Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৫ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ অক্টোবর, ২০১৫ ০১:১২

নিউট্রিনোর রহস্যভেদে পদার্থে নোবেল জয়

নিউট্রিনোর রহস্যভেদে পদার্থে নোবেল জয়

এ বছর পদার্থ বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন দুই দেশের দুই বিজ্ঞানী। এরা হলেনÑ জাপানের তাকাকি কাজিতা ও কানাডার আর্থার ম্যাকডোনাল্ড। তারা মৌলিক ও রহস্যপূর্ণ কণা নিউট্রিনো নিয়ে গবেষণা করেন। নিউট্রিনো দোলন এবং মহাবিশ্বে এদের ভরের অস্তিত্ব নিয়ে কাজ করছিলেন তারা। এই দুই বিজ্ঞানী নিউট্রিনো কণা নিয়ে গবেষণা করে একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে উপনীত হন। আর তা হলো নিউট্রিনোর ভর আছে এবং এরা এদের রূপান্তরের পরিক্রমায় বিভিন্ন পরিচয়ে বিদ্যমান থাকতে পারে। তাদের এই গবেষণা মহাবিশ্বকে জানার এবং বোঝার ক্ষেত্রে এক নতুন দিগন্তের দ্বার উšে§াচিত করবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।

তাকাকি কাজিতার গবেষণায় উঠে এসেছে নিউট্রিনোর উৎপত্তিগতভাবে পরিবেশ দুটো ভিন্ন পরিচয়ে বিদ্যমান। আর অপর বিজ্ঞানী অর্থাৎ আর্থার বি. ম্যাকডোনাল্ড প্রমাণ করেন সূর্য থেকে নিউট্রিনো পৃথিবীতে আসার সময় তা বিলীন হয়ে যায় না বরং এরা বিভিন্ন পরিচয়ে থাকে। এ ছাড়াও তারা প্রমাণ করেন এর ভর রয়েছে, তবে তা খুবই কম। নিউট্রিনোর ভর থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এ দুই বিজ্ঞানী। পদার্থে নোবেল পুরস্কারের জন্য তাদের নাম ঘোষণা করে দ্য রয়েল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস। একাডেমির পক্ষ থেকে বলা হয়, এ উদ্ভাবনের সুবাদে মহাবিশ্ব সম্পর্কে আমাদের ধারণা বদলে যাবে। নিউট্রিনো খুবই হালকা নিরপেক্ষ একটি কণা; যা পারমাণবিক প্রতিক্রিয়ার ফলে তৈরি। এ কণার অস্তিত্ব সম্পর্কে প্রথম আলোচনা হয় ১৯৩০ সালে। তবে এর অস্তিত্ব সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায় ১৯৫০ সালে, যখন পারমাণবিক চুলি­গুলো নানা ধরনের কণা উৎপাদন শুরু করে। এতদিন ধারণা করা হতো, নিউট্রিনো ভরবিহীন একটি কণা। কিন্তু বিজ্ঞানী তাকাকি কাজিতা ও আর্থার ম্যাকডোনাল্ড আলাদা গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়ে প্রমাণ করেন যে নিউট্রিনোর ভর রয়েছে। তাদের সাফল্য সম্পর্কে নোবেল কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, কণা সম্পর্কিত পদার্থ বিজ্ঞান ও মহাবিশ্ব সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দিতে তাকাকি কাজিতা ও আর্থার ম্যাকডোনাল্ডের গবেষণায় বড় ধরনের সাফল্য এসেছে। নোবেল বিজয়ী এই দুই বিজ্ঞানী পুরস্কার হিসাবে পাবেন ৮০ লাখ সুইডিশ ক্রোনার বা সাড়ে ৯ লাখ ডলার। বিজ্ঞানী তাকাকি কাজিতা জাপানের টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। আর ম্যাকডোনাল্ড অধ্যাপনা করেন কানাডার অন্টারিওর কুইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ে।


আপনার মন্তব্য