শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৪

অষ্টম কলাম

চিড়িয়াখানায় চার প্রাণীর শাবকের জন্ম

মোস্তফা কাজল

চিড়িয়াখানায় চার প্রাণীর শাবকের জন্ম

রাজধানীর জাতীয় চিড়িয়াখানায় চার মাসের ব্যবধানে জন্ম নিয়েছে চার প্রাণীর চার শাবক। এর মধ্যে রয়েছে জিরাফ, জেব্রা, অ্যারাবিয়ান হর্স ও জলহস্তীর শাবক। শাবকগুলো দেখতে শিশু দর্শনার্থীরা এখন প্রচন্ড ভিড় করছে। বাদ যাচ্ছেন না বড়রাও। দর্শনাথীরা শাবকগুলোর চলাফেরা ও ছুটোছুটি অবলোকন করছেন। তারা এগুলোর ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ছড়িয়ে দিচ্ছেন। ফলে ফুটফুটে শাবকগুলো এখন সবার কাছে বড় আকর্ষণ। অনেকেই দূরদূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন শাবক দেখতে। জাতীয় চিড়িয়াখানার কিউরেটর ডা. নজরুল ইসলাম জানান, গত ১৭ আগস্ট দুপুরে প্রিয়া নামের একটি জিরাফ অনিন্দ্য সুন্দর একটি শাবক প্রসব করে। প্রিয়ার এই মেয়ের নাম রাখা হয়েছে শ্রাবণী। প্রিয়াকে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আনা হয়েছিল। এ নিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানায় জিরাফ পরিবারের সদস্য সংখ্যা দাঁড়িয়েছে আটে। এছাড়া গত ২০ আগস্ট চাঁদনী নামের জেব্রাটি ‘ঝিলিক’ নামে মায়াবী সুন্দর একটি বাচ্চার জন্ম দেয়। আগের একটি পুরুষ ও তিনটি স্ত্রী জেব্রাসহ জাতীয় চিড়িয়াখানায় জেব্রা পরিবারের সদস্য সংখ্যা এখন পাঁচটি। ২০ আগস্ট ‘দোলন’ নামে অপরূপ সুন্দর একটি বাচ্চা দেয় দুলকি নামে এরাবিয়ান ঘোড়া। সৌদি আরব থেকে আনা দুইটি ঘোড়া থেকে পর্যায়ক্রমে আরও দুটি বাচ্চা জন্মগ্রহণ করে। এখন বাংলাদেশ চিড়িয়াখানায় মোট পাঁচটি ঘোড়া আছে। গত ২২ আগস্ট নজরকাড়া সুন্দর বাচ্চার জন্ম দেয় আগন্ত নামের জলহস্তী। পরে শাবকের নাম রাখা হয় ‘সুমন্ত। ১৯৯০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আনা দুটি জলহস্তী থেকে পর্যায়ক্রমে ১২টি বাচ্চা জন্মগ্রহণ করেছে। এখন বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানায় জলহস্তী পরিবারের সদস্য সংখ্যা ১৬-তে দাঁড়াল। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানা থেকে সাফারি পার্কে দুইটি এবং রংপুর চিড়িয়াখানায় একটি জলহস্তী সরবরাহ করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর