১৯ ডিসেম্বর, ২০২৩ ২০:৩৯

ফুলপুরে সরিষা আবাদ বৃদ্ধি পেয়েছে তিন গুণ

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

ফুলপুরে সরিষা আবাদ বৃদ্ধি পেয়েছে তিন গুণ

ময়মনসিংহের ফুলপুরে সরিষা আবাদ তিন গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। সরিষা চাষ বৃদ্ধির পেছনে প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ সরবরাহ ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বিভিন্ন প্রকল্প কৃষকদের আগ্রহী করে তুলে বলে জানিয়েছে উপজেলা কৃষি বিভাগ। 

উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, ২০২১-২২ অর্থবছরে ফুলপুরে ৩৪০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ করা হয়েছিল। এরপর ২০২২-২৩ অর্থবছরে তা বৃদ্ধি পেয়ে ৫৮০ হেক্টরে উন্নীত হয়। এ বছর তা ৩ গুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়ে ১৮২০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ করা হয়েছে। এ সাফল্যের পেছনে প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচির মাধ্যমে বিনামূল্যে বীজ সরবরাহ ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বিভিন্ন প্রকল্পের  প্রদর্শনীর পাশাপাশি প্রান্তিক কৃষকদের আন্তরিক আগ্রহ ছিল ঈর্ষণীয় পর্যায়ে বলে জানান কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার কামরুল হাসান কামু। 

কামু আরও জানান, তেলফসল উৎপাদনে সরকার ৩ বছর মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের মধ্যে দেশের ভোজ্য তেলের চাহিদার ৪০ শতাংশ স্থানীয় উৎপাদনের মাধ্যমে মেটানো যাবে। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ করছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। প্রতি বছর ভোজ্যতেলের চাহিদা পূরণের জন্য প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা বিদেশে চলে যাচ্ছে। এ টাকা যাতে না যায় এজন্য  বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় এবং শস্যের নিবিড়তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করছে কৃষি বিভাগ। এতে কৃষকদের মাঝে নতুন উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। 

তিনি আরও বলেন, ময়মনসিংহ জেলার ফুলপুর একটি ধানচাষ নির্ভর কৃষি এলাকা। এতে শস্যবিন্যাসে নতুন করে এবার মাত্রা দিয়েছে সরিষা ফসল। মূলত রোপা আমন পতিত বোরো এই শস্যবিন্যাসে সুপরিকল্পিতভাবে যুক্ত করা হয়েছে সরিষা। এজন্য উপজেলা কৃষি অফিস আমন মৌসুম শুরুর পূর্বে কৃষকদেরকে স্বল্পমেয়াদী, আধুনিক জাতসমূহ চাষের বিষয়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষক সমাবেশের মাধ্যমে মতবিনিময় সভা করেছে। ফলে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ এলাকায় সরিষা চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি অফিসার মো. ফারুক আহাম্মেদ বলেন, বিগত কয়েক মাস ধরে প্রান্তিক কৃষকের সাথে সরিষা চাষের বিষয়ে আমরা অনেক উঠান বৈঠক ও কৃষক সমাবেশ করেছি। ফলে এ সাফল্য অর্জন সম্ভব হয়েছে এবং এ অঞ্চলের কৃষক সরিষা তেলের উপকারিতা উপলব্ধি করতে পেরেছে। 

এ বিষয়ে মঙ্গলবার সকালে ফুলপুর উপজেলার ডেফুলিয়া বাঁশতলা এলাকায় সরিষা চাষের সার্বিক অগ্রগতি পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম. সাজ্জাদুল হাসান। 

তিনি বলেন, সরকার আমদানি ব্যয় কমানোর জন্য স্থানীয়ভাবে সরিষা আবাদ বৃদ্ধির মাধ্যমে ভোজ্যতেলের চাহিদা পূরণের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে। এ বছর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে ও তত্ত্বাবধানে সরিষা চাষ করা হয়েছে; যা যে কোনো বছরের চেয়ে ৩ গুণেরও বেশি। এ অর্জন আমাদের সকলের। এছাড়াও সরিষা থেকে মধু আহরণের জন্য কৃষকদের মাঝে ৫টি মৌ বাক্স বিতরণ করা হয়েছে বলেও জানান ইউএনও। 

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত

সর্বশেষ খবর