Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ নভেম্বর, ২০১৬ ২৩:২৯

পূর্ণ শিক্ষা বছর পাচ্ছে না স্কুল শিক্ষার্থীরা

সিলেবাস শেষ না করেই পরীক্ষা

আকতারুজ্জামান

পূর্ণ শিক্ষা বছর পাচ্ছে না স্কুল শিক্ষার্থীরা

পুরো শিক্ষা বছর পাচ্ছে না বিভিন্ন শ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুল শিক্ষার্থীরা। অনেক স্কুলেই নয় বা দশ মাসে শেষ করে দেওয়া হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রীদের একাডেমিক ক্লাস। শ্রেণি সিলেবাস শেষ না করে অনেক স্কুলেই শিক্ষার্থীদের বসতে হচ্ছে চূড়ান্ত পরীক্ষায়। সিলেবাস শেষ করতে ছাত্র-ছাত্রীদের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে কোচিং সেন্টার বা প্রাইভেট টিউটরের কাছে।

রাজধানীর আজিমপুরের এক স্কুলে পড়ুয়া শিক্ষার্থীর অভিভাবক রবিউল হাসান জানান, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষার (জেএসসি) কেন্দ্র থাকায় স্কুলে নভেম্বরের ১ তারিখ থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত অন্যান্য শ্রেণির ক্লাস হয়নি। শিক্ষার্থীদের বলা হয়েছিল জেএসসি শেষ করে ক্লাস শুরু হবে। কিন্তু এরপরই শুরু হয়ে গেছে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা। এ পরীক্ষার কারণে অন্যান্য শ্রেণির ক্লাস বন্ধ রয়েছে। এসব কেন্দ্রীয় পরীক্ষা চলাকালীন সময় পরীক্ষার ফাঁকে ফাঁকে ক্লাস নেওয়ার ঘোষণা থাকলেও তেমন কোনো আয়োজন লক্ষ্য করা যায়নি স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে। আর পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিপড়ুয়া শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষ হচ্ছে নভেম্বরে। এতে পড়াশোনার বাইরে থাকতে হচ্ছে এই শিক্ষার্থীদের পুরো এক মাসের বেশি সময়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক অভিভাবক জানান, আগস্ট-সেপ্টেম্বর থেকেই শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু হয়।

 স্কুলগুলোতে এ সময় তদারকি জোরদার থাকা দরকার। কিন্তু পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির কেন্দ্রীয় পরীক্ষার কারণে কেন্দ্রগুলোতে পড়ুয়া অন্যান্য শ্রেণির ছাত্রছাত্রী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। এসব পরীক্ষার পর স্কুলগুলোতে ক্লাস চলার কথা থাকলেও বেশির ভাগ স্কুলেই কোন ক্লাসের আয়োজন করা হয় না। শফিকুল ইসলাম সোহাগ নামে এক অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, মিরপুরের একটি স্কুলে তার সন্তান সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। ডিসেম্বরে তার বার্ষিক পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু তার সিলেবাস শেষ করা হয়নি। তাকে বাসায় পড়ে বাকি সিলেবাস শেষ করতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, স্কুলে কোনো ক্লাস না থাকলেও পুরো বছরের ফি পরিশোধ করতে হয়েছে। অভিভাবক ঐক্য ফোরামের সভাপতি জিয়াউল কবীর দুলু বলেন, বেশির ভাগ স্কুলে বারো মাসের বেতন-ফি নিয়ে মাত্র আট মাসের ক্লাস করানো হয়। বিভিন্ন পরীক্ষার কারণে তাদের ক্লাস বন্ধ থাকে। এরপর ক্লাস নেওয়ার সময় থাকলেও মডেল টেস্ট বাণিজ্য শুরু করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। মডেলটেস্ট বাণিজ্য কোচিং বাণিজ্যের নতুন সংস্করণ আখ্যা দিয়ে দুলু বলেন, সরকার নভেম্বরে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষা নিচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বছরের প্রায় দুইটি মাস পড়াশোনার বাইরেই থাকতে হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রীদের। এ ব্যাপারে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ কাছে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়মিত ক্লাসের বাইরেও বাড়তি ক্লাস নিয়ে শিক্ষার্থীদের সিলেবাস শেষ করে থাকে। কোনো শিক্ষক যদি ক্লাস না নিয়ে সিলেবাস শেষ না করে চূড়ান্ত পরীক্ষা নিতে চান তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষাবছর নভেম্বরে শেষ হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে মন্ত্রী বলেন, কেন্দ্রীয় পরীক্ষার পর ফলাফলের জন্য শিক্ষার্থীদের কিছু সময় দেওয়া হয়। এতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা  নেই।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর