শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৫:৩৯
আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৫:৫২

দেশে ফ্ল্যাগশিপ ফিচার সম্পন্ন রিয়েলমি সি সেভেন্টিন লঞ্চ হলো

অনলাইন ডেস্ক

দেশে ফ্ল্যাগশিপ ফিচার সম্পন্ন রিয়েলমি সি সেভেন্টিন লঞ্চ হলো
স্টাইলিশ ডিজাইন, সর্বাধুনিক ফিচারে আকর্ষণীয় মূল্যে সি সিরিজের একের পর এক ফোন এনে রিয়েলমি স্মার্টফোন দেশের তরুণদের মন ইতোমধ্যে জয় করে নিয়েছে। এবার সি সিরিজকে এন্ট্রি-লেভেল থেকে মিড-লেভেলে উন্নীত করলো টেক-ট্রেন্ডসেটার এই ব্র্যান্ড। 
 
৯০ হার্টজের আল্ট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, মোস্ট পাওয়ারফুল ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের পাশাপাশি ফ্ল্যাগশিপ সব ফিচার নিয়ে মাত্র ১৫,৯৯০ টাকায় বাজারে এসেছে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন। মিড লেভেল প্রিমিয়াম স্মার্টফোন হিসেবে এই প্রাইজ পয়েন্টের ফোনগুলোর মাঝে রাজত্ব করবে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন।
 
৯০ হার্টজ আলট্রা স্মুথ ডিসপ্লে
 
বাজারের বেশিরভাগ স্মার্টফোনের রিফ্রেশ রেট ৬০ হার্টজ এজন্যে অনেকক্ষণ ধরে সোশ্যাল নিউজ ফিড স্ক্রল করলে, মুভি দেখলে কিংবা গেম খেললে স্ক্রিনটা ফ্যাকাশে মনে হয়। রিয়েলমি সি সেভেন্টিন-এ ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের কারণে গেমিং, সোশ্যাল মিডিয়া স্ক্রলিং, ভিডিও, মুভি দেখা অনেক স্মুথ অ্যান্ড রিফ্রেশিং হবে। সি সেভেন্টিন প্রচলিত ৬০ হার্টজের ডিসপ্লের তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি রিফ্রেশ রেট প্রদান করে প্রতিটি সোয়াইপে দিবে চমৎকার স্মুথনেস। ডিসপ্লের উজ্জ্বলতা ৬০০ নিট পর্যন্ত হওয়ায় বাইরের প্রচণ্ড আলোতেও সহজেই ফোন ব্যবহার করা যাবে। 
 
রিয়েলমি সি সেভেন্টিন-এ ৬.৫ইঞ্চি ডিসপ্লের স্ক্রিন-টু-বডি অনুপাত ৯০ শতাংশ। রিয়েলমি সি সিরিজের স্মার্টফোনে এই প্রথম ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লের সংযোজন হলো, যা স্ক্রিন কালার টেম্পারেচার ফাংশন থাকায় ব্যবহারকারীরা নিজদের পছন্দমতো স্ক্রিনের কালার টেম্পারেচার বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এর ফলে স্ক্রিনের ব্লু লাইটের পরিমাণ কমে এসে চোখের ওপর চাপ কমাবে।
 
মোস্ট পাওয়ারফুল ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ
 
এই প্রাইজ সেগমেন্টে এই প্রথম ৬ জিবি র্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ নিয়ে এসেছে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন। স্মার্টফোনটির পারফেক্ট ইউজার এক্সিপেরিয়েন্সের জন্য ৬ জিবি র‍্যাম শক্তিশালী পারফরমেন্স নিশ্চিত করবে। পাশাপাশি, ১২৮ গিগাবাইট ইউএফএস ২.১ ইন্টারনাল স্টোরেজের সমন্বয়ে ব্যবহারকারীদের একটি স্মুথ স্মার্টফোন এক্সপেরিয়েন্স দিবে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন। এর পাশাপাশি, রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে ব্যবহার করা হয়েছে বিশ্বের প্রথম শক্তিশালী স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর। ১১ ন্যানোটারের এ শক্তিশালী প্রসেসরের সাথে ক্রায়ো ২৪০ সিপিইউ এবং অ্যাড্রেনো ৬১০ জিপিইউ এর সাথে সর্বোচ্চ ১.৮ গিগাহার্টজ পর্যন্ত গতিতে কাজ করতে পারে। 
 
৩৪ দিনের স্ট্যান্ডবাই সাপোর্ট সহ ৫,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি
 
নন-স্টপ স্মার্টফোন ব্যবহারের আনন্দের জন্যে রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে আছে ৫,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের বিশাল ব্যাটারি, যা স্ট্যান্ডবাই মোডে ৩৪ দিন পর্যন্ত চলবে। এতে আছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জ, যা মাত্র ৩০ মিনিটের এর বিশাল ব্যাটারির ৩৩ শতাংশ চার্জ করতে পারে। অল্প ব্যবহৃত অ্যাপ্লিকেশনগুলো যেন ব্যাকগ্রাউন্ডে থেকে পাওয়ার কনজাম্পশন না করে, সেদিকে লক্ষ্য রাখবে অ্যাপ কুইক ফ্রিজ ফিচার। এছাড়াও স্ক্রিন ব্যাটারি অপটিমাইজেশন স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডিসপ্লে ইফেক্ট কমিয়ে ব্যাটারির ওপর চাপ কমাবে। সুপার পাওয়ার সেভিং মোডে মাত্র ৫% শতাংশ ব্যাটারি ব্যবহারে প্রায় ১.২ ঘণ্টা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যাবে, সাড়ে চার ঘণ্টারও বেশি অনলাইনে গান শোনা যাবে।
 
সুপার নাইটস্কেপ মোড সঙ্গে এআই ক্যামেরা
 
অসাধারণ সব ছবি তোলার জন্যে রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে আছে আল্ট্রা-ক্লিয়ার কোয়াড ক্যামেরা সেট-আপ। ১৩ মেগাপিক্সেলের মূল ক্যামেরা, ৮ মেগাপিক্সেলের ১১৯ ডিগ্রির ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা, একটি ম্যাক্রো লেন্স এবং একটি সাদা-কালো পোর্ট্রেট লেন্সের সমন্বয়ে এই সেট-আপে প্রতি মুহূর্তের চমৎকার ছবি তোলা যাবে। ১৩ মেগাপিক্সেলের সাথে এফ/২.২ এর বড় অ্যাপারচার অল্প আলোতেও পরিষ্কার, উজ্জ্বল ছবির তুলতে সাহায্য করবে। ৪এক্স জুম ব্যবহারে দূরেরও পরিষ্কার ছবি তোলা যাবে।
 
৮ মেগাপিক্সেলের ১১৯ ডিগ্রি ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্সে প্রাকৃতিক দৃশ্য, স্থাপত্য, এবং গ্রুপ ছবি তোলায় মিলবে স্বাচ্ছন্দ্য। আল্ট্রা-ম্যাক্রো লেন্সে ক্ষুদ্র বিষয়বস্তুর মাত্র ৪ সেন্টিমিটারের কাছে গিয়ে ম্যাক্রো জগতের সৌন্দর্য ধারণ করা যাবে। পোর্ট্রেট লেন্সের উন্নততর নতুন কালার ফিল্টারে আরও বেশি লাইট ধারণ করে পোর্ট্রেটে দিবে চমৎকার ডিটেইলস আর অসাধারণ টেক্সচার। 
 
৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ক্লিয়ার ইন ডিসপ্লে ফ্রন্ট ক্যামেরায় বড় অ্যাপারচার, এআই বিউটিফিকেশন, বোকেহ ইফেক্টে চকচকে সেলফি চাহিদা উপহার দেবে। সেলফি ক্যামেরায় এইচডিআর এবং ইআইএস স্টেবিলাইজেশনও আছে। 
 
রাতে সুন্দর কোন দৃশ্যের উজ্জ্বল ছবি তুলতে সাহায্য করবে সি সেভেন্টিনের সুপার নাইটস্কেপ মোড। এছাড়াও ক্যামেরায় আছে ৩০ ফ্রেমে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ডিং, টাইম-ল্যাপ্স এবং প্যানোরামা মোড।
ট্রেন্ডি লাইফস্টাইলের জন্যে চোখ ধাঁধানো ডিজাইন
 
ফোন ব্যবহারে আরও প্রিমিয়াম অনুভূতির জন্যে রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে স্মুথ ফিনিশিং নিশ্চিত করা হয়েছে। মাত্র ১৮৮ গ্রামের ফোনটির পুরুত্ত্ব মাত্র ৮.৫ মিলিমিটার। ফোনের পেছনের অংশে ক্যামেরার পাশে থেকে শুরু হয়ে একটি চমৎকার আলোর বিচ্ছুরণ হয়, যা ব্যাক কভারে এক দৃষ্টিনন্দন ডিজাইন প্রদান করে। 
লেক গ্রিন ও নেভি ব্লু – এ দুটি নান্দনিক রঙে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন। পরিষ্কার হ্রদের প্রশান্তি ও গভীর সমুদ্রের রহস্যময় অনুভূতির মিশেলে ফোন দুটি ডিজাইন করা হয়েছে। 
 
সি সিরিজের ক্রমাগত উন্নতির কারণে সি সিরিজের গ্রাহক সংখ্যা ১.৩২ কোটি ছাড়িয়েছে। সি সেভেন্টিনে আরও উন্নত প্রযুক্তি ও সর্বাধুনিক সব ফিচার এনে মিড-লেভেলে আপগ্রেড করা হয়েছে, যা তরুণদের কাজকে আরও সহজ করার পাশাপাশি বিনোদনকে আরও বাড়িয়ে তুলবে। আল্ট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, পাওয়ারফুল র‍্যাম অ্যান্ড রোম, বিশাল ব্যাটারি, দৃষ্টিনন্দন ডিজাইন, এবং বিস্ময়কর পারফরম্যান্সের রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে ১৫,৯৯০  টাকা মূল্যে নিজস্ব প্রাইজ রেঞ্জে তরুণদের সেরা পছন্দে  পরিণত হবে। 
 
বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর