শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩২

ইংল্যান্ডের গবেষণা তথ্য

করোনার টিকায় গুরুতর অসুস্থতার ঝুঁকি কমে ৮০ ভাগ

প্রতিদিন ডেস্ক

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা অথবা ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার একটি ডোজ নিলে হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নেওয়ার প্রয়োজন ৮০ ভাগের বেশি কমে যায়। দ্য পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের গবেষণায় এমন তথ্য জানা গেছে। ওই গবেষণায় জানা গেছে, টিকা নেওয়ার পরে তিন থেকে চার সপ্তাহ পর্যন্ত এর কার্যকারিতা পরীক্ষার ভিত্তিতে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। ৮০ বছরের বেশি বয়সী যারা প্রথমবারের মতো টিকা নিয়েছিলেন, তাদের ওপর এই গবেষণা পরিচালিত হয়।

বিবিসির মঙ্গলবারের খবরে জানা যায়, বিজ্ঞানীরা গবেষণার ফলে সন্তুষ্ট হয়েছেন। তবে বেশি সুরক্ষার জন্য টিকার দুটি ডোজ নেওয়ার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছেন তারা। গত সপ্তাহে স্কটিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের প্রকাশিত গবেষণাতেও একই তথ্য পাওয়া গেছে। ডাউনিং স্ট্রিটে স্থানীয় সময় সোমবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক এক ব্রিফিংয়ে জানান, টিকার সাম্প্রতিক ফল খুবই শক্তিশালী। তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যে হাসপাতালগুলোর নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ৮০ বছরের বেশি বয়সী মানুষের চিকিৎসা নেওয়ার হার গত কয়েক সপ্তাহে কমে এসেছে। টিকার প্রথম ডোজের কারণে এমনটা ঘটতে পারে। ওই সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাজ্যের উপপ্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জোনাথন ভন ট্যাম বলেন, ‘টিকা কর্মসূচি নিয়ে পরিচালিত ওই গবেষণায় আভাস পাওয়া যাচ্ছে যে আগামী কয়েক মাসে আমরা অন্য রকম বিশ্ব পাব।’  করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন, করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষার জন্য দ্বিতীয় ডোজ টিকা নেওয়াও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। ভন ট্যাম বলেন, টিকার দ্বিতীয় ডোজ রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা শক্তিশালী করে। দ্বিতীয় ডোজ নিলে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা দীর্ঘমেয়াদি থাকে। যুক্তরাজ্যে দুই কোটিরও বেশি মানুষ টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। দেশটির বয়স্ক জনগোষ্ঠীর এক-তৃতীয়াংশ টিকা নিয়েছেন। এদিকে যুক্তরাজ্য ২৮ দিনে করোনায় সংক্রমিত হয়ে আরও ১০৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া ৫ হাজার ৪৫৫ জন সংক্রমিত হয়েছেন। রবিবার যুক্তরাজ্যে তিন ধরনের নতুন করোনাভাইরাস ও স্কটল্যান্ডে তিন ধরনের নতুন করোনাভাইরাসের খোঁজ পাওয়া গেছে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এর আগে বলেছেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে সে দেশে সীমান্তে কড়া নজরদারি চলছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর