শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ মে, ২০১৯ ২৩:৩৩

উত্তরখানের তিন লাশ নিয়ে ধাঁধায় পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

উত্তরখানের তিন লাশ নিয়ে ধাঁধায় পুলিশ

রাজধানীর উত্তরখানে এক পরিবারের তিনজনের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় দুজনকে হত্যার পর একজন আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে মনে করছেন ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক। তবে মা ও ছেলেমেয়ের মধ্যে কে কাকে খুন করেছে, আর কে আত্মহত্যা করেছে, তা বুঝতে ভিসেরা প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করার কথা বলেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ।

তিনি বলেন, কেউ বিষ পান করে থাকলে তা ভিসেরা প্রতিবেদনে আসবে। তখন হয়তো স্পষ্ট হবে, কোন দুজনকে হত্যার পর কে আত্মহত্যা করেছে। এর আগে গত রবিবার রাতে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে উত্তরখানের ময়নারটেক এলাকার এক বাসার দরজা ভেঙে ওই তিনজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মা ও মেয়ের লাশ ছিল বিছানায়; আর ছেলের লাশ মেঝেতে পড়ে ছিল। সোমবার তিনজনের ময়নাতদন্তের পর ডা. সোহেল মাহমুদ বলেছিলেন, ওই তিনজনের মধ্যে মা জাহানারা বেগম মুক্তা (৪৮) এবং তার প্রতিবন্ধী মেয়ে আতিয়া সুলতানা মিমের (১৯) মৃত্যু হয়েছে শ্বাসরোধে।

আর জাহানারার ছেলে মহিব হাসান রশ্মির (২৭) মৃত্যু হয়েছে গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে। তবে হত্যা না আত্মহত্যা তা নিয়ে ধাঁধাঁয় রয়েছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, ঘরের দুই জায়গায় দুটি চিরকুট পাওয়া গেছে। দুই চিরকুটের বক্তব্য একই, তবে হাতের লেখা আলাদা। তাতে লেখা ছিল, আমাদের মৃত্যুর জন্য আমাদের ভাগ্য এবং আমাদের আত্মীয়স্বজনের অবহেলা দায়ী। আমাদের মৃত্যুর পর আমাদের সম্পত্তি দান করা হোক। পুলিশের ধারণা, একটি চিরকুট ছেলের হাতে লেখা, অন্যটি মায়ের।

 


আপনার মন্তব্য