Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:১৩

রোনালদোর হ্যাটট্রিকে রিয়ালের ডার্বি জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

রোনালদোর হ্যাটট্রিকে রিয়ালের ডার্বি জয়
রোনালদো ও বেলে ক্যামেরায় এভাবেই বন্দী হলেন —ইন্টারনেট

আবারও হ্যাটট্রিক। লা লিগায় শেষ তিন ম্যাচে এটি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। সব মিলে ক্যারিয়ার ৩৯তম হ্যাটট্রিক। রোনালদোর হ্যাটট্রিকেই মাদ্রিদ ডার্বিতে অ্যাথলেটিকোকে উড়িয়ে দিয়েছে রিয়াল। ৩-০ গোলে শহর প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারিয়ে লিগে শীর্ষে অবস্থান আরও দৃঢ় করেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

অন্যদিকে পয়েন্ট হারিয়েছে বার্সেলোনা। মেসি ও সুয়ারেজ না থাকায় ৯ জনের মালাগার সঙ্গে ড্র করেছে তারা। কাতালানদের সঙ্গে এখন রিয়ালের পয়েন্টের ব্যবধানে বেড়ে দাঁড়ালো চার। 

অ্যাথলেটিকোর বিরুদ্ধে প্রথম গোলটিতে রয়েছে সৌভাগ্যের ছোঁয়া। রোনালদোর ফ্রি কিক ডিফেন্ডারদের গায়ে লেগে গতি পরিবর্তন করে অ্যাথলেটিকোর জালে ঢুকে যায়। এতে অবশ্য গোলরক্ষকের করার কিছুই ছিল না। প্রথমার্ধে এই এক গোলেই এগিয়ে ছিল রিয়াল। খেলার ২১ মিনিটে পিছিয়ে পড়লেও দ্বিতীয়ার্ধে রিয়ালের গোলমুখে একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে অ্যাথলেটিকো। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত গোলে দেখা পায়নি তারা। উল্টো ৭১ মিনিটে আবারও তারা পিছিয়ে পড়ে। পেনাল্টি থেকে গোল করেন রোনালদো। ৭৭ মিনিটে অ্যাথলেটিকোর কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেয় রিয়াল। গ্যারেথ বেলের ক্রস গোল করে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন।

লা লিগায় এটি অ্যাথলেটিকোর তৃতীয় পরাজয়। তবে এই হারে সব কিছু শেষ হয়ে গেছে এমনটা মনে করছেন না অ্যাথলেটিকোর আর্জেন্টাইন কোচ দিয়েগো সিমিওনে। তিনি এখনো আশাবাদী। এই পরাজয়ে রিয়ালের থেকে ৯ পয়েন্ট পিছিয়ে টেবিলের পঞ্চম স্থানে তারা। ম্যাচ শেষে সিমিওনে বলেন, ‘প্রথমার্ধে আমরা ভালো খেলতে পারিনি। ওরা আমাদের চেয়েও ভালো খেলেছে। সে কারণেই এগিয়েও যায়। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আমরা দারুণ খেলেছি। গোলের সুযোগও তৈরি করেছি। কিন্তু গোল করতে পারিনি। তবে রিয়াল পেনাল্টি পাওয়ার পরই আমরা ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছি।’

ডার্বিতে জিতে দারুণ খুশি রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান। তিনি বলেন, ‘অ্যাথলেটিকোর বিরুদ্ধে ছেলেরা দারুণ খেলেছে। শুরু থেকেই আমরা তাদের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে পেরেছি। এটা সত্যিই অসাধারণ এক জয়। কেননা অ্যাথলেটিকোর মাঠে খুব কম দলই ৩-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পেরেছে।’

এদিকে মালাগার বিরুদ্ধে অসুস্থতার জন্য খেলতে পারেননি লিওনেল মেসি। আর নিষেধাজ্ঞার কারণে খেলতে পারেননি সুয়ারেজ। এ কারণেই বার্সার জয়ও আসেনি। ম্যাচ শেষে অধিনায়ক সার্জিও বাস্কোয়েট বলেন, ‘মেসি ও সুয়ারেজ দুজনই আমাদের মূল ভরসা। আমাদের অধিকাংশ জয়ে তারাই রেখেছেন প্রধান ভূমিকা।


আপনার মন্তব্য