শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ অক্টোবর, ২০২০ ০৯:২৪
আপডেট : ২১ অক্টোবর, ২০২০ ১১:৫৩

রায়হানের বাড়িতে পুলিশ সদর দপ্তরের তদন্ত দল

সিলেট ব্যুরো

রায়হানের বাড়িতে পুলিশ সদর দপ্তরের তদন্ত দল

সিলেট নগরীর বন্দরবাজার ফাঁড়িতে ‘পুলিশের নির্যাতনে’ নিহত রায়হান আহমদের (৩৪) বাড়ি পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সদর দপ্তরের তদন্ত কমিটির সদস্যরা।

মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে তারা নগরীর আখালিয়া নেহারিপাড়াস্থ নিহত রায়হানের বাড়িতে যান।

জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (এআইজি-ক্রাইম অ্যানালাইসিস বিভিাগ) মুহাম্মদ আয়ুবের নেতৃত্বে রায়হানের বাড়িতে যান পুলিশ সদর দপ্তর গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা। এ সময় তারা রায়হানের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন।

পরে তদন্ত কমিটির প্রধান এআইজি মুহাম্মদ আয়ুব সাংবাদিকদের বলেন, এসআই আকবরের পালিয়ে যাওয়ার সাথে আর কেউ সংশ্লিষ্ট আছেন কি-না সে বিষয়টি তদন্ত করার জন্যই আমাদের সিলেট আসা। এই তদন্তের অংশ হিসেবেই আমরা রায়হানের বাড়িতে এসে তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছি।

উল্লেখ্য, গত ১১ অক্টোবর রাতে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন রায়হান আহমদ। পরে রবিবার সকালে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। রায়হান সিলেট নগরীর আখালিয়ার নেহারিপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি নগরীর রিকাবিবাজার স্টেডিয়াম মার্কেটে এক চিকিৎসকের চেম্বারে কাজ করতেন।

এই ঘটনায় সোমবার (১২ অক্টোবর) রাত আড়াইটার সময় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে সিলেট কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন রায়হানের স্ত্রী।

রায়হান নিহতের ঘটনায় ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া, কনস্টেবল হারুনুর রশিদ, তৌহিদ মিয়া ও টিটুচন্দ্র দাসকে সাময়িক বরখাস্ত এবং এএসআই আশেক এলাহী, এএসআই কুতুব আলী ও কনস্টেবল সজিব হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়।

এদিকে, গত ১৩ অক্টোবর থেকে প্রধান অভিযুক্ত এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া পলাতক রয়েছেন। অপরদিকে এ মামলায় গত মঙ্গলবার পুলিশ কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই। 

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য