শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ মার্চ, ২০২১ ২৩:৪৪

একুশে গ্রন্থমেলা

গড়ে উঠুক বই পড়ার অভ্যাস

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অমর একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধনকালে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন। বলেছেন পাঠক যাতে বই পড়ার এবং ঘুরে ঘুরে বই দেখার আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হন সেজন্য মহামারীর মধ্যেও গ্রন্থমেলার আয়োজন করা হয়েছে। তিনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে গ্রন্থমেলায় যাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধনকালে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা খুবই প্রাসঙ্গিক এবং অনুসরণযোগ্য। একুশে গ্রন্থমেলা বাঙালির প্রাণের মেলা। বাংলাদেশ নামের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পেছনে সূতিকাগার হিসেবে ভূমিকা পালন করেছে বায়ান্নর মহান একুশের ঘটনা ও আত্মত্যাগ। যে কারণে একুশে গ্রন্থমেলায় বাঙালি তার অস্তিত্ব খুঁজে পায়। করোনাকালেও গ্রন্থমেলা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে লাখ লাখ বই পড়ুয়া শুদ্ধচিত্ত পাঠকের আবেগ মনে রেখে। যে কারণে গ্রন্থমেলায় যাতে স্বাস্থ্যবিধি কোনোভাবে লঙ্ঘিত না হয় সে ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। স্মর্তব্য, প্রধানমন্ত্রী এবারের একুশে গ্রন্থমেলা উদ্বোধন করেছেন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে। তিনি বলেছেন, সাহিত্যের মাধ্যমে মানুষ সংস্কৃতি, ইতিহাস এবং আরও অনেক কিছু জানতে পারে। যে কারণে বইয়ের প্রতি ছোটদের ঝোঁক বাড়ানো দরকার। পাঠাভ্যাসও গড়ে তুলতে হবে। এখন তো মোবাইল ডিভাইসেও পড়ার সুযোগ আছে। তবে বই হাতে নিয়ে বইয়ের পাতা উল্টে পড়ার আনন্দই আলাদা। বইয়ের আবেদন মুছে যাবে না। প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে প্রকারান্তরে বাবা-মাকে তাদের সন্তানরা যাতে বইয়ের প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠে সে ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করেছেন। একুশে গ্রন্থমেলায় যারা যাবেন তারা তাদের সন্তানদের কথা মনে রেখে তাদের জন্যও বই কিনলে জ্ঞানচর্চায় উৎসাহিত করা হবে। সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে তা অবদান রাখবে। তাদের মন ও মননে পাঠাভ্যাস গড়ে উঠলে জাতি পাবে মেধাবী ভবিষ্যৎ প্রজন্ম। দেশের উন্নয়নে যার কোনো বিকল্প নেই।


আপনার মন্তব্য