Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:০৬

ভিড় নেতাদের বাড়িতে বাড়িতে

সব দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীই ব্যস্ত লবিংয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভিড় নেতাদের বাড়িতে বাড়িতে

দলের মনোনয়ন লাভের আশায় কঠিন সময় পার করছেন আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ প্রতিটি দলের নেতা। সবাই ব্যস্ত মনোনয়ন ফরম উত্তোলন ও মনোনয়ন নিশ্চিত করার প্রক্রিয়ায়। তারা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ধরনা দিচ্ছেন কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা সবাই এখন রাজধানীতে। বিএনপির প্রতীক ধানের শীষ পেতে অনেকেই লন্ডনেও যোগাযোগ করছেন। জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক পেতে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা এইচ এম এরশাদের বারিধারার বাসা ও মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারের অফিসে আসা-যাওয়া করছেন।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা সবাই ঢাকায় : আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা কেউই নিজ এলাকায় নেই। সবাই এখন ঢাকায়। নৌকা পেতে তারা লবিং-তদবির করছেন। মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎ দিতে ঘুম হারাম হচ্ছে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের। বিশেষ করে যারা দলের সংসদীয় বোর্ডে রয়েছেন তারা আছেন সবচেয়ে বেকায়দায়। তাদের বাসাবাড়ি ও অফিসে ভিড় লেগেই আছে। জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীর সিংহভাগই ঢাকায় অবস্থান করছেন। নির্বাচনী এলাকার জনগণের মন জয় করার চেয়ে দলের নীতিনির্ধারকদের মন জয়ের চেষ্টায় ব্যস্ত তারা। মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ধারণা, নৌকা পেলেই তারা বিজয়ী হবেন। সে কারণে আওয়ামী লীগ সংসদীয় বোর্ডের সদস্যদের আশীর্বাদ নিতে বাড়ি বাড়ি ছুটছেন তারা। জীবনবৃত্তান্ত নিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তাদের কাছে ধরনা দিচ্ছেন। কেউ কেউ বিশাল শোডাউন নিয়ে দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেন। নিজেদের জনপ্রিয় দেখাতেই এ শোডাউন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডে রয়েছেন ১১ জন। তারা হলেন দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, প্রফেসর ড. আলাউদ্দিন আহমেদ ও মো. রশিদুল আলম; প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, কাজী জাফরউল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। মনোনয়ন বোর্ডের আরেক সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত মারা গেছেন। সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম অসুস্থ থাকায় তাদের পরিবর্তে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক ও লে. কর্নেল (অব.) মুহম্মদ ফারুক খান ও রমেশ চন্দ্র সেনকে অস্থায়ী সদস্য করা হয়েছে। দলের সংসদীয় বোর্ডের সদস্যদের বাড়ি ও অফিসে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মনোনয়নপ্রত্যাশীর ভিড় লেগেই আছে। একাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সংসদীয় বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করে সালাম বিনিময় করছেন তারা। ধানের শীষ পেতে যোগাযোগ লন্ডনেও : ধানের শীষ প্রতীক পেতে প্রভাবশালী নেতাদের বাসায় বাসায় দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। বিশেষ করে স্থায়ী কমিটি, ভাইস চেয়ারম্যান ও যুগ্মমহাসচিব পর্যায়ের নেতাদের বাসায় বাসায় যাচ্ছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। আবার অনেকেই যোগাযোগ করছেন লন্ডনে। সেখানে অবস্থান করছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। গত ছয় মাসে শতাধিক নেতা লন্ডনে যান। নেতাদের প্রায় সবাই তারেক রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। অনেকেই সবুজ সংকেত পেয়ে দেশে ফেরেন। আবার কেউ কেউ সরাসরি সংকেত না পেলেও মাঠে সক্রিয় থাকার পরামর্শ নিয়ে আসেন। জানা যায়, লন্ডন থেকে তারেক রহমান অনেক প্রার্থীর সঙ্গে সরাসরি কথা বলছেন। তাদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নেওয়ার পাশাপাশি নির্বাচনের মাঠেও সক্রিয় থাকার নির্দেশনা দেন। দলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের পাশাপাশি মাঠ নেতাদের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলছেন তিনি। এ ছাড়া বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যদের বাসাবাড়ি কিংবা অফিসে ভিড় জমাচ্ছেন নেতা-কর্মীরা। নেতা-কর্মীর ঢল এরশাদের বাসায়ও : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বাসভবন থেকে পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারের গুলশানের কার্যালয়ে নেতা-কর্মীর ঢল নামছে। দর্শনার্থীর চাপ উপেক্ষা করতে কখনো অন্য কোথাও গিয়ে বিশ্রাম নিচ্ছেন এইচ এম এরশাদ। বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদের বাসভবনে মনোনয়নপ্রত্যাশীর উপস্থিতি অনেক বেড়ে গেছে। আওয়ামী লীগ মহাজোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টিকে অনেক আসন ছাড় দেবে এই সংবাদে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা নেতাদের বাড়িতে নিয়মিত ছুটছেন। জাতীয় পার্টি চাইছে যে করেই হোক আওয়ামী লীগের কাছ থেকে চূড়ান্ত আসন বণ্টনে ৭০টি আসন নিতে। জাতীয় পার্টির পার্লামেন্টারি বোর্ডে পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ চেয়ারম্যান এবং মহাসচিব সদস্যসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। অন্য সদস্যরা হলেন পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেও, প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, ফকরুল ইমাম, মুজিবুল হক চুন্নু, মশিউর রহমান রাঙ্গা, সুনীল শুভরায়, আতিকুর রহমান ও মুজিবুর রহমান সেন্টু প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর