শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ মে, ২০২১ ১১:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

ক্ষমা না চাইলে যুক্তরাষ্ট্রে আব্দুস সালামকে বয়কটের হুমকি

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

ক্ষমা না চাইলে যুক্তরাষ্ট্রে আব্দুস সালামকে বয়কটের হুমকি

সাংগঠনিক শৃঙ্খলা লঙ্ঘনকারিদের বিএনপি থেকে বহিষ্কার এবং পদ-পদবি কেড়ে নেয়ার হুমকি দেওয়ায় ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালামের কঠোর সমালোচনা করেছেন। গত ২ মে মন্তব্য প্রত্যাহার ও প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনার দাবি জানিয়েছেন। ক্ষমা না চাইলে আব্দুস সালামকে যুক্তরাষ্ট্রে বয়কটের হুমকি দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতা-কর্মীগণের সমন্বয়ে ‘স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন’ কমিটির উদ্যোগে ১ মে শনিবার নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন কমিটির সদস্য-সচিব আব্দুস সালাম। সেই মাহফিলে বক্তব্যের সময় আব্দুস সালাম যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম এবং মূলধারার রাজনীতিক আক্তার হোসেন বাদলের নামোল্লেখ করেন এবং তাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার ও সুবর্ণজয়ন্তি উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহবায়কের পদ কেড়ে নেয়ার হুমকি দেন।

মাহফিলে উপস্থিত যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা এবং সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটির যুগ্ম-সদস্য-সচিব এম এ বাতিণের সাথেও অসৌজন্য আচরণ করেছেন আব্দুস সালাম। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত রবিবারের এই তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ সমাবেশ হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন আকতার হোসেন বাদল।

যুক্তরাষ্ট্র জাতীয়তাবাদী ফোরামের নেতা রাফেল তালুকদারের সঞ্চালনায় এ প্রতিবাদ সমাবেশে নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন বিএনপি নেতা গিয়াসউদ্দিন, কাজী আজম, জাকির হাওলাদার, ফিরোজ আলম, রফিকুল মাওলা, মাহমুদ হাসান, জাতীয়তাবাদী ফোরামের নেতা অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, এ কে এম রফিকুল ইসলাম ডালিম, সারোয়ার খান বাবু, বিএনপি নেতা শাওন বাবলা, গোলাম এন হায়দার মুকুট, আশরাফুজ্জামান আশরাফ, আব্দুল মালিক জাকির, মাসুদ করিম মিলন, সাইফুল ইসলাম, শওকত চান্দা, রহমত আলী প্রমুখ।

এ সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অবিলম্বে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদনের দাবি উঠেছে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে কমিটি ভেঙে দেয়ার পর এখনো কমিটির অনুমোদন কেন্দ্র থেকে না আসায় নেতা-কর্মীরা চরম হতাশায় নিমজ্জিত হয়েছেন। দলের নেতা-কর্মীদের মাঝে বিভক্তিও দেখা গেছে। এ অবস্থায় ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটি’তেও ত্যাগী নেতা-কর্মীর অনেকেই ঠাঁই না পাওয়ায় ক্ষোভের মাত্রা বেড়েছে।

‘এই ক্ষোভ প্রশমনে শান্তিপূর্ণ কৌশল অবলম্বনের পরিবর্তে স্বৈরাচারি কায়দায় হুমকি-ধমকি প্রদান করা হচ্ছে’ বলে অভিযোগ করেন বিএনপি নেতা অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম।

‘এভাবেই যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদী চেতনায় উজ্জীবিতদের সাংগঠনিকভাবে একেবারেই নাজুক অবস্থায় নিপতিত করার ষড়যন্ত্র চালানো হচ্ছে’ বলে অভিযোগ করেন রাফেল তালুকদার।

পরে রাফেল তালুকদার বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারম্যান প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ মে কর্মসূচি পালিত হবে। আকতার হোসেন বাদলকে প্রধান উপদেষ্টা করে সেই কর্মসূচির জন্যে একটি সমম্বয় কমিটি শীঘ্রই ঘোষণা করা হবে।  

 

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

এই বিভাগের আরও খবর