শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জুন, ২০২১ ০১:৪১

মাছ মনে করে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে কোপান হিফজুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

Google News

স্বপ্নে দেখেছিলেন ঘরে অনেক মাছ ঢুকেছে। আর বঁটি দা দিয়ে ওই মাছ টুকরা টুকরা করেন হিফজুর। কিন্তু স্বপ্নের সেই মাছ ছিল তার স্ত্রী ও দুই শিশু সন্তান। রিমান্ড শেষে গতকাল দুপুরে গোয়াইনঘাট আমল গ্রহণকারী আদালতের বিচারক আলমগীর হোসেনের কাছে এমন জবানবন্দি দিয়েছেন হিফজুর রহমান। হিফজুর গোয়াইনঘাট উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের বিন্নাকান্দি গ্রামের বাসিন্দা।

গত ১৬ জুন তার ঘর থেকে স্ত্রী আলেমা বেগম, ১০ বছরের ছেলে মিজানুর রহমান ও তিন বছরের মেয়ে আনিশার লাশ উদ্ধার করা হয়। তাদের শরীরে দায়ের কোপ ছিল। গলায়ও ছিল দায়ের আঘাত। ওইদিন সকালে আহতাবস্থায় হিফজুরকেও উদ্ধার করে পুলিশ। তার শরীরেও ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে হিফজুর বলেন, ১৫ জুন মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ঘুমানোর পর স্বপ্নে দেখেন ঘরের ভিতর অনেক মাছ ঢুকেছে। পরে তিনি স্বপ্নের মধ্যে সেই মাছ কেটে টুকরো টুকরো করেন। পরে হিতাহিত জ্ঞান ফেরার পর তিনি বুঝতে পারেন তিনি স্বপ্ন দেখে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে দা দিয়ে কেটে খুন করে ফেলেছেন। তার নিজের শরীরেও দা দিয়ে আঘাত করেন হিফজুর।  আদালতে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যার দায় স্বীকারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোয়াইনঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) দিলীপ কান্তি নাথ। জবানবন্দি রেকর্ডের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।