শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৩২

বিশেষ বাণিজ্যিক সুবিধায় প্রাইভেট বাস মালিকরা

মোবাশ্বের হোসেন

বিশেষ বাণিজ্যিক সুবিধায় প্রাইভেট বাস মালিকরা
Google News

নগর বিশ্লেষক ও স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেছেন, প্রাইভেট বাসমালিকদের বিশেষ বাণিজ্যিক সুবিধা দিতেই রাষ্ট্রীয় গণপরিবহন বিআরটিসিকে ডোবানো হচ্ছে। একসময় বিআরটিসি লাভজনক প্রতিষ্ঠান থাকলেও এখন এটা লোকসানিতে পরিণত হয়েছে। এর জন্য সরকারের সদিচ্ছা প্রয়োজন। শুধু ঢাকা শহরেই নয়, সারা দেশেই একটি নির্দিষ্ট নিয়মের মাধ্যমে বিআরটিসিকে পরিচালনা করা উচিত। এ জন্য এ প্রতিষ্ঠানটিকে আধুনিক ও যুগোপযোগী করতে হবে। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে না চললে এ প্রতিষ্ঠান টিকিয়ে রাখা যাবে না। গতকাল বিকালে বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে ফোনে আলাপচারিতায় তিনি এ কথা বলেন। মোবাশ্বের হোসেন বলেন, বিআরসিটির চালক ও স্টাফদের রাষ্ট্রীয় বেতন কাঠামোয় নেওয়া উচিত। ড্রাইভার বা ব্যক্তিমালিকানার ওপর ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়। যখন স্টাফরা সরকারি বেতনভুক হবেন তখন দুর্নীতি কমে যাবে। একই সঙ্গে টিকিটিং সিস্টেম চালু করতে হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রাষ্ট্রীয় পরিবহন সবচেয়ে বেশি আধুনিকায়ন করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের দেশে উল্টো চিত্র। নির্দিষ্ট স্থানে বাস স্টপেজ সিস্টেম, গেট অটো লক সিস্টেম থাকতে হবে। স্টাফদের নির্দিষ্ট সময় ডিউটি দিতে হবে। গাড়িগুলো রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সংশ্লিষ্টদের তদারকি করতে হবে। প্রতিটি আন্তজেলায় যুগোপযোগী বাস টার্মিনাল করে জনগণের সেবা দিতে হবে। তিনি বলেন, বিআরটিসির পরিবহনগুলোকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। প্রাইভেট বাসগুলোর তুলনায় বিআরটিসি বাসগুলো বেশি লক্কড়ঝক্কড়। এ ছাড়া এ বাসগুলো যাত্রীসাধারণের জন্য না হয়ে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার করা হয়। এর সুফল সাধারণ মানুষও তেমনটি পায় না।

এই বিভাগের আরও খবর