শিরোনাম
শনিবার, ১৬ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ টা

আরও ২৫ দিনের জেলহাজতে পি কে হালদার

কলকাতা প্রতিনিধি

বাংলাদেশের ৩ হাজার ৬০০ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে ভারতে গ্রেফতার পি কে হালদারসহ ছয়জনকে আরও ২৫ দিনের জেল হেফাজতে পাঠিয়েছেন দেশটির আদালত। একই সঙ্গে পি কে হালদারের মেডিকেল পরীক্ষা করিয়ে পরবর্তী শুনানির দিনে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। আগামী ১০ আগস্ট ফের আদালতে তোলা হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে গ্রেফতার বাংলাদেশ-ভিত্তিক এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক পি কে হালদারসহ ছয় অভিযুক্তকে। গতকাল বেলা ১১টা ১০ মিনিটে আদালতে তাকে আনা হয়। দুপুর ১২টা নাগাদ বিচারকের এজলাসে তোলা হয়। শুনানি শেষে সিবিআই স্পেশাল কোর্ট-৩ বিচারক জীবন কুমার সাধু এ আদেশ দেন। গত ১১ জুলাই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কলকাতার আদালতে চার্জশিট জমা দেয় ইডি। ১০০ পাতার ওই চার্জশিটে পি কে হালদারসহ ছয় অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম রয়েছে। প্রিভেনশন অব মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট-২০০২ মামলায় ওই ছয় অভিযুক্তের নামে চার্জ গঠন করা হয়েছে। চার্জশিটে নাম রয়েছে তাদের দুটি সংস্থার নামও।

আদালতে শুনানি চলাকালীন ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-এর আইনজীবী অরিজিৎ চক্রবর্তী জানান, ১০০ পাতার চার্জশিট দেওয়া হয়েছে আদালতে। এদিন সেই চার্জশিটের কপি অভিযুক্তদের আইনজীবীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। আগামী দিনে নতুন যা তথ্য আসবে তা সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিট আকারে আদালতে পেশ করা হবে বলে জানান অরিজিৎ চক্রবর্তী।

পি কে হালদারের মেডিকেল চেকআপের জন্য মামলাকারীর পক্ষ থেকে আদালতে যে আবেদন করা হয়েছিল, বিচারক তাতে অনুমতি দেন। সেক্ষেত্রে আগামী ১০ আগস্ট পি কে হালদারের মেডিকেল রিপোর্ট আদালতে জমা করতে কারাগার কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

এ মুহূর্তে অভিযুক্ত পি কে হালদারসহ ৫ পুরুষ অভিযুক্ত রয়েছেন প্রেসিডেন্সি কারাগারে, একমাত্র নারী অভিযুক্ত রয়েছেন আলিপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের নারী সেলে।

এদিন শুনানি শেষে আদালত থেকে কারাগারে যাওয়ার পথে পি কে হালদারকে জিজ্ঞাসা করা হয় চার্জশিটের কপি তিনি পেয়েছেন, কিছু বলবেন কি না? তিনি জানান, ‘হ্যাঁ চার্জশিট পেয়েছি, বলব।’

উল্লেখ্য, অশোকনগরসহ পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় অভিযান চালিয়ে গত ১৪ মে পি কে হালদারকে গ্রেফতার করা হয়। তার সঙ্গে গ্রেফতার করা হয় তার ভাই প্রাণেশ হালদার, স্বপন মিস্ত্রি ওরফে স্বপন মৈত্র, উত্তম মিস্ত্রি ওরফে উত্তম মৈত্র, ইমাম হোসেন ওরফে ইমন হালদার এবং আমানা সুলতানা ওরফে শর্মী হালদারকে।

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর