মঙ্গলবার, ২০ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
অষ্টম কলাম

পরিকল্পনামন্ত্রীর মোবাইল ফোন উদ্ধার যেভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের হাত থেকে ছিনতাই হওয়া মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। দেড় মাস আগে রাজধানীর বিজয় সরণি এলাকা থেকে গাড়ির জানালা দিয়ে ছিনতাই হওয়া এ ফোনের সঙ্গে জড়িত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন- মো. সগির, মো. সুমন মিয়া, মো. জাকির, মো. হামিদ আহম্মেদ সোহাগ ওরফে আরিফ এবং মো. জীবন।

গত রবিবার রাজধানীর কয়েকটি এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি মোটরসাইকেল, বিভিন্ন মডেলের ১০টি ফোন সেট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোনের যন্ত্রাংশ উদ্ধার করা হয়। গতকাল ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন রমনা বিভাগের উপ কমিশনার (ডিসি) মো. সাজ্জাদুর রহমান। তিনি বলেন, ধানমন্ডি থানার একটি মামলার ভুক্তভোগী ১২ জুলাই বিকালে রিকশায় যাওয়ার সময় মোটরসাইকেলে অজ্ঞাতনামা দুই ব্যক্তি তার ভ্যানিটি ব্যাগ টান দিয়ে নিয়ে যায়। সেই মামলার তদন্তে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে সগির ও সুমনকে শনাক্ত এবং গ্রেফতার করা হয়। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে অপর আসামিদের গ্রেফতার করা হয়। আসামিদের কাছে ধানমন্ডি থানার মামলার বাদীর মোবাইল ফোনসহ পরিকল্পনামন্ত্রীর ছিনতাই হওয়া মোবাইল ফোন পাওয়া যায়।

এদিকে, ছিনতাইয়ের ৪৯ দিন পর নিজের ব্যবহৃত আইফোন ফিরে পাওয়ার সংবাদে উচ্ছ¡ স প্রকাশ করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। পুলিশ বাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেছেন, তারা চমৎকার কাজ করেছে। গতকাল নতুন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলমের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে তিনি এ কথা বলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, একটু দেরি হলেও ফোনটি ফিরে পেয়েছি। আমার বিশ্বাস ছিল আমি ফোনটি ফিরে পাব। এ জন্য পুলিশ বাহিনীকে অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। তারা অনেক চমৎকার কাজ করেছেন। তাদের জন্য ফোনটি ফিরে পেয়েছি। আমি পুলিশ বাহিনীর কাজে মুগ্ধ ও খুশি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আমার বিশ্বাসটা রক্ষা করেছে। এ জন্য অনেক ধন্যবাদ। আমার ফোনটা বেশ জনপ্রিয় হয়েছে।

এর আগে, গত ১ জুন রাজধানীর বিজয় সরণির রাস্তায় গাড়িতে বসা অবস্থায় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের মোবাইল ফোন ছিনতাই হয়। গাড়ির খোলা জানালা দিয়ে মন্ত্রীর হাত থেকে তার আইফোন ছোঁ মেরে নিয়ে উধাও হয় ছিনতাইকারী। পরে মন্ত্রীর সঙ্গে থাকা নিরাপত্তাকর্মীরা পিছু নিয়েও ছিনতাইকারীকে ধরতে পারেননি। ওইদিনই কাফরুল থানায় এ ব্যাপারে একটি মামলা করা হয়।