শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:৫১
প্রিন্ট করুন printer

অনিয়মের অভিযোগ; বায়রা নির্বাচনের পুনঃতফসিল দাবি

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

অনিয়মের অভিযোগ; 
বায়রা নির্বাচনের পুনঃতফসিল দাবি

জনশক্তি রফতানিকারকদের সংগঠন বায়রার ভোটার তালিকায় ব্যাপক অনিয়ম ও ত্রুটির থাকার অভিযোগ করেছে সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ প্যানেল সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোট।  অভিযোগ করা হয়েছে, ভোটার তালিকায় কোন কারণ ছাড়া অনেককে বাদ দেয়া হয়েছে। আবার অনিয়মের মাধ্যমে অনেককে ভোটার করা হয়েছে। বায়রা নির্বাচনী আপীল বোর্ডের বিরুদ্ধে পক্ষপাতমূলক আচরণের অভিযোগ তুলে পূনতফসিলের দাবি জানিয়েছেন প্যানেল নেতারা। সোমবার ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বায়রার সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোটের প্যানেল প্রধান ও বায়রার সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন স্বপন বলেন, গত ২৫ এপ্রিল প্রকাশিত বায়রা নির্বাচন খসড়া ভোটার তালিকায় আমার নামসহ সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোটের আরো ২৭ জনের নাম অন্তর্ভুক্ত ছিল। কিন্তু অবাক করার মতো বিষয় হলো, ৬ এপ্রিলে প্রকাশিত চূড়ান্ত ভোটার তালিকায় আমিসহ বায়রার গুরুত্বপূর্ণ ও সিনিয়র ব্যবসায়িদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

অথচ ট্রেড অর্গানাইজেশন অর্ডিন্যান্স বিধিতে স্পষ্ট উল্লেখ আছে যে, নির্বাচন আপিল বোর্ড কর্তৃক ভোটার তালিকা সংক্রান্ত কোন সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে সংশ্লিষ্ট পক্ষসমূহকে তাদের পক্ষের দলিল বা তথ্য উপস্থাপনের জন্য যুক্তি সংগত সুযোগ দিতে হবে।

অথচ আমাদের ক্ষেত্রে কোন আইন ও নিয়মের তোয়াক্কা না করে, প্রাথমিক ভোটার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত সত্বেও চূড়ান্ত ভোটার তালিকা হতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমাদের ২৮ ভোটারের নাম বাদ দেয়া হয়েছে। বায়রা নির্বাচনী আপিল বোর্ডের পক্ষপাত তুলে ধরে তিনি বলেন, বায়রার কল্যাণ তহবিলের বকেয়া পরিশোধ না করলে কোন বায়রা সদস্য ভোটার হতে পারবেন না, অথচ বকেয়া পরিশোধ করেন নাই, এমন ৬৫ জনকে চূড়ান্ত ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। পক্ষান্তরে আমাদের চাঁদা বকেয়া না থাকা সত্বেও চূড়ান্ত ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে।

আর ভোটার তালিকা থেকে আমাদেরকে বাদ দেয়ার আগে কোন নোটিশ না দেয়া বা না জানানোর বিষয়ে নির্বাচনী আপিল কমিটির প্রধান বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব আব্দুস সালাম আজাদ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে তা স্বীকারও করেছেন। রুহুল আমিন স্বপন বলেন, আমরা নির্বাচনের তফসিল পরিবর্তনের দাবি জানাচ্ছি। আর কোভিড-১৯ এর কারণে বাণিজ্য সংগঠনগুলোর নির্বাচন অনুষ্ঠানের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে বানিজ্য মন্ত্রণালয়। তাই নির্বাচন পিছানোর ক্ষেত্রে বা নির্বাচনী তফসিল পুনঃনির্ধারণ করতে আইনগত কোন বাধাও নেই।

সংবাদ সম্মেলনে সম্মিলিত গণতান্ত্রিক জোটের পক্ষ থেকে পাচটি দাবি করা হয়। এগুলো হলো বায়রা নির্বাচন ২০২১-২০২৩ এর ভোটার তালিকার সকল ত্রুটি সংশোধন করতে হবে। যাদেরকে কোন কারণ দর্শানো ছাড়া ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে, তাদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। বায়রায় বকেয়া থাকা ও লাইসেন্স নবায়ন না থাকা ভোটার তালিকায় যাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, তাদের বাদ দিতে হবে।

এসব অনিয়মে যারা জড়িত, তাদের চিহ্নত করে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। বর্তমান নির্বাচনী তফসীল পরিবর্তন করে পুনঃতফসিল ঘোষণা করতে হবে। উপস্থিত রিক্রুটিং এজেন্সি মালিকরা  বলেন, বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে দেশের প্রায় সকল শ্রমবাজার বন্ধের সম্মুখিন হয়েছে। শ্রমবাজারের এই ক্রান্তিলগ্নে দেশের রেমিটেন্সের চাকা সচল করতে একটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের মাধ্যমে একটি ব্যবসা বান্ধব কমিটি নেতৃত্বে আসা অত্যন্ত জরুরি।

সংবাদ সম্মেলনে বায়রা নির্বাচনে ভোটার তালিকায় বঞ্চিত ২৮জনের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন এসোসিয়েশন অফ ট্রাভেল এজেন্টস অফ বাংলাদেশের (আটাব) প্রেসিডেন্ট মনসুর আহমেদ কালাম, হজ্জ এজেন্সিস এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশের (হাব) সাবেক সভাপতি আবদুস সোবহান ভূইয়া হাসান, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সি (বায়রা) সাবেক সহসভাপতি শফিকুল আলম ফিরোজ, ফিমেল ওয়ার্কার্স রিক্রুটিং অ্যাজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ফোরাব) এর আব্দুল আলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোবারক উল্লাহ শিমুল প্রমুখ। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন

এই বিভাগের আরও খবর