শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৬ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ মে, ২০২১ ২৩:৩৯

আরও দেড় কোটি চীনা টিকা আসছে শুরু হলো প্রয়োগ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

Google News

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, বাংলাদেশ চীন থেকে সিনোফার্মের দেড় কোটি টিকা কিনবে এবং এর প্রথম চালান জুনে ঢাকায় আসতে পারে। গতকাল রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে এক অনুষ্ঠান শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ চীন থেকে জুন, জুলাই, আগস্ট এ তিন মাসে ৫০ লাখ করে মোট দেড় কোটি টিকা কিনতে চেয়েছে। আলোচনা ইতিবাচক অবস্থায় আছে। এ বিষয়ে চুক্তি প্রায় চূড়ান্ত। খুব শিগগির চুক্তি সম্পন্ন হবে। এ বিষয়ে তিনটি নথির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি এর মাধ্যমে বিনা বাধায় টিকা আনতে পারব।’ গত সপ্তাহে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইয়ের সঙ্গে টেলিফোনে কথোপকথনের কথা উল্লেখ করে ড. মোমেন বলেন, চীনের মন্ত্রী বাংলাদেশকে ভালো বন্ধু অভিহিত করেছেন এবং তারা টিকার অবিচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করবেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সিনোভ্যাকের আরও একটি চীনা টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে। যৌথভাবে এ টিকা উৎপাদনের সম্ভাব্যতা দেখতে একটি চীনা দল এক সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশ সফর করবে। রুশ ভ্যাকসিন প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রাশিয়ার সঙ্গেও আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে। কখন টিকা আসবে, টিকার পরিমাণ, বীমা, টিকা কার্যকর না হলে কী হবে আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এসবের খুঁটিনাটি দেখছে।’ মোমেন আরও বলেন, ‘আমরা কোভ্যাক্স থেকেও টিকা পাব। সুতরাং আমরা মনে করি আগামী দিনে আমাদের টিকা সরবরাহের কোনো সমস্যা হবে না।’ চীনের টিকা প্রয়োগ শুরু : দেশে চীনের তৈরি সিনোফার্মের টিকার প্রয়োগ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। গতকাল ঢাকা মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী অনন্যা সালাম সমতা প্রথম এ টিকা নেন। টিকা প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। উদ্বোধনের পর শাহীন আহমেদ ও নিয়ামুল হক নামে আরও দুজনকে টিকা দেওয়া হয়। এদিন আরও ২৫৭ শিক্ষার্থীকে এ টিকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢামেক কর্তৃপক্ষ। এ টিকা প্রদানের মাধ্যমে চীনের উপহার হিসেবে আসা সিনোফার্মের ৫ লাখ ডোজ টিকা প্রয়োগের কার্যক্রম শুরু হলো। মেডিকেল শিক্ষার্থী, নার্সিং শিক্ষার্থী এবং মেডিকেল টেকনোলজিস্ট শিক্ষার্থীদের এ টিকা দেওয়া হচ্ছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাড়া আরও তিনটি সরকারি মেডিকেল কলেজের ১ হাজার শিক্ষার্থীকে প্রাথমিক পর্যায়ে এ টিকা দেওয়া হবে। শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ, মুগদা মেডিকেল কলেজ ও সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা এ টিকা পাবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘চীন সরকারের দেওয়া করোনার ৫ লাখ টিকা পেয়েছি, যা আড়াই লাখ মানুষকে দেওয়া হবে। জুন থেকে আমরা আরও বেশি মানুষকে টিকা দিতে পারব। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন আমাদের দেশে টিকা তৈরি করার জন্য। সেজন্য আমরা রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। তারা যেন আমাদের দেশে প্রযুক্তি এনে টিকা উৎপাদন করতে পারে। চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে টিকাসংক্রান্ত যে কর্মযজ্ঞ আছে তা প্রায় শেষের দিকে।’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব মো আলী নূর, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম, ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক টিটো মিয়া, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ-স্বাচিপ মহাসচিব এম এ আজিজ, ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক প্রমুখ।