১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০৯:৪৩

শরীরে যে ৫ উপসর্গ দেখা দিলে সাবধান না হলে বিপদ

অনলাইন ডেস্ক

শরীরে যে ৫ উপসর্গ দেখা দিলে সাবধান না হলে বিপদ

প্রতীকী ছবি

ক্যান্সার আধুনিক যুগের অন্যতম মারণরোগ নয়। বর্তমান সময়ে ক্যান্সারের সূত্রপাতকে খুব দ্রুত ধরার জন্য পরীক্ষা এবং সরঞ্জাম রয়েছে। কিছু সাধারণ উপসর্গ আছে যা দেখে খুব সহজেই বোঝা যায় যে শরীরে এই রোগের সূত্রপাত হয়েছে। যত তাড়াতাড়ি ক্যানসারের উপস্থিতি ধরা পড়ে, চিকিত্‍সার পদ্ধতিতে তত বেশি সাড়া মেলে। নিরাপদ থাকার জন্য, ক্যান্সারের এই পাঁচটি লক্ষণ এবং উপসর্গ দেখা দিলে অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করতে হবে।

দ্রুত ওজন হ্রাস-

ক্যান্সার আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ওজন হ্রাস সাধারণ উপসর্গ। এটি রোগের প্রথম দৃশ্যমান লক্ষণ হতে পারে। ক্যান্সার বিষয়ক একটি গবেষণায় চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, যে কয়জনের উপর পরীক্ষা চালানো হয় তার মধ্যে ৪০ শতাংশ মানুষের খুব দ্রুত ওজন কমে যাওয়ার পরই তাদের প্রথম ক্যানসার ধরা পড়ে। চিকিৎসকরা 'ক্যাচেক্সিয়া' নামক একটি ওজন হ্রাস সিনড্রোমকে উল্লেখ করেন। যার ফলে বিপাক বৃদ্ধি, হাড়ের পেশী হ্রাস, ক্লান্তি, ক্ষুধা হ্রাস এবং জীবনের মান হ্রাস থেকে শনাক্ত করা হয়।

ক্লান্তিবোধ-

ক্যান্সারের কারণে ক্লান্তি আদতে সারাদিনের কাজ বা খেলার পরে আপনার যে অনুভূতি হয়, তার মতো নয়। চরম ক্লান্তি যা বিশ্রাম নিলেও ভাল হয় না, তেমনটা হলে ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে ধরে নেওয়া হয়। ক্যান্সার রিসার্চ ইউকে নামক একটি দাতব্য সংস্থার মতে, সকালে ঘুম থেকে উঠতে অসুবিধা হওয়া প্রায়ই ক্লান্তির লক্ষণ। ক্যান্সার আপনার শরীরের পুষ্টিগুলিকে বৃদ্ধি এবং অগ্রসর হওয়ার জন্য ব্যবহার করে। তাই সেই পুষ্টিগুলি আপনার শরীর আর পূরণ করছে না। কিন্তু আপনি ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন তার মানে এই নয় যে আপনার ক্যান্সার হয়েছে। ক্লান্তির অনেকগুলি অন্তর্নিহিত কারণ রয়েছে যার মধ্যে অনেকগুলি ক্যান্সারের সাথে সম্পর্কিত নয়। যদি আপনার লক্ষণগুলি আপনার জীবনযাত্রার মানকে প্রভাবিত করার জন্য যথেষ্ট গুরুতর হয় তবে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন।

জ্বর-

জ্বর সর্দি এবং ফ্লুর একটি সাধারণ উপসর্গ হতে পারে এবং নিজে থেকেই সেরে যায়। কিন্তু যদি জ্বরের সাথে ক্যান্সারের সংযোগ থাকে, তবে কিছু নির্দিষ্ট লক্ষণ রয়েছে যা আপনাকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে। জ্বর কি সুস্পষ্ট কারণ ছাড়াই বারবার হয়? আপনার রাতে কি জ্বর বেশি হয়? আপনার সংক্রমণের অন্য কোন লক্ষণ নেই। তাহলে জ্বরের কারণ কী? আপনি কি রাতের দিকে ঘেমে ভিজে যান?

ব্যথা-

নির্দিষ্ট ধরণের ক্যান্সার ব্যথার সাথে নিজেকে প্রকাশ করে। হাড়ের ক্যান্সারের ক্ষেত্রে প্রায়ই শুরু থেকে ব্যথা করে। কিছু মস্তিষ্কের টিউমার মাথাব্যথা সৃষ্টি করে যা কয়েকদিন ধরে হতে থাকে এবং চিকিৎসার মাধ্যমে তা ভালো হয় না। ব্যথা ক্যান্সারের একটি বিলম্বিত লক্ষণও হতে পারে। তাই যদি আপনি না জানেন যে কেন এটি ঘটছে বা এটি দূরে না যায় তবে একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। তবে সকল অব্যক্ত ব্যথা ক্যান্সারের সতর্কতা নয়। 

জনস হপকিন্স রিপোর্টে বলা হয়েছে যে ব্যথা হল আরেকটি উপসর্গ যা অনেকগুলি স্বাস্থ্য সমস্যার কারণে হতে পারে, যার বেশিরভাগই ক্যান্সার নয়। আপনি যদি এমন ব্যথা অনুভব করেন যা কিছুতেই দূর হয় না , তাহলে আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে চেষ্টা করুন।

ত্বকের পরিবর্তন-

আমাদের ত্বক আমাদের শরীরের বৃহত্তম অঙ্গ হিসেবে ধরা হয়। আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের একটি জানালা এটি। ত্বকের ক্যানসার কোথায় লুকিয়ে রয়েছে, তা অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করা আবশ্যিক। তবে শরীরে অস্বাভাবিক বা নতুন তিল, বাম্প, পিণ্ড বা চিহ্ন দেখতে পেলে সাবধান হোন এখনই। জন্ডিস (চোখ বা আঙুলের ডগা হলুদ হয়ে যাওয়া) হল এমন একটি উপসর্গ যা সম্ভাব্য সংক্রমণ বা ক্যান্সার রোগের আগাম সতর্কবার্তা। তিলের পরিবর্তনও উদ্বেগের কারণ হতে পারে। যে দাগগুলি রক্তপাত হয় এবং দূরে হয়ে যায় না তাও ত্বকের ক্যানসারের লক্ষণ। ওরাল ক্যানসার আপনার মুখে ঘা হিসাবে শুরু হতে পারে।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর