শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:১৯
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:২৬
প্রিন্ট করুন printer

বেকার ভাতা সপ্তাহে ৪০০ ডলার

অবশেষে বাইডেনের ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের ‘আমেরিকা উদ্ধার’ বিল পাস

লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র

অবশেষে বাইডেনের ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের ‘আমেরিকা উদ্ধার’ বিল পাস

অবশেষে বাইডেনের ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের ‘আমেরিকা উদ্ধার’ বিল পাস হয়েছে। করোনা রিলিফ বিলটি দেশটির নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে শনিবার সকালে পাস হয়। 

এর ফলে বার্ষিক আয় ৭৫ হাজার ডলারের কম (স্বামী-স্ত্রীর দেড় লাখ ডলার) আয়ের আমেরিকানরা মাথাপিছু ১৪০০ ডলারের চেক পাবেন। আর বেকাররা সপ্তাহে ৪০০ ডলার করে ফেডারেল ভাতা (এর সাথে থাকবে স্টেটের ভাতা) পাবেন আগস্ট পর্যন্ত। 

এ ছাড়া ‘চাইল্ড ট্যাক্স ক্রেডিট’-এ ভিন্ন মাত্রা আসবে। অর্থাৎ ৬ বছরের কম বয়সীরা মাসিক ৩০০ এবং অনূর্দ্ধ ১৭ বছরের শিশু-কিশোরেরা মাসিক আড়াই শত ডলার করে পাবে। এই বিলে ন্যূনতম মজুরি ঘণ্টা  (ফেডারেল কর্মচারীর জন্য) ১৫ ডলার করা হলেও ইউএস সিনেট সেটি দিতে নারাজ। অর্থাৎ শেষ পর্যন্ত হয়তো ন্যূনতম মজুরি ঘণ্টা বিধিটি বাদ যাবে।

২১৯-২১২ ভোটে পাস হওয়া এ বিলে রিপাবলিকানদের সাথে ডেমক্র্যাটিক পার্টির দুই কংগ্রেসম্যানও বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন।

এদিকে, ইউএস সিনেটে কোনো বিল পাস হতে হলে ৬০ ভোট লাগে। অথচ ডেমক্র্যাটরা হচ্ছেন ৫০ জন এবং রিপাবলিকানও ৫০। এই পঞ্চাশের সাথে ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস যোগ দিলে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় এই বিল পাস করা সম্ভব হবে। এরপর সেটি যদি  ‘বাজেট রিকনসিলিয়েশন’র প্রক্রিয়ার আওতায় থাকে (অর্থাৎ এই ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের কারণে বাজেটে কোনো হেরফের হবে না) তাহলে সেটি প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষর পেলেই আইনে পরিণত হবে। এই বিধির ফলে কমপক্ষে ১০ লাখ বাংলাদেশি আমেরিকানসহ সাড়ে ৮ কোটি আমেরিকান উপকৃত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে। 

উল্লেখ্য, ফেডারেল ন্যূনতম মজুরি ঘণ্টা ৭.২৫ ডলার নির্দ্ধারণ করা হয় ২০০৭ সালে। এরপর বাড়ানো হয়নি। এ অবস্থায় নিউইয়র্ক, ক্যালিফোর্নিয়াসহ বিভিন্ন স্টেটের ২৫টিরও অধিক সিটি ও স্টেট তার ন্যূনতম মজুরি ঘণ্টা বাড়িয়েছে। সর্বশেষ করোনা স্টিমুলাস বিল অনুযায়ী ৩০০ ডলারের সাপ্তাহিক বেকার ভাতার (ফেডারেল)  মেয়াদ শেষ হবে ১৪ মার্চ।

প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলসি আশা করছেন যে, সময়ের দাবি অনুযায়ী সিনেটও বিলটি পাস করবে। সারা আমেরিকায় ভয়ংকর একটি পরিস্থিতি বিরাজ করছে। অনেক মানুষ দু’বেলা খাবার পাচ্ছে না। শিশুর অধিকাংশই পুষ্টিকর খাদ্যের অভাবে দিনাতিপাত করছে। এটা আমেরিকার দৃশ্য হতে পারে না। 

উল্লেখ্য, গতবছর মার্চে করোনায় সারা আমেরিকা লকডাউনে যাবার পরই ডনাল্ড ট্রাম্পের আমলে পাস হওয়া ৪ ট্রিলিয়ন ডলারের করোনা স্টিমুলাস বিধি অনুয়ায়ী প্রাপ্ত বয়স্ক প্রত্যেক আমেরিকান পেয়েছেন ১২০০ ডলারের চেক, শিশু-কিশোরেরা পেয়েছে ৫০০ ডলারের চেক। মার্চ থেকে জুলাই পর্যন্ত বেকার ভাতায় ফেডারেলের বরাদ্দ ছিল সপ্তাহে ৬০০ ডলার করে। এরপর ট্রাম্পের বিদায়ের প্রাক্কালে আরেকটি স্টিমুলাসে (৯০০ বিলিয়ন ডলার) প্রত্যেক আমেরিকান ৬০০ ডলারের চেক পেয়েছেন। এ বিল অনুযায়ী বেকার ভাতা পাওয়া যাচ্ছে সপ্তাহে ৩০০ ডলার  (ফেডারেল থেকে) করা হয়।

বাইডেনের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকের চেয়ার জেরমী এইচ পাওয়েল ২৬ ফেব্রুয়ারি বলেন, গত বছর এপ্রিল-মে মাসে বেকারের সংখ্যা ছিল ২২ মিলিয়নের মতো। বর্তমানে তা কমে ১০% এ নেমে এলেও সার্বিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ঘুরে দাঁড়াতে আরও সময় লাগবে। এজন্যেই সর্বক্ষেত্রে প্রণোদনার প্রয়োজন রয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

  
 

 


 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর