৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৯:৫২

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারে আল্টিমেটাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারে আল্টিমেটাম

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের চার সম্পাদকসহ সিনিয়র সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গতকাল রাজধানীর মিরপুরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়ার বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রকাশক ও সম্পাদকসহ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারে ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় সারাদেশে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকি দিয়েছে সাংবাদিক মহল।

মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর মিরপুর-১০-এর গোল চত্বরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি দেয় মিরপুর সম্মিলিত সাংবাদিক জোট, ঢাকা। এতে মিরপুর প্রেস ক্লাব, পল্লবী প্রেস ক্লাব, জাগো কণ্ঠ, আলোকিত ঢাকা, ইউনিভার্সাল সংবাদসহ বিভিন্ন মিডিয়ার শতাধিক সাংবাদিক সমাবেশে অংশ নেন। এই প্রতিবাদ কর্মসূচি থেকে মামলা প্রত্যাহারে আল্টিমেটাম দেওয়া হয়।

মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের পাশাপাশি সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে যুগোপযোগী আইন প্রণয়নের দাবি করেন বক্তারা। তাঁরা বলেন, সামশুল হক চৌধুরী ও তার পুত্র শারুন চরম বিতর্কিত। সাংবাদিক সমাজের প্রত্যাশা- সরকার উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের মাধ্যমে তাদের মুখোশ উন্মোচন করবে এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করবে।

ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক অর্থ সম্পাদক ও মেডিক্যাল রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ঢামেক) সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হাকিম সভায় সভাপতিত্ব করেন। তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা করে অতীতে কেউ টিকতে পারেনি, আপনিও পারবেন না। সাংবাদিকদের দমানোর মতো শক্তি আপনার নেই।’

‘মামলা করে সাংবাদিকদের সত্য বলা থেকে বিরত রাখতে পারবেন না। আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মামলা প্রত্যাহার করে নেবেন। না হলে বৃহত্তর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে মিরপুর সম্মিলিত সাংবাদিক জোট। সময় দিলাম এখন মামলা তুলে নেবেন কি না, সেটি আপনার বিষয়’ বলেও সাংবাদিক নেতা আজিজুল হাকিম উল্লেখ করেন।

দি এক্সাম্পল পত্রিকার সম্পাদক মিজানুর রহমান মোল্লা বলেন, ‘আমাদের সাংবাদিক সমাজের আইকন দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, প্রখ্যাত লেখক ও দৈনিক কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, ডেইলি সান সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী ও বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোরের সম্পাদক জুয়েল মাজহারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাটি পুরোপুরি মিথ্যা ও হাস্যকর। আর এই মামলাটি যিনি করেছেন, তিনি হচ্ছেন পচা-দুর্গন্ধযুক্ত ব্যক্তিত্ব হুইপ সামশুল হক চৌধুরী। যিনি স্থানীয়দের কাছে বিচ্ছু সামশু হিসেবে পরিচিত। আমরা অবিলম্বে সামশুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি।’

মিরপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি চঞ্চল মাহমুদ বলেন, ‘মামলা প্রত্যাহার করা না হলে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। অনেক সহ্য করেছি আর কোনো হয়রানি সহ্য করা হবে না।’

মিরপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রিপন বলেন, ‘যারা মিথ্যা মামলা দিয়ে কণ্ঠরোধ করার স্বপ্ন দেখছেন, তারা এখনো সাবধান হয়ে যান। না হলে সাংবাদিকদের আন্দোলনে ভেসে যাবেন, পালানোর পথ খুঁজে পাবেন না।’

বাংলাদেশ সোনালী খবরের প্রকাশক ও সম্পাদক মনিরুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘অবিলম্বে ১১ জনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। সামশুল হক চৌধুরীকে জানিয়ে দিতে চাই, হামলা-মামলা দিয়ে সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধ করা যাবে না। মামলা তুলে নেওয়া না হলে গণ-আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।’

মিরপুর প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘যাঁরা সাংবাদিক সমাজের নেতৃত্ব দেন তাঁদের বিরুদ্ধে এই মামলা মেনে নেওয়া যায় না। এটি সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধের অপপ্রয়াস ছাড়া কিছুই নয়। অবিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।’

নতুন বার্তার বিশেষ প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ‘সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দুর্নীতিবাজ হুইপ ৫০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা করেছেন। যাঁর মানই নেই, তাঁর হানি হয় কিভাবে। মূলত তাঁর দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে লেখায় পত্রিকার মুখ বন্ধ করতে সাজানো মামলা দায়ের করেছেন। আবিলম্বে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করার অনুরোধ করছি।’

চ্যানেল মুভি বাংলার স্টাফ রিপোর্টার রাজু আহমেদ বলেন, ‘কালের কণ্ঠ, বাংলাদেশ প্রতিদিনে তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রকাশ হয়েছে। এতে ভীত হয়ে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।’ দৈনিক প্রতিদিনের বাংলাদেশ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার এনামুল হক ইমন বলেন, ‘সাংবাদিকদের নিয়ে খেলবেন না। এর ফল কখনো ভালো হবে না। কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরিয়ে আসবে ‘

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন দৈনিক মাতৃজগৎ পত্রিকার সম্পাদক খান সেলিম রহমান, মিরপুর প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শহীদুল ইসলাম, দেশপ্রান্তের সম্পাদক এস এম জীবন, প্রতিদিনের ডাক পত্রিকার সম্পাদক মো. সোহাগ, দৈনিক বাংলাদেশের নির্বাহী সম্পাদক বাহাউদ্দিন তালুকদার, সিনিয়র সাংবাদিক কামরুল হাসান ভূঁইয়া সোহাগ, দৈনিক সংবাদ মোহনার সিনিয়র রিপোর্টার আলী মুবিন প্রমুখ।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক

এই বিভাগের আরও খবর