শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৪২

সাগরে দুর্যোগে পড়া রোহিঙ্গা ফেরত দিতে দিল্লি কথা বলছে ঢাকার সঙ্গে

নয়াদিল্লি প্রতিনিধি

বঙ্গোপসাগরে নৌকা দুর্ঘটনায় পড়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের কক্সবাজারে ফেরত পাঠানোর জন্য ভারত সরকার বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব গতকাল সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি জানান, ১১ ফেব্রুয়ারি শতাধিক রোহিঙ্গা শরণার্থী-বোঝাই একটি নৌকা কক্সবাজার থেকে মালয়েশিয়ার দিকে রওনা দেয়। পথিমধ্যে নৌকার ইঞ্জিনটি বিকল হয়ে সমুদ্রে ভাসতে থাকে। দুর্ঘটনার সংবাদ পাওয়া মাত্রই   ভারতের উপকূলবাহিনীর দুটি জাহাজ উদ্ধারের জন্য পাঠানো হয়। তাতে খাবার, পানীয় জল, ওষুধ ছিল। মুখপাত্র জানান, প্রতিকূল পরিবেশে থাকায় আট রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়। ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে একজন এখনো নিখোঁজ। নৌকায় ৬৪ জন মহিলা, আট কিশোরী ও পাঁচ কিশোরও ছিল। তিনি এও বলেন, এদের পরিচয়পত্র থেকে দেখা গেছে ৪৭ জনের কাছে জাতিসংঘ মানবাধিকার হাইকমিশনার দ্বারা জারি করা পরিচয়পত্র রয়েছে। এরা মিয়ানমার থেকে উৎখাত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিল। এদের নিরাপদ ‘প্রত্যাবর্তন’-এর জন্য ভারত সরকার উদ্যোগ নিয়েছে। তবে কোথায় প্রত্যাবর্তন করা হবে তা তিনি স্পষ্ট করে বলেননি। সার্ক দেশের চিকিৎসকদের জরুরি ভিসা : মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন, সম্প্রতি সার্ক সদস্য রাষ্ট্রের স্বাস্থ্য সচিবদের ভার্চুয়াল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এসব দেশের চিকিৎসকদের জরুরি ভিসা দেওয়ার প্রস্তাব দেন। সে প্রস্তাব সবাই মেনে নিয়েছেন। অর্থাৎ বাংলাদেশ, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, আফগানিস্তান মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা সম্মত। প্রধানমন্ত্রী ওই বৈঠকে এও প্রস্তাব দিয়েছিলেন, করোনার মতো মহামারীর সময়ে যেমন চিকিৎসক-নার্সদের জরুরি ভিসা দেওয়া হচ্ছে তেমনি এ দেশগুলোর মধ্যে বিমান অ্যাম্বুলেন্স চালু করা হোক। এই সঙ্গে ভ্যাকসিন ব্যবহারের উপযোগিতার তথ্য অংশীদারি করা এবং একটি তথ্যপ্রযুক্তির মঞ্চ গড়ে তোলা যাতে এ ধরনের দুর্যোগের সময় একে অন্যের মধ্যে তথ্য আদান-প্রদান করা যায়। মুখপাত্র জানান, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর