Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ অক্টোবর, ২০১৭ ২৩:৫০

স্বায়ত্তশাসন হারাচ্ছে কাতালোনিয়া

স্বায়ত্তশাসন হারাচ্ছে কাতালোনিয়া
মারিয়ানা রাখয়

কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার ঘোষণার বিষয়টিকে আমলে নিচ্ছে না স্পেন। বরং অঞ্চলটির নেতাদের বিরুদ্ধে কঠোর মনোভাব ব্যক্ত করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানা রাখায়। তিনি কাতালান নেতাদের স্বাধীনতা চান অথবা না চান তার জন্য পাঁচ দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন। এই সময়ের মধ্যে কাতালান প্রেসিডেন্ট কার্লোস পুজেমনকে স্বাধীনতার ঘোষণা থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। তা না হলে সেখানকার (কাতালান) স্বায়ত্তশাসন স্থগিত করে সেখানে কেন্দ্রীয় শাসন জারির ঘোষণা দিয়েছেন। গতকাল দেশটির পার্লামেন্টে ভাষণ দেওয়ার সময় এ কথা বলেন রাখায়।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী রাখায় বলেন, পার্লামেন্ট কাতালোনিয়ায় সংবিধানের ১৫৫ ধারা প্রয়োগ করে সেখানকার স্বায়ত্তশাসন বাতিলে সম্মতি দিয়েছে। এখন আমরা অপেক্ষা করছি কাতালান নেতাদের ঘোষণার ওপর। এই ধারা প্রয়োগ করব কিনা। তিনি আরও বলেন, আমরা চাই না কাতালান নেতারা তাদের সিদ্ধান্ত জানানোর আগে আমরা তাদের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিই। স্পেনের সংবিধানের ১৫৫ ধারায় কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিয়ে সেখানে কেন্দ্রীয় শাসন জারির বিষয়টি স্পষ্ট করা আছে। তবে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বলছে, প্রধানমন্ত্রী রাখায় যে কোনো মুহূর্তে কাতালোনিয়ার সরকার বাতিল করে দিয়ে সেখানে কেন্দ্রীয় শাসন জারি করতে পারেন।

এর আগে গত ১ অক্টোবর স্বাধীনতার প্রশ্নে কাতালোনিয়ায় গণভোট হয়। তাতে ৭৫ লাখ কাতালানের মধ্যে ৪৩% ভোটার ভোট দেন। ভোটে স্বাধীনতার পক্ষে ৯০ শতাংশ রায় দেয়। এই ভোটের ওপর ভিত্তি করে গত পরশু কাতালান পার্লামেন্টে স্বাধীনতা ঘোষণা দেওয়ার কথা ছিল কাতালান নেতা কার্লোস পুজেমনের। কিন্তু সেই স্বাধীনতাপত্রে স্বাক্ষর করেও ওই দিন স্বাধীনতা ঘোষণা করেননি পুজেমন। তিনি সেদিন পার্লামেন্টে বলেন, ‘ব্যালটে কাতালোনিয়ার মানুষ স্বাধীনতার পক্ষে রায় দিয়েছেন, আমি এই পথেই এগোতে চাই। কাতালোনিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে এই ঐতিহাসিক মুহূর্তে স্বাধীন রাষ্ট্রের প্রতি জনগণ যে ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন, আমি তা অনুসরণ করতে চাই।’ তবে আমরা এজন্য আর   কিছুদিন অপেক্ষা করতে চাই। আমরা স্পেনের নেতাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করার পরই স্বাধীনতা ঘোষণা করতে চাই।

তবে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী রাখায় কাতালান   নেতা পুজেমনের বিরুদ্ধে ‘ইচ্ছাকৃতভাবে অনিশ্চয়তা’ সৃষ্টির অভিযোগ করেছেন এবং ‘নিশ্চয়তা’     ফিরিয়ে আনতে চান বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘কাতালোনিয়া যে পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে তার অবসান ঘটিয়ে নিরাপদ, শান্ত, স্থিতাবস্থা ফিরিয়ে আনাটা অতীব জরুরি। যত দ্রুত সম্ভব তা করা প্রয়োজন।’ আলজাজিরা


আপনার মন্তব্য