মঙ্গলবার, ৪ জুন, ২০২৪ ০০:০০ টা
আলাপন

প্রত্যেক অভিনেতারই সিনেমার স্বপ্ন থাকে

পান্থ আফজাল

প্রত্যেক অভিনেতারই সিনেমার স্বপ্ন থাকে

অভিনেত্রী সাবিলা নূর ইতোমধ্যে নিজের সাবলীল বাচনভঙ্গি ও অভিনয় দিয়ে নজর কেড়েছেন দর্শকদের। সংসার ও অভিনয় নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে তার। সম্প্রতি শিহাব শাহীনের নির্মাণে হইচইয়ের ‘গোলাম মামুন’ নামে স্পিন-অফ সিরিজে রাহী চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাবিলা নূর। তার সঙ্গে সমসাময়িক কাজ নিয়ে কথোপকথন-

 

‘গোলাম মামুন’-এ অভিনয় করাটা কতখানি চ্যালেঞ্জিং ছিল?

অভিনয়ের আগে আমরা খুব লম্বা সময় ট্রেনিং করেছি। এটি আমার জন্য খুব কঠিন ছিল। কারণ এর আগে কখনো এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় করিনি। পুরো সিরিজটিই খুব সিরিয়াস। আমরা শুটিংও করেছি সিরিয়াসভাবে। আমরা সবাই শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করেছি।

 

‘রাহী’ চরিত্রটি সুন্দরভাবে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে কী কী করেছেন?

আমি আমার এই চরিত্রটি নিয়ে খুবই এক্সসাইটেড। রাহী চরিত্রটার জন্য আমাকে বেশ পরিশ্রম করতে হয়েছে। এখানে এমন কিছু অ্যাকশন দৃশ্য আছে যেগুলো আমি আগে কখনো করিনি। দর্শক সিরিজটা দেখলে সেটা আন্দাজ করতে পারবে বলে আশা করছি।

 

এই সিরিজে আপনার সহ-অভিনেতা অপূর্বকে নিয়ে কী বলবেন?

তাকে নিয়ে নতুন করে আর কী বলব! অপূর্ব ভাইয়ের কথা যদি বলি তার সঙ্গে আমার অসংখ্য কাজ হয়েছে। ওটিটিতে আমাদের প্রথম কাজ ‘গোলাম মামুন’। অপূর্ব ভাইয়া অনেক পুশ করে এবং চেষ্টা করে যেন তার প্রতিটি আর্টিস্ট বেস্টটা দেয়। তবে পুরো সিরিজটি দেখলে বুঝতে পারবেন, আমরা কতটুকু কষ্ট করে কাজটি করেছি। স্টোরি ও চরিত্রটা নিজের মধ্যে ধারণ করা খুব চ্যালেঞ্জিং ছিল। আশা করছি, পুরো গল্পটা দর্শকদের ভালো লাগবে এবং আমাদের চ্যালেঞ্জটা সার্থক হবে।

 

শিহাব শাহীনের সঙ্গে আগেও ছোটপর্দায় কাজ করেছেন। এবারের সিরিজে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?

শিহাব শাহীনের সঙ্গে কাজ করাটা যে কোনো জনের-ই হোক না কেন খুবই চ্যালেঞ্জিং। যেমন বর্ষণ ভাই বলছিলেন, উনি খুব বকাঝকা করেন। আমার কাছে মনে হয় বকাঝকার কারণেই বোধহয় পুরো কাজটা আমাদের এতটা সুন্দর হয় কিংবা এতটা ভালো হয়। প্রত্যেকটা অ্যাক্টর তাদের বেস্ট পারফরম্যান্সটা দিতে পারেন। সো, এখানেও হয়তো তাই হয়েছে। প্রত্যেকটা অ্যাকশন সিকোয়েন্স ছিল যেগুলোর জন্য প্রিপারেশন নেওয়াটা পার্টিকুলারভাবে আমার জন্য খুবই ডিফিকাল্ট ছিল। কারণ, এটা আমার প্রথম অ্যাকশন সিকোয়েন্স করা। এবং এত বড় একটা সিরিজে এই কাজটা করা, সেই সঙ্গে অপূর্ব ভাইয়ের সঙ্গে করা- যেই জার্নিটা আমার জন্য খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। কিন্তু আমি আমার হান্ড্রেড পার্সেন্ট চেষ্টা করেছি। ট্রেনিংয়ের প্রথম প্রথম নার্ভাস ছিলাম। তবে এরপর ফাইনাল যে আউটপুটটা এসেছে আমি তা নিয়ে খুবই খুশি। আশা করি, সবার ভালো লাগবে।

 

অ্যাকশন দৃশ্যে অভিনয়ের জন্য নিজেকে কীভাবে প্রস্তুত করলেন?

প্রথমে যেহেতু আমরা অ্যাকশন সিকোয়েন্সের ট্রেনিংগুলো দিয়ে শুটিং শুরু করেছিলাম তাই সেটা আমাদের অনেকখানি হেল্প করেছিল ক্যারেক্টারের মধ্যে ইনভলব হতে। আর আমি আমার হাজব্যান্ডের সঙ্গে ফাইট সিকোয়েন্সগুলোর প্রাকটিস করতাম। কারণ, আমি চাচ্ছিলাম আমার হান্ড্রেড পার্সেন্ট ইফোর্ট দিতে। আমি সাধারণত খুবই হাসিখুশি থাকে। তো রাহী চরিত্রটির জন্য আমি খুবই সিরিয়াস ছিলাম। অবশ্যই ডিরেক্টর ও পুরো কাস্ট আমাকে সাপোর্ট করেছে দারুণভাবে। আর শিহাব শাহীনের একটা ম্যাজিক আছে। যদি বলা হয় এই সিরিজটি কেন দেখবে তাহলে বলব অপূর্ব ভাইয়া তো আছেই, সেই সঙ্গে শিহাব শাহীনের ম্যাজিক দেখার জন্য হলেও সবাই দেখবে।

 

ভবিষ্যতে সিনেমায় দেখা যাবে?

প্রত্যেক অভিনেতারই সিনেমার একটা স্বপ্ন থাকে, আমারও আছে। আমিও প্রস্তুতি নিচ্ছি। হয়তো খুব শিগগিরই আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব।

 

সর্বশেষ খবর