Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২৩:৩৪

দুই উপনির্বাচনে লড়াই আওয়ামী লীগ-জাপায়

নিজস্ব প্রতিবেদক

দুই উপনির্বাচনে লড়াই আওয়ামী লীগ-জাপায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ (নাসিরনগর) ও গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে উপনির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিল শেষ হয়েছে। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনে তিনজন ও গাইবান্ধা-১ আসনে পাঁচজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, ইসলামী ঐক্যজোট, গণফ্রন্ট, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন। তবে নির্বাচনে মূলত আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির মধ্যে লড়াই হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ : ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ (নাসিরনগর) আসনের উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগের বদরুদ্দোজা মো. ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম, জাতীয় পার্টির (জাপা) রেজওয়ান আহমেদ ও ইসলামী ঐক্যজোটের আবুল কাসেম মো. আশরাফুল হক। গতকাল শেষ দিন নিজ নিজ দলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নাসিরনগর উপজেলা নির্বাচন অফিসে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন তারা। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা শফিকুর রহমান জানান, পাঁচটি মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হলেও তিনজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বৈধ ঘোষণা করা প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। এ আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ১৪ হাজার ৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ১০ হাজার ৪১০ আর নারী ১ লাখ ৩ হাজার ৫৯৯ জন।

গাইবান্ধা-১ : গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে পাঁচজন মনোনয়নপত্র জম দিয়েছেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগ থেকে প্রয়াত সংসদ সদস্য মনজুরুল ইসলাম লিটনের বড় বোন আফরোজা বারী, জাতীয় পার্টি থেকে দলের সুন্দরগঞ্জ উপজেলা সভাপতি ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, গণফ্রন্টের শরিফুল ইসলাম, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) জিয়া জামান খান ও স্বতন্ত্র আহসান হাবীব মাসুদ। জেলা নির্বাচন অফিসার মাহবুবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ইসির কর্মকর্তারা বলছেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনের নয় মাস আগে এ দুই নির্বাচন অনেক গুরুত্বপূর্ণ। দুটি নির্বাচনই প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে বলে প্রত্যাশা করছেন তারা। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী এ দুই আসনে ভোট গ্রহণ হবে ১৩ মার্চ। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ১৬ ফেব্রুয়ারি। ২৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। এরপর প্রতীক বরাদ্দ ও আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় নামতে পারবেন প্রার্থীরা। মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী মুহাম্মদ ছায়েদুল হক ও সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফার মৃত্যুতে যথাক্রমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ ও গাইবান্ধা-১ আসন দুটি শূন্য হয়। আর শূন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের টিকিটে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া ছায়েদুল হক ১৬ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে মারা যান। আর সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে গোলাম মোস্তফাও চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৯ ডিসেম্বর মারা যান। সুন্দরগঞ্জের এমপি মনজুরুল ইসলাম লিটন খুন হওয়ার পর গত বছর ২২ মার্চ ওই আসনে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে তিনি প্রথমবারের মতো এমপি হয়েছিলেন।


আপনার মন্তব্য