শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৫ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৫৬

যেমন আছেন প্রবাসে তারকারা

যেমন আছেন প্রবাসে তারকারা

ঢাকাই চলচ্চিত্র, নাটক আর সংগীতজগতের অনেক তারকা দীর্ঘদিন ধরে বিদেশে থিতু। এর মধ্যে অনেকে মাঝে-মধ্যে দেশে এলেও প্রবাসে কেমন কাটছে তাদের জীবন! প্রবাসী সেসব তারকার কথা তুলে ধরেছেন- আলাউদ্দীন মাজিদ ও পান্থ আফজাল

 

জয়শ্রী কবির

নব্বইয়ের দশকের গোড়ার দিকে অভিনয় ছেড়ে লন্ডনে পাড়ি জমিয়েছিলেন সত্তরের দশকের অভিনেত্রী জয়শ্রী কবির, ‘সূর্যকন্যা’, ‘সীমানা পেরিয়ে’-এর মতো দর্শকনন্দিত চলচ্চিত্রের এ অভিনেত্রী একমাত্র ছেলে লেনিন সৌরভ কবিরকে নিয়ে লন্ডনেই বসবাস করছেন। ছেলে সেখানে পড়াশোনা করছেন;  জয়শ্রী কবির নিজে যুক্ত আছেন শিক্ষকতা পেশায়।

শাবানা

১৯৯৯ সালে অভিনয় থেকে অবসর গ্রহণের পর ২০০০ সালে ঢালিউডের বিউটি কুইন খ্যাত অভিনেত্রী শাবানা চলে যান আমেরিকায়। সেখানে আগেই তার সন্তানরা পড়াশোনা করতে চলে গিয়েছিলেন। সন্তানদের দেখাশোনা করতেই মূলত শাবানার প্রবাস জীবন বেছে নেওয়া। সপরিবারে তিনি থাকেন নিউজার্সিতে। স্বামী চলচ্চিত্র প্রযোজক ওয়াহিদ সাদিক সেখানে রিয়েল এস্টেট ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত।

অঞ্জু ঘোষ

১৯৮২ সালে এফ কবির চৌধুরীর ‘সওদাগর’ সিনেমার মাধ্যমে অঞ্জু ঘোষ পা রাখেন রুপালি পর্দায়। ১৯৮৯ সালে ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ করে রাতারাতি খ্যাতির চূড়ায় পৌঁছে যান তিনি। ১৯৯৬ সালে এ নায়িকা হঠাৎ করেই পাড়ি জমান কলকাতায়। সেখানে চলচ্চিত্র ও যাত্রাপালায় নিয়মিত হন তিনি। ধর্মকর্ম আর সংসার নিয়ে ব্যস্ত আছেন এখন। তিনি থাকেন কলকাতার সল্টলেক এলাকায়।

রোজিনা

১৯৭৬ সালে কালিদাসের ‘জানোয়ার’ ছবির মাধ্যমে চিত্রজগতে অভিষেক ঘটে রোজিনার। নব্বইয়ের দশকের শেষের দিকে হঠাৎ করে লন্ডন প্রবাসী হন তিনি। সেখানে স্বামী সংসার নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও প্রায়ই দেশে আসেন।

শাবনূর

১৯৯৩ সালে চলচ্চিত্রে আসা শাবনূর ২০১২ সাল পর্যন্ত অভিনয়ে নিয়মিত ছিলেন। ২০১৩ সাল থেকে স্বামী ও সন্তান নিয়ে বলতে গেলে অস্ট্রেলিয়াতেই স্থায়ী হন। সেখানে নানা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও গড়ে তোলেন। মাঝে-মধ্যে দেশে আসেন তিনি।

তামান্না

১৯৯৮ সাল থেকে শুরু করে ২০০২ সাল পর্যন্ত বেশ কিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তামান্না। তারপর চলে যান সুইডেন। সুইডেনে ডেন্টাল কলেজ থেকে ২০০৯ সালে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। ২০১০ সালে দেশে ফিরে তামান্না ‘পাগল তোর জন্য রে’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তামান্না বর্তমানে পেশায় একজন ডেন্টিস্ট। সুইডেনে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ডেন্টিস্ট হিসেবে কর্মরত আছেন।

রিয়া

মডেল, নৃত্যশিল্পী, উপস্থাপিকা এবং অভিনেত্রী রিয়া। বৈমানিক মিনহাজের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর ২০১৩ সালে নিউইয়র্ক প্রবাসী ইভানকে বিয়ে করে অভিনয়ে ইতি টানেন। নিজের ক্যারিয়ার আর জনপ্রিয়তার আগুনে পানি ঢেলে দীর্ঘদিন ধরে রিয়া আমেরিকায় থাকছেন। বর্তমানে এক সন্তানের মা তিনি।

মোনালিসা

একসময়ের জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী মোনালিসা। দীর্ঘদিন ধরেই এই অভিনেত্রী মিডিয়ার বাইরে রয়েছেন। বর্তমানে রয়েছেন আমেরিকার কুইন্সে। সেখানেই তিনি স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। মোনালিসা মাঝে-মধ্যে দেশে আসেন।

বিন্দু

আফসান আরা বিন্দু ২০১৪ সালে বিয়ে করেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীকে। এরপর থেকে অভিনয়ে নিয়মিত হননি।

ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তী

ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তী অসংখ্য বিজ্ঞাপন ও নাটকে অভিনয় করেছেন। হেনোলাক্সের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আজও তিনি সবার কাছে পরিচিত। তিনি পরিবারসহ বর্তমানে বসবাস করছেন যুক্তরাষ্ট্রে।

টনি ডায়েস ও প্রিয়া ডায়েস

জনপ্রিয় অভিনেতা-নির্দেশক টনি ডায়েস। অন্যদিকে অভিনেত্রী-নৃত্যশিল্পী প্রিয়া ডায়েস। দীর্ঘদিন ধরে মেয়ে অহনাকে নিয়ে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের হিকসভিল শহরে বসবাস করছেন তারা।

টনি বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছেন। মাঝে-মাঝে করছেন অভিনয়, আবৃত্তি, উপস্থাপনা। সম্প্রতি টনি নিজের একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন, যেখানে নিয়মিত প্রকাশ হচ্ছে তার দরাজ কণ্ঠের আবৃত্তি ও বিভিন্ন নির্মাণ। নিউইয়র্কের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সঙ্গে যুক্ত থেকে টনি ও প্রিয়া করছেন মঞ্চে অভিনয় ও ড্যান্স পারফরম্যান্স। প্রিয়া ডায়েস সেখানে একটি ড্যান্স একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেছেন।

রোমানা

নীল চোখের মেয়ে রোমানা অনেক দিন ধরেই মিডিয়ায় নেই। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। ২০১৫ সালে  রোমানা খান যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ব্যবসায়ী এলিন রহমানকে বিয়ে করেন। কিছুদিন আগে একটি সন্তানের মা হন। অসংখ্য বিজ্ঞাপন, নাটক ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন রোমানা।

রিচি সোলায়মান

২০০৮ সালের ১৪ ডিসেম্বর আমেরিকা প্রবাসী রাশেক-উর- রহমান মালেককে বিয়ে করেন রিচি। এরপর থেকে আমেরিকাই তার আসল ঠিকানা। ২০১০ সালের অক্টোবরে রিচি-রাশেক দম্পতির কোলজুড়ে আসে ফুটফুটে সন্তান রায়ান রিদোয়ান মালিক। দেশে এসে মাঝে- মধ্যে অভিনয়েও ব্যস্ত থাকছেন এ অভিনেত্রী।

প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল

‘কথাবন্ধু মিথিলা’ বা ‘বিপ্রতীপ’ নাটকে অভিনয় করা মেয়েটির কথা আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে? তিনি প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল। মিডিয়ায় অনিয়মিত দীর্ঘদিন। অসংখ্য নাটকের পাশাপাশি টিভি বিজ্ঞাপনেও তিনি অভিনয় করেছেন। তিনি বর্তমানে কানাডা প্রবাসী।

বিপ্লব

তিন বছরের বেশি সময় ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকছেন প্রমিথিউস ব্যান্ডের সদস্য বিপ্লব। এই সময়টায় পরিবার ও কাজ নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। ব্যস্ততার কারণে দীর্ঘদিন নতুন কোনো গান উপহার দিতে পারেননি। তবে খুব শিগগিরই নতুন গান উপহার দেবেন বলে জানা যায়।

আশিকুজ্জামান টুলু

নব্বই দশকের ব্যান্ড জগতের অন্যতম নাম আশিকুজ্জামান টুলু। চাইম ব্যান্ডের কারিগর টুলু পরে নিজেই গড়ে তোলেন ব্যান্ড আর্ক। গীতিকার, সুরকার ও কণ্ঠশিল্পী হিসেবে আর্ককে উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। সময়ের পালাবদলে ব্যান্ড আর্ক যেমন আগের অবস্থানে নেই, তেমনি টুলুও টরেন্টোতে যাপন করছেন দীর্ঘদিন। তবে গান থেকে দূরে সরে নয়, নিজের মেয়ে রদিয়াকে গানের ভুবনে নিয়ে এসেছেন। বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন কিছু দিনের জন্য।

আমব্রিন

লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টারের মাধ্যমে মিডিয়ায় অভিষেক হয়েছিল আমব্রিনের। মডেলিং, অভিনয় আর উপস্থাপনা; তিন শাখাতেই ছড়িয়েছেন প্রতিভার দীপ্তি। স্বামী ও  মেয়ে নিয়ে টরেন্টোতে বসবাস করছেন।

কুমকুম হাসান

বিজ্ঞাপন ও নাটকের মিষ্টি হাসির মডেল-অভিনেত্রী কুমকুম হাসান এখন আর অভিনয়ে নেই। একসময়ের ব্যস্ততম এ অভিনেত্রী বর্তমানে পরিবারসহ যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন।

আরও যারা প্রবাসী

শান্তা ইসলাম, লুৎফুন নাহার লতা, মিলা, রাখি, নিসা, হাসিন, স্বাধীন খসরু, কাজী উৎপল, লামিয়া মিমো, তমালিকা কর্মকার, নাফিজা জাহান, পিয়া বিপাশা, শিমলা, প্রিয়া আমান, রুহি, শামীম শাহেদ, সোনিয়া প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য

close