শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:০৯

বাসা ঘেরাওয়ের অভিযোগ

হাই কোর্টে আব্বাস দম্পতির আগাম জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের তিন মামলায় হাই কোর্ট থেকে আগাম জামিন পেয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও তার স্ত্রী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস। গতকাল মির্জা আব্বাস দম্পতি হাই কোর্টে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমদের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ তাদের আট সপ্তাহের জামিন দেন। আব্বাস দম্পতির পক্ষে আদালতে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও এম মাহবুব উদ্দিন খোকন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এ কে এম এহসানুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মমতাজ উদ্দিন ফকির। পরে এহসানুর রহমান বলেন, হাই কোর্ট মির্জা আব্বাস ও তার স্ত্রী আফরোজা আব্বাসকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন। এই সময়ের পর তাদের মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে স্থায়ী জামিনের আবেদন করতে হবে।

১০ জন আটক : এদিকে বিকাল সাড়ে চারটার দিকে মির্জা আব্বাসের শাহজাহানপুরের বাসার সামনে থেকে ছাত্রদল নেতা সোহাগ, রবিনসহ অন্তত ১০ জন নেতা-কর্মীকে গোয়েন্দা পুলিশ আটক করেছে বলে দাবি করেছেন আফরোজা আব্বাস। এর আধঘণ্টা আগ থেকে পুলিশ ওই বাসা ঘেরাও করে রাখে। যদিও এ বিষয়টি স্বীকার করেনি গোয়েন্দা পুলিশ। গোয়েন্দা পুলিশের (পূর্ব) উপকমিশনার খন্দকার নূরুন্নবী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, গ্রেফতারের বিষয়টি সত্য নয়। মির্জা আব্বাসের বাসা ঘেরাওয়ের খবরটিও সত্য নয়। নির্বাচন সামনে রেখে মনোনয়ন ফরম বিক্রির কার্যক্রমের মধ্যে গত বুধবার দুপুরে ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতা-কর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশের দুটি গাড়ি পোড়ানো হয়, ভাঙচুর করা হয় অনেক গাড়ি। হেলমেট পরা কয়েকজনকে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগে অংশ নিতে দেখা যায়। সংঘর্ষের ওই ঘটনায় পল্টন থানা পুলিশের পক্ষ থেকে তিনটি মামলা হয়, তার তিনটিতেই মির্জা আব্বাস ও আফরোজাকে আসামি করা হয়।

 


আপনার মন্তব্য