শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ মে, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ মে, ২০২০ ০০:০৪

সংক্রমণ বাড়ছে বিশ্বজুড়ে কমছে মৃত্যু

প্রতিদিন ডেস্ক

সংক্রমণ বাড়ছে বিশ্বজুড়ে কমছে মৃত্যু

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৩ লাখ ৩৭ হাজার ছাড়িয়েছে। একই সঙ্গে গতকাল সকাল পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ছিল অন্তত ৫২ লাখ ২৬ হাজার। নিউইয়র্ক টাইমসের তথ্যে বলা হয়, ভাইরাসের সংক্রমণ উত্তরোত্তর বাড়লেও মৃত্যুহার আগের চেয়ে কিছুটা কমেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, করোনাভাইরাসে আক্রান্তের হিসাবে সবার শীর্ষে এখনো রয়েছে আমেরিকা। সেখানে গত বৃহস্পতিবার আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৬ লাখ ২১ হাজার। প্রাণ হারান প্রায় ৯৬ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্তের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে ছিল রাশিয়া। সেখানে এ সংখ্যা ছিল মোট ৩ লাখ ২৬ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয় অন্তত ৩ হাজারেরও বেশি মানুষের। করোনাভাইরাসে গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ২০ হাজারের বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এদিন ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ১৮৮ জনের মৃত্যু হয়। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হন ১৭ হাজার ৫৬৪ জন। ফলে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৩ লাখ ১০ হাজার ৯২১। মারা গেছেন ২০ হাজার ৪৭ জন। বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুতে শীর্ষ দেশগুলোর তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্রাজিল। এমনকি লাতিন আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে ব্রাজিলেই করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু সবচেয়ে বেশি।

ভারতে আরও ৬ হাজারের বেশি আক্রান্ত : ভারতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছেই। দেশটিতে এক দিনেই আরও ৬ হাজারের বেশি মানুষ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৬ হাজার ১৯৮ জন। অপরদিকে মারা গেছেন ১৫০ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১৮ হাজার ২২৬। এর মধ্যে মারা গেছে ৩ হাজার ৫৮৪ জন। করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত রয়েছে মহারাষ্ট্র। সেখানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ হাজার ৬৪২। অপরদিকে মুম্বাইতে এরই মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৩৮২ জন।

মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে গুজরাট। সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৭৪৯ জনের। ওই রাজ্যে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ৬ হাজার ৫৬৯।  মধ্যপ্রদেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২৬৭ জনের। মোট আক্রান্ত ৫ হাজার ৯৮১ জন।

বিহারে আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৯৮৭। অপরদিকে রাজস্থানে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ২২৭।

সুখবর থাইল্যান্ডে : থাইল্যান্ডে বৃহস্পতিবার ২৪ ঘণ্টায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে নতুন করে কারও মৃত্যু হয়নি। এমনকি নতুন করে কেউ এই ভাইরাসে আক্রান্তও হয়নি। সারা বিশ্বের করোনা আতঙ্কের মধ্যে থাইল্যান্ডে এক দিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর কোনো ঘটনা না ঘটায় কিছুটা স্বস্তি মিলেছে। দেশটিতে গত কয়েক দিনে আক্রান্ত ও মৃত্যু অনেক কমতে দেখা গেছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট ৩ হাজার ৩৭ জন প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৫৬ জন।

এদিকে থাইল্যান্ড বলছে, তাদের তৈরি ভ্যাকসিন হয়তো আগামী বছরই ব্যবহার করা যাবে। এক শীর্ষ কর্মকর্তা বলছেন, তাদের তৈরি ভ্যাকসিন পরীক্ষামূলকভাবে ইঁদুরের দেহে প্রয়োগ করা হয়েছে। এই পরীক্ষা সফল হয়েছে। থাই সরকারের কভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের মুখপাত্র তাউসিন উইসানুইয়োথিন বলেছেন, ইঁদুরের দেহে সফল হওয়ায় আগামী সপ্তাহে এমআরএনএ ভ্যাকসিন বানরের দেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে। তিনি বলেন, আগামী বছরই এই ভ্যাকসিন ব্যবহার করা যাবে। থাইল্যান্ডের ন্যাশনাল ভ্যাকসিন ইনস্টিটিউট, ডিপার্টমেন্ট অব মেডিকেল সাইন্স অ্যান্ড চুলালংকর্ন ইউনিভার্সিটি ভ্যাকসিন রিসার্চ সেন্টার এই ভ্যাকসিন উন্নয়নের কাজ করছে।

 


আপনার মন্তব্য