শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ জুন, ২০২১ ২৩:২৬

জনগণকে বিভ্রান্ত করতে পরীমণি ইস্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক

জনগণকে বিভ্রান্ত করতে পরীমণি ইস্যু
Google News

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, জনগণকে বিভ্রান্ত করতে পরীমণি ইস্যু সামনে এনেছে সরকার। তিনি বলেন, দেশের দুরবস্থা থেকে উত্তরণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে হবে। আমাদের জেগে উঠতে হবে। তরুণ-যুবকদের এগিয়ে আসতে হবে। আজ সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, সংবাদকর্মীদের নিরাপত্তা, তাদের মুক্তি সবকিছুই নির্ভর করছে গণতন্ত্রের পুনঃপ্রতিষ্ঠার ওপর। গণতন্ত্রই যদি প্রতিষ্ঠিত না হয় তাহলে কারোরই মুক্তি মিলবে না। মির্জা ফখরুল বিএনপির স্বাধীনতা সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন জাতীয় কমিটির উদ্যোগে ‘১৬ জুন সংবাদপত্রের কালো দিবস’ উপলক্ষে গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক গোলটেবিল আলোচনায় কমিটির সদস্যসচিব আবদুস সালামের সভাপতিত্বে ও মিডিয়া উপকমিটির সদস্যসচিব শামা ওবায়েদের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন। আলোচনায় অংশ নেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল হাই শিকদার, দৈনিক দিনকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী, সাংবাদিক নেতা এম আবদুল্লাহ, কাদের গণি চৌধুরী, এম এ আজিজ, ইলিয়াস খান প্রমুখ।

জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই সরকার পরীমণির ইস্যু সামনে এনেছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, যখন বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও তাঁর মুক্তি নিয়ে কথা ?উঠছে, গণতন্ত্র নিয়ে কথা উঠছে, যখন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের চরম ব্যর্থতা নিয়ে কথা হচ্ছে তখন এগুলো ধামাচাপা দিতে সরকার নতুন ইস্যু তৈরি করছে। এ রকম কৌশল করেই তারা পুরো জাতিকে দমন করে রাখছে। তারা প্রতারক সরকার। জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেই এভাবে ক্ষমতায় বসে আছে। মির্জা আব্বাস বলেন, দেশে একটা বিরাজনীতিকরণ প্রক্রিয়া চলছে। দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার প্রক্রিয়া চলছে। এখান থেকে কোনো একটা প্রতিষ্ঠান কিংবা জাতির কোনো একটা অংশ বাদ যাচ্ছে না। দেশকে খুব খারাপ অবস্থার দিকে নিয়ে যাচ্ছে সরকার। এটাকে রুখতে হলে আমাদের সব বিভক্তি ভুলে এক হতে হবে। স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, সংবাদপত্রের স্বাধীনতার চেয়ে সাংবাদিকের স্বাধীনতা বেশি প্রয়োজন। যেটা সাংবাদিকের বাকস্বাধীনতা বা লেখার স্বাধীনতা। কারণ মালিকের স্বাধীনতা আছে। মালিক আর সরকার জয়েন্ট ভেঞ্চারে চলে।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ১৬ জুন সংবাদপত্রের কালো দিবস। আজকের দিনটা ১৬ জুন আবার আন্তর্জাতিক গৃহশ্রমিক দিবসও। কীভাবে নিয়ে গেল এটি ওই দিনটার কাছে জানি না। সেদিন সংবাদপত্রের যারা কর্মী ছিলেন তাদের সরকারের অধীন করে গৃহশ্রমিক বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তিনি দিনটাকে একটা কলঙ্কের দিন হিসেবেই বিবেচনা করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

এই বিভাগের আরও খবর