শিরোনাম
প্রকাশ : ৩১ অক্টোবর, ২০২০ ০৯:১৯
আপডেট : ৩১ অক্টোবর, ২০২০ ১৩:৩৩

বিজয়ে ইতিহাস গড়বেন ড. নীনা

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

বিজয়ে ইতিহাস গড়বেন ড. নীনা
ড. নীনা আহমেদের ফাইল ছবি (বামে)। কমিউনিটি সমাবেশে ড. নীনা আহমেদ (ডানে)।

মার্কিন রাজনীতিতে বাংলাদেশিদের উত্থানের ক্ষেত্রে অনন্য ইতিহাস রচনার পথে রয়েছেন ড. নীনা আহমেদ। পেনসিলভেনিয়া স্টেটের অডিটর জেনারেল পদে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হিসেবে তিনি লড়ছেন। ৩ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্টের ব্যালটে একইসঙ্গে ভোট হবে তার জন্যও। নির্বাচনের গতি-প্রকৃতির আলোকে সবাই মনে করছেন নীনাই জয়ী হবেন। স্টেটভিত্তিক কোনো আসনে এই প্রথম ড. নীনা জয়ী হলেই ইতিহাসের অংশ হবেন। 

তিনি সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার এশিয়ানবিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ফিলাডেলফিয়ার মতো বড় একটি সিটির ডেপুটি মেয়রের দায়িত্বও পালন করেছেন অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে। দীর্ঘ তিন দশকের অধিক সময় যাবত অভিবাসীদের অধিকার ও মর্যাদা নিয়ে কাজের পাশাপাশি সততা ও দক্ষতার সঙ্গে অর্পিত দায়িত্ব পালন করে আসা ড. নীনার পক্ষে প্রবাসীদের মধ্যেও ব্যাপক জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে। 

সর্বশেষ গত ২৬ অক্টোবর ফিলাডেলফিয়ায় আপারডারবিতে তথ্য-প্রযুক্তি জগতে চাকরি পাইয়ে দিতে ইতোমধ্যেই প্রশংসার অধিকারী ‘পিপল এন টেক’র মিলনায়তনে সর্বস্তরের প্রবাসীরা মিলিত হয়ে ড. নীনার নির্বাচনী তহবিলে আরও অর্থ দিয়েছেন। এ অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে সবার প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ড. নীনা বলেন, বিজয়ের ধারা সূচিত হয়েছে। তবে তা ধরে রাখতে ৩ নভেম্বর পর্যন্ত সবাইকে সোচ্চার থাকতে হবে। প্রিয়-পরিচিত প্রতিবেশীদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে ব্যালট যুদ্ধে অবতীর্ণ হবার জন্য। যুদ্ধ শুধু আমার জন্য নয়, প্রেসিডেন্ট পদেও যো বাইডেনের মতো একজন ভালো মানুষকে জয়ী করতে হবে। এটি সময়ের দাবি। 

ড. নীনা আহ্বান জানিয়েছেন প্রবাস প্রজন্মকেও মার্কিন রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত রাখতে।
 
এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নীনার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী ড. ইবরুল চৌধুরী। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটি অব পেন্সিলভেনিয়ার সভাপতি আলতামাস বাবুল এবং তাকে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করেন বাংলাদেশ সোসাইটি অব পেন্সিলভেনিয়ার সেক্রেটারি এবং মিলবোর্ন বরোর কাউন্সিলম্যান ও ডেমোক্রেটিক পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুল হাসান। 

অনুষ্ঠানের সার্বিক সমন্বয়ে ছিলেন আপারডারবি টাউনশিপের প্রথম বাংলাদেশি কাউন্সিলম্যান শেখ সিদ্দিক। মাহাম্মদ হারিছ কর্তৃক পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। নীনার নির্বাচনী তহবিলে অর্থ প্রদান করেন লেন্সডেল বাংলাদেশি কমিউনিটির পক্ষে মফিজুল ইসলাম, মোহাম্মদ আলী, বাংলাদেশ সোসাইটি অব পেন্সিলভেনিয়ার প্রেসিডেন্ট আলতামাস বাবুল, সেক্রেটারি নুরুল হাসান, বাংলাদেশ ট্যাক্সি সোসাইটি অব পেনসিলভেনিয়ার প্রেসিডেন্ট তোজাম্মেল হক, সেক্রেটারি মহিউদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পেন্সিলভেনিয়ার প্রেসিডেন্ট জায়েদ চৌধুরী, সেক্রেটারি ইসমাইল হোসেন ভূঁইয়া, পেনসিলভেনিয়া বিয়ানিবাজার সমিতির প্রেসিডেন্ট মাসুকুল ইসলাম খান, পেনসিলভেনিয়া হবিগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট’র প্রেসিডেন্ট লুৎফুর চৌধুরী , বাংলাদেশ এডুকেশন অ্যান্ড স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশন অব পেনসিলভেনিয়ার প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ স্মরণ, ট্রাইস্টার কাউন্টি আওয়ামী লীগের প্রেসিডেন্ট আবুল খায়ের, সেক্রেটারি তোজ্জামেল হক, কোম্পানিগঞ্জ সমিতির প্রেসিডেন্ট আব্দুল খালেক, পেন বাংলার প্রেসিডেন্ট ইফতেখার হোসেইন, পেনসিলভেনিয়া স্টেট বিএনপির প্রেসিডেন্ট রুহুল আমীন ভূঁইয়া, মিলবোর্ন, আপারডারবি কমিউনিটির প্রবাসী বাংলাদেশিদের পক্ষে উত্তোলিত অর্থ ড. নীনার হাতে তুলে দেন আপারডারবি টাউনশিপের কাউন্সিলম্যান শেখ সিদ্দিক, মিলবোর্ন বরোর কাউন্সিলম্যান নুরুল হাসান। 

ড. নীনা জয়ী হলে পেনসিলভেনিয়া স্টেট প্রশাসনে এই প্রথম একজন নারী অধিষ্ঠিত হবেন এবং এই প্রথম একজন অশ্বেতাঙ্গ নারীর এই স্টেটের তহবিল ব্যয়ের স্বচ্ছতা-জবাবদিহি নিশ্চিতে নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা পাবেন। 

প্রসঙ্গত, ডেমোক্রেটিক পার্টির মনোনয়নের জন্য ৫ জনের সঙ্গে লড়তে হয়েছে প্রার্থী বাছাইয়ের নির্বাচনে। চূড়ান্ত নির্বাচনেও নীনার সঙ্গে লড়ছেন ৩ জন। তারা হলেন রিপাবলিকান পার্টির টিমোথি ডিফোর, গ্রিন পার্টির অলিভিয়া ফাইসন এবং লিবারটেরিয়ান পার্টির জেনিফার মুর। সর্বশেষ জরিপেও ড. নীনা বিজয়ী হবেন বলে জানা গেছে। 

  বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর