শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ অক্টোবর, ২০১৮ ২৩:১০

আওয়ামী লীগের আনন্দ মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের আনন্দ মিছিল

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে বিএনপির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সর্বোচ্চ সাজা ফাঁসি না হওয়ার ‘আক্ষেপ’ নিয়ে রাজধানীসহ সারা দেশে আনন্দ মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। গতকাল দুপুরে রাজধানীর সমাবেশে বক্তারা উল্লেখ করেন, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর এই রায়ে তারা অখুশি নন, তবে এতে পুরোপুরি সন্তুষ্টও নন। তারেক রহমানকে এই হামলার প্লানার বা মাস্টারমাইন্ড আখ্যায়িত করে আপিলে তার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান তারা।

রায় ঘোষণার পর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে রাজধানীতে আনন্দ মিছিল করা হয়।  এসব মিছিলে নেতা-কর্মীরা ‘যাবজ্জীবন বিধান নাই, তারেক জিয়ার ফাঁসি চাই’ ‘এই মাত্র খবর এলো বাবরের ফাঁসি হলো’ ‘ফাঁসি ফাঁসি ফাঁসি চাই তারেক জিয়ার ফাঁসি চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকেন।  রায়কে কেন্দ্র করে সকাল থেকে রাজধানীর পাড়া-মহল্লায় সতর্ক অবস্থানে ছিলেন আওয়ামী লীগ এবং তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের দলীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ কেন্দ্রীয়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ, ছাত্রলীগ দক্ষিণ, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। রায় ঘোষণার পর নেতারা আনন্দ মিছিল বের করেন এবং তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানান। এ সময় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের মিছিলে নেতৃত্ব দেন সভাপতি আবুল হাসানাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী, দিলীপ রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদারসহ বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীরা। সমাবেশ ও বক্তৃতা পর্ব শেষ করে বিশাল মিছিল বের করেন যুবলীগ কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। এ মিছিলে ছিলেন যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, কেন্দ্রীয় নেতা মজিবুর রহমান চৌধুরী, মাহাবুবুর রহমান হিরণ, আবদুুস সাত্তার মাসুদ, মো. আতাউর রহমান, ফজলুল হক আতিক, এমরান হোসেন খান, কাজী আনিছুর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, মাইন উদ্দিন রানা, সোহরাব হোসেন স্বপন, নাজমুল হোসেন টুটুল, মোরসালিন আহমেদ, খোরশেদ আলম মাসুদ, জাফর আহমেদ রানা, ফারুক হোসেন, গাজী সারোয়ার বাবু, মাসুদুর রহমান মাকসুদ, দফতর সম্পাদক এমদাদুল হক এমদাদ প্রমুখ। স্বেচ্ছাসেবক লীগের মোল্লা মো. আবু কাওছার ও সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথের নেতৃত্বে মিছিলে খায়রুল হাসান জুয়েল, রফিকুল ইসলাম লিটনসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক জুবায়েরের নেতৃত্বে মিছিল গুলিস্তান হয়ে নয়াপল্টন, মৎস্য ভবন, বাংলামোটর প্রদক্ষিণ করে। সফিকুল বাহার মজুমদার টিপু, আনোয়ার হোসেন পাহাড়ি বীরপ্রতীক, মাহমুদ পারভেজের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে মিছিল করেছে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ। জননেত্রী সৈনিক লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম চৌধুরী রানার নেতৃত্বে মিছিল বের করেন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। মিছিলে আলাউদ্দিন ফালান, রফিকুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম, ওয়াহেদুজ্জামান খান, এসএম ডিউজ ভূইয়া প্রমুখ অংশ নেন। এ ছাড়াও রাজধানীর এরশাদ মার্কেটের সামনে ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলুর নেতৃত্বে অবস্থান নেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। রাজধানীর প্রবেশপথ যাত্রাবাড়ী ও ডেমরার স্টাফ কোয়ার্টারের সামনে সতর্ক অবস্থায় ছিলেন ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান মোল্লা সজলের নেতৃত্বে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। মিরপুরে মিছিল বের করেন সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি সাবিনা আকতার তুহিনের নেতৃত্বে স্থানীয় যুব মহিলা লীগ ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এ ছাড়াও মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সাফিয়া খাতুন ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ বেগম ক্রিকের নেতৃত্বে মহিলা আওয়ামী লীগ, নাজমা আকতার ও অপু উকিলের নেতৃত্বে যুব মহিলা লীগ আনন্দ মিছিল বের করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বে মিছিল করা হয়।

বিভিন্ন স্থান থেকে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো আরও খবর—

চট্টগ্রাম : গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে রাজপথে সরব ছিল নগর আওয়ামী লীগ। সকাল থেকেই ১৭টি পয়েন্টে নেতা-কর্মীরা অবস্থান নেন। মিছিল-সমাবেশের মাধ্যমে নগরের অধিকাংশ সড়ক মূলত আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনের দখলেই ছিল। এ ছাড়া রায় হওয়ার পর ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম উত্তর জেলা তারেক রহমানের কুশপুত্তলিকা দাহ করে। মিছিল বের করে আওয়ামী লীগ চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর জেলা, দক্ষিণ জেলা, ছাত্রলীগ মহানগর, যুবলীগ মহানগরসহ অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা। 

