শিরোনাম
প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর, ২০২০ ১৯:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি অব্যাহত, টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম:

স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি অব্যাহত, টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ

সারা দেশের স্বাস্থ্য সহকারীদের চার দফা দাবিতে কর্মবিরতি অব্যাহত আছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে স্বাস্থ্য সহকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাসোসিয়েশন এ কর্মসূচি শুরু করে। সরকারের সঙ্গে আন্দোলকারীদের আলোচনা ফলপ্রসূ না হওয়ায় কর্মবিরতি অব্যাহত আছে। আন্দোলনের কারণে গত চারদিন ধরে ধরে বন্ধ আছে ইপিআই কর্মসূচি। একই সঙ্গে সংশয়ে আছে আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া হাম-রুবেলা টিকাদান কর্মসূচি। 

টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন সেবা প্রত্যাশী টিকা গ্রহণকারী শিশু, কিশোর, গর্ভবতী মহিলা ও ধনুষ্টংকার প্রতিরোধী টিকা গ্রহণকারীরা। টিকা কেন্দ্র থেকে ফিরে যেত হচ্ছে সেবা প্রত্যাশীদের।

বর্তমানে চট্টগ্রামে স্বাস্থ্য সহকারী পদে কর্মরত আছেন ৬৭৫ জন, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ২৮৪ জন ও স্বাস্থ্য পরিদর্শক ১৫৩ জন।   

বাংলাদেশ হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সভাপতি হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী বলেন, ‘১৯৯৮ সালেই প্রধানমন্ত্রী আমাদের দাবির প্রতি সম্মতি দিয়েছিলেন। কিন্তু নানা কারণে তা বাস্তবায়ন হয়নি। তবুও আমরা এতদিন ধরে কাজ করে আসছি। বর্তমানে চট্টগ্রামে প্রতি ইউনিয়নে ২৪টি কেন্দ্র আছে, ১৪ উপজেলায় কেন্দ্র আছে প্রায় এক হাজার ৬৮০টি। প্রতিটি কেন্দ্রে দৈনিক ৭০-৮০ জন শিশু, কিশোর-কিশোরী, গর্ভকালীন টিকা, ধনুষ্টংকার টিকা ও স্বাস্থ্য শিক্ষা গ্রহণ করতে নানা বয়সী প্রায় ১০০ সেবা গ্রহণ করে থাকে। এত কাজ করার পরও আমাদের পদোন্নতির বিষয়টা আটকে আছে।’  

সংগঠনের দাবি বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য সচিব ওয়াসিম উদ্দিন রানা বলেন, ‘আমাদের কর্মবিরতি অব্যাহত আছে। তবে অধিদপ্তরের সঙ্গে আমাদের আলোচনা চলছে। মঙ্গলবারও বৈঠক আছে। আমরা আশা করি, বৈঠকের  মাধ্যমে আলোচনা ফলপ্রসূ হবে এবং আমাদের যৌক্তিক দাবি পূরণ হবে।’

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি অব্যাহত আছে। আন্দোলনের কারণে ইপিআই কর্মসূচি বন্ধ আছে। আশা করি, আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমধান হবে।’  

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৭:০৮
প্রিন্ট করুন printer

চসিক নির্বাচন

‘আওয়ামী লীগ মনে করে জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

‘আওয়ামী লীগ মনে করে জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস’
ফাইল ছবি

‘আওয়ামী লীগ মনে করে জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস, বন্দুকের নল নয় জানিয়ে চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেছেন, সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপির চক্রান্ত জনগণ ভুল করে দেবেন। আমরা জনগণের ক্ষমতায় বিশ্বাস করি। আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটেই বারবার ক্ষমতায় এসেছে, বন্দুকের নল বা মধ্যরাতের ভোটে আসেনি।

তিনি বলেন, চসিক নির্বাচনেও আমরা মনে করি, ভোটাররা ভোট দিলে জিতব, না হলে জিতব না। কিন্তু আমরা একটি অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। তবে বীর চট্টলার মানুষ কোনো কাপুরুষ নয়, একজন বীরকে ভোট দেবেন। সেই বীরের নাম রেজাউল করিম চৌধুরী। 

সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর সমর্থনে সাংবাদিকদের সঙ্গে সর্বশেষ নির্বাচনী বিষিয়ে মতবিনিময় সভায় দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি একটা ষড়যন্ত্রের পার্টি। তারা ঘুম থেকে উঠেই ষড়যন্ত্র দেখে। তাদের চোখ আলো দেখে না, জনগণ দেখে না। দেশের অন্যান্য জায়গায় যেসব নির্বাচন হয়েছে, তা বিভিন্ন প্রতিকায় ভোটার উপস্থিতি ভালো ছিল, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে উল্লেখ করেছে। চট্টগ্রামেও নির্বাচনের খুব সুন্দর পরিবেশ আছে, জনগণ ভোট দেওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছে। বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাতের জন্য নিরাপত্তা পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। আওয়ামী লীগের প্রার্থীর জন্য সাধারণ জনগণ রয়েছে। এ জন্য আমাদের প্রার্থীর কোনো নিরাপত্তার দরকার নেই। আমাদের প্রার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন ভোটাররা।

আওয়ামী লীগের আরেকজন সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেন, চট্টগ্রামের প্রতিটি ওয়ার্ডেই মিছিল হয়েছে। মতবিনিময় সভায় আমাদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও সংসদ সদস্য হওয়ায় আচরণবিধির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি আসেননি।

সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহজাদা মহিউদ্দিন ও সদস্য আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদসহ সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদদের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

 

 

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:০৬
প্রিন্ট করুন printer

গণগ্রেফতারের অভিযোগ বিএনপির

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

গণগ্রেফতারের অভিযোগ বিএনপির

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনকে সামনে রেখে গণগ্রেফতারের অভিযোগ করেছে বিএনপি। তাদের দাবি, রবিবার রাত ৯টা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডের কমপক্ষে ৩০ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই সাথে বিভিন্ন নেতার বাসা বাড়িতে তল্লাশির নামে অভিযান চালানো হচ্ছে।

মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনের মিডিয়া সেলের সদস্য সচিব ইদ্রিস আলী বলেন, ‘নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গণগ্রেফতার করছে পুলিশ। রবিবার রাত ৯টা পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডে কমপক্ষে ৩০ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া সিনিয়র নেতাদের বাসায় তল্লাশির নামে অভিযানও চালানো হচ্ছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে নির্বাচনে এজেন্টও দিতে পারবে না বিএনপি। তাই গণগ্রেফতার বন্ধের দাবি করছি সরকারের কাছে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি সন্ত্রাসী জড়ো করছে: এস এম কামাল

অনলাইন ডেস্ক

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি সন্ত্রাসী জড়ো করছে: এস এম কামাল

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনে বিশ্বাস করে। ক্ষমতা পরিবর্তনের পথ হচ্ছে নির্বাচন। আমরা জনগণের রায়কে মেনে নিতে চাই। কিন্তু পরাজয় নিশ্চিত জেনে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য, নির্বাচনে মানুষের মাঝে ভীতি সৃষ্টি করার জন্য বিএনপি জামায়াত, শিবির ও বিএনপির সন্ত্রাসীদের জড়ো করছে। প্রশাসনকে আহ্বান জানাবো, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।  

রবিবার রাতে নগরের বহদ্দারহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরীর প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে এমন অভিযোগ করেন তিনি।

এস এম কামাল হোসেন বলেন, বিএনপির সাংগঠনিক কোনো ভিত্তি নেই। তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন। ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত জনগণ তাদের ইতিহাস ভুলেনি। অত্যাচার, নির্যাতন, গুম, খুন, ধর্ষণ, লুটপাটের ইতিহাস ভুলেনি। তাদের সময়ে দেশ জঙ্গিবাদের দেশে পরিণত হয়েছিল। দুর্নীতিবাজদের দেশে পরিণত হয়েছিল।

ব্রিফিংয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ সালাম, মহানগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমানসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৩০
প্রিন্ট করুন printer

আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অফিস ভাঙচুর আহত ৫

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অফিস ভাঙচুর আহত ৫

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। এসময় প্রতিদ্বন্দ্বীর প্রার্থীর হামলায় আওয়ামী লীগ কাউন্সিলর পদপ্রার্থী নুরুল আলম মিয়ার স্ত্রী আসমা