে। চাষের ধৈঞ্চা গাছ ৪ থেকে ৫ ফিট লম্বা হলে ওই চাষকৃত জমিতে হাল চাষের মাধ্যমে মাটির সাথে মিশ্রণ ঘটানো হয়। যা পরবর্তীতে মাটির মান নিয়ন্ত্রণে সবুজ সার হিসেবে কাজ করে। ফলে এসব জমিতে ফসল চাষাবাদ করলে রোগ বালাইয়ের আক্রমণ কম ও ফলন বেশি হয়। মাটির উর্বরতা বৃদ্ধিতে সবুজ সার হিসেবে ধৈঞ্চার কার্যকারিতা অপরিসীম। ধৈঞ্চা চাষের ফলে মাটিতে রাসায়নিক সারের পরিমাণ কম লাগে। ধৈঞ্চা চাষের কারনে মাটিতে পানির ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

ডোমার ভিত্তি বীজ আলু উৎপাদন খামার সূত্রে জানা যায়, ৫শ ১৫ একর জমির খামারটিতে প্রথমে বীজ আলু চাষাবাদ করা হতো। আলু উত্তোলণের পরে জমিগুলো কয়েক মাস পরিত্যক্ত অবস্থায় পরে থাকতো। অস্থায়ী ভাবে পতিত জমিগুলোর মাটি উর্বরতা বৃদ্ধির জন্যে ধৈঞ্চা চাষ করা হয়। জমিগুলোতে বেলে মাটির পরিমাণ বেশী থাকায় তেমন ভালো ফলন হতো না। ২০২২সালে খামারটিতে  বেঁলে মাটির সাথে এটেল মাটির সংমিশ্রণ করা হয়েছে। তখন থেকে জৈব সার, সবুজ সার হিসেবে ধৈঞ্চার কার্যকারিতায় সব ধরনের ফসল চাষাবাদে ভালো ফলন পাওয়া যাচ্ছে। বর্তমান খামারটির উপ পরিচালক কৃষিবীদ আবু তালেব মিঞা যোগদানের পর থেকে পতিত জমিগুলো চাষাবাদের আওতায় নিয়ে আসেন। এখন খামারটিতে বীজ আলুর পাশাপাশি বীজের জন্য বোরো,আমন,আউশ ধান চাষাবাদ করা হচ্ছে। চাষকৃত সকল ফলন ভিত্তি বীজ হিসেবে সংগ্রহ করেন খামার কর্তৃপক্ষ।

ডোমার ভিত্তি বীজ আলু উৎপাদন খামারের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আবু তালেব মিঞা বলেন, চলতি উৎপাদন মৌসুমে ৪শ একর জমিতে ভিত্তি বীজআলু ও বিডার বীজআলু উৎপাদন করা হয়েছিল। আলু উত্তোলণের পরে জমিগুলো পরে থাকত। বর্তমান প্রকল্প পরিচালক মহোদয়ের পরামর্শে প্রতি বছরেই  আলু উত্তোলণের পরে সবুজ সার হিসেবে ধৈঞ্চা চাষ করা হচ্ছে। সবুজ সার জমির উর্বরতা বৃদ্ধির পাশাপাশি জমির পুষ্টি ধারণ ক্ষমতা ও পানির ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ধৈঞ্চা চাষের ফলে মাটির গঠন ও বুনটের উন্নয়ণ ঘটে।  ধৈঞ্চার মাধ্যমে প্রতি হেক্টরে প্রায় ৯০ থেকে ১২০ কেজি নাইট্রোজেন তৈরী হয়। যাহা ২শ থেকে ২শ ২০ কেজি ইউরিয়া সারের সমান। এতে করে পরবর্তি ফসলে ইউরিয়া সারের পরিমাণ কম লাগে। মাটির গঠন ও বুনট তৈরি করতে প্রতিবছর ডোমার বিএডিসি খামারে ধৈঞ্চার চাষ করা হচ্ছে। ধৈঞ্চা চাষের ফলে জমির উৎপাদনশীলতা দিনদিন বৃদ্ধি পাবে। মাটির পুষ্টি উপাদান ভান্ডার রিক্স করতে ও মাটির গঠন ও বুনট উন্নয়ন ঘটাতে ডোমার খামার নিরলস ভাবে প্রতি বছরে সবুজ সার হিসেবে ধৈঞ্চা চাষ করছে।
                                                        
বিডি প্রতিদিন/এএম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর