শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ এপ্রিল, ২০২১ ২২:৫৮

ভৈরবে সংঘর্ষে তিনজন নিহত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জের ভৈরব ও কুলিয়ারচরে পৃথক সংঘর্ষে তিনজন নিহত ও অন্তত ৪৫ জন আহত হয়েছেন। ভৈরবে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে দুজন নিহত ও অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- খলাপাড়া গ্রামের মোতালিব শেখের ছেলে মুগল শেখ (৩০) ও লুন্দিয়া গ্রামের আবদুল খালেক শেখের ছেলে পাভেল শেখ (২২)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সকাল ৯টার দিকে খলাপাড়া গ্রামের শেখবাড়ির লোকজন খলায় ধান মাড়াই করতে গেলে স্থানীয় শিকদার বাড়ির লোকজন তাদের গালাগাল করে। এ নিয়ে দুপক্ষের মাঝে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের ১৫ জন আহত হন। গুরুতর আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে মুগল শেখকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। এ খবর পাশের লুন্দিয়া গ্রামে পৌঁছলে লুন্দিয়া গ্রামে বসবাসরত শেখ বংশের লোকজন ও শিকদার বাড়ির আত্মীয় পাগলা বাড়ির লোকজনের মাঝে দুপুর ১২টার দিকে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের আরও অন্তত ১৫ জন আহত হন। গুরুতর আহত পাভেল শেখকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সংঘর্ষ চলাকালে ২৫ থেকে ৩০টি বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। আহতদের ভৈরব, ঢাকা ও বাজিতপুরের একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায়               পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অপরদিকে কুলিয়ারচরে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে লিটন মিয়া (৪০) নামে একজন নিহত ও অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। নিহত লিটন মধ্য লালপুর গ্রামের আব্বাস উদ্দিনের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সকালে উপজেলার ছয়সুতি ইউনিয়নের মধ্য লালপুর গ্রামে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শিশুদের আম কুড়ানোকে কেন্দ্র করে মধ্য লালপুর গ্রামের কান্দিবাড়ি ও উমার বাড়ির লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। একপর্যায়ে কান্দিবাড়ির লিটনকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। তাদের কুলিয়ারচরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর