শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৫

সন্ত্রাস দমনে একমত সালমান ও মোদি

নয়াদিল্লি ও কলকাতা প্রতিনিধি

সন্ত্রাস দমনে একমত সালমান ও মোদি
প্রিন্স সালমানকে বিমানবন্দরে জড়িয়ে ধরেন নরেন্দ্র মোদি

সন্ত্রাসবাদ দমনে কড়া পদক্ষেপ নিতে এবং সন্ত্রাসবাদীদের মদদকারীদের ওপর চাপ সৃষ্টির ব্যাপারে সহমত পোষণ করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও ভারত সফররত সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ। পাকিস্তানের নাম না নিয়ে এই দুই নেতা সন্ত্রাসের অবকাঠামো উপড়ে ফেলার পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদী ও তাদের মদদদাতাদের কঠোর শাস্তি দেওয়ার বিষয়েও একমত হয়েছেন। গতকাল নয়াদিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকের পর যৌথ সংবাদ সম্মেলন থেকে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে ভারতের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ সালমান বলেন, ‘বিচ্ছিন্নতাবাদ ও সন্ত্রাসবাদ আমাদের উভয়েরই সবচেয়ে উদ্বেগের বিষয়। আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র ভারতকে বলতে চাই যে, সন্ত্রাসবাদ দমনে যেভাবে সমর্থন দেওয়া যায়, আমরা তাই দেব। এ জন্য গোয়েন্দা বিষয়ক তথ্য আদান-প্রদানের প্রয়োজন হলেও প্রয়োজন পড়লেও তা করা হবে। আগামী প্রজন্মের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করতে আমরা ভারতসহ প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত। এই বিষয়ে ভারতের অবদান প্রশংসনীয়।’ অন্যদিকে মোদি জানান, ‘গত সপ্তাহে পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলার ঘটনা বিশ্বের নিষ্ঠুরতম একটি ঘটনা। আমরা দুই পক্ষই একটা ব্যাপারে সম্মত হয়েছি যে, সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করার প্রশ্নই নেই। যে সব রাষ্ট্র এই সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করে তাদের ওপর ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করতে হবে। মোদি আরও জানান, কৌশলগত অংশীদারিত্ব এবং বাণিজ্য বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন ‘শক্তি অংশীদারিত্বকে কৌশলগত অংশীদারিত্বে রূপান্তরিত করার এটা সেরা সময়। ভারত ও সৌদির মধ্যে এদিন পাঁচটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এগুলো হলো বিনিয়োগ বৃদ্ধি, পর্যটন, আবাসন, তথ্য ও সম্প্রচার ক্ষেত্র। এ ছাড়া প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রেও দুই দেশ নিজেদের মধ্যে সহায়তা সম্প্রসারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এসব ক্ষেত্রে সৌদি আরব ভারতে ১০ হাজার কোটি ডলার লগ্নি করবে। মঙ্গলবার রাতেই ভারত সফরে আসেন সৌদির যুবরাজ। প্রোটোকল ভেঙে দিল্লি বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানাতে নিজেই যান ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী।


আপনার মন্তব্য