ময়মনসিংহ : রায় ঘোষণার পরপরই ময়মনসিংহ নগরীর টাউন হল ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ ও মহানগর যুবলীগ সন্তোষ প্রকাশ করে আনন্দ-উল্লাস করেছে।

বরিশাল : রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বরিশালে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ। বেলা ১২টার দিকে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘোষণার আগেই নগরীর সদর রোডের দলীয় কার্যালয়ে জড়ো হন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। তারা নগরীতে আনন্দ মিছিল করেন। মিছিল থেকে অবিলম্বে এ রায় কার্যকর করার দাবি জানানো হয়।

রাজশাহী : রায়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ফাঁসির আদেশ না হওয়ায় বিক্ষোভ করেছে নগর আওয়ামী লীগ। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর কুমারপাড়া দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে এ বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক ঘুরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।

রাবি : গ্রেনেড হামলার মূল মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগ। দুপুর ২টায় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমদ রুনুর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলটি দলীয় টেন্ট থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে।

পিরোজপুর : মামলার রায়কে স্বাগত জানিয়ে এবং এ মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানিয়ে মিছিল করেছেন জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। এ সময় নেতা-কর্মীরা দেশের সব চেয়ে নৃশংস এ হামলায় ২৪ জন প্রাণ হারানোর জন্য তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানান।

টাঙ্গাইল : গ্রেনেড হামলার অন্যতম আসামি বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টু ও তার ভাই জঙ্গি নেতা তাজ উদ্দিনের ফাঁসির দণ্ড হওয়ায় তার নিজ জেলা টাঙ্গাইলে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগসহ সর্বস্তরের মুক্তিযোদ্ধা-জনতা। মিছিল থেকে মামলার প্রধান আসামি যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানানো হয়।

শেরপুর : গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে আওয়ামীগের দুই গ্রুপে আলাদা আলাদা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুপুরে এক গ্রুপ শহর প্রদক্ষিণ শেষে চকবাজারস্থ জেলা আওয়ামী লীগের অফিসের সামনে এসে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের আয়োজন করে। এই গ্রুপের নেতৃত্ব দেন সদর আসনের এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক। অপরদিকে আরেক গ্রুপ শহরের খড়মপুর মোড়স্থ আওয়ামী লীগের একাংশের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে থেকে আরেকটি আনন্দ মিছিল বের করা হয়। এর নেতৃত্ব দেন শেরপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর রুমান, উপজেলা চেয়ারম্যান ছানুয়ার হোসেন।

মানিকগঞ্জ : রায় ঘোষণার পর মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা স্লোগান দিয়ে উল্লাস করেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে আনন্দ মিছিল করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ অঙ্গ সংগঠন।

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) : গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গতকাল দুপুর ২টায় উপজেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন মিষ্টি বিতরণ করেছে। পাশাপাশি সব আসামির গ্রেফতার ও রায় বাস্তবায়ন দাবি করে তারা বিক্ষোভ ও সমাবেশ করে।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহে আনন্দ র‌্যালি করেছে আওয়ামী লীগ। দুপুরে শহরের পোস্ট অফিস মোড় থেকে শুরু করে র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে পায়রা চত্বর গিয়ে শেষ হয়।

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের ভৈরবে আনন্দ মিছিল করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। তবে তারা রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও তারেক রহমানের ফাঁসি না হওয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করেন। 

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সংগঠনগুলো। দুপুরে রায় প্রকাশের পর এ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি উত্তর তেমুহনী বাস স্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

বাগেরহাট : রায় ঘোষণার পর-পরই বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীরা শহরে আনন্দ মিছিল করে। বৃষ্টি উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগের শত-শত নেতা-কর্মী এ আনন্দ মিছিলে অংশ নেন।

গাজীপুর : গাজীপুর সিটি করপোরেশনের চান্দনা চৌরাস্তা, দলীয় কার্যালয়, বোর্ডবাজার, কোনাবাড়ি, কাশিমপুরসহ বিভিন্ন স্থানে আনন্দ মিছিল এবং একইসঙ্গে তারেক রহমানের ফাঁসির দাবিতে মিছিল ও সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনগুলো।

রংপুর : রংপুরে মহানগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা রায়কে স্বাগত জানিয়ে দুপুরে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। মিছিল শেষে রংপুর প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ করা হয়।

বগুড়া : রায়কে স্বাগত জানিয়ে দুপুর ১টায় বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করেছে।

নীলফামারী : ‘গ্রেনেড হামলার রায় প্রতিহিংসার নয় বরং সত্যের জয় হয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। গতকাল বিকালে সাড়ে তিনটায় নীলফামারীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ২১ আগস্ট গ্রেনেড মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ ও দ্রুত রায় কার্যকরের দাবিতে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সাতক্ষীরা : ২১ আগস্ট গ্রেনেট হামলা মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে সাতক্ষীরায় আনন্দ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে জেলা আওয়ামী লীগ ও কলারোয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ।

শ্রীপুর (গাজীপুর) : তারেক রহমানের ফাঁসি চেয়ে  গাজীপুরের শ্রীপুরে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

এ ছাড়া রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনগুলো মিছিল সমাবেশ করেছে সিলেট, দিনাজপুরসহ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায়।


আপনার মন্তব্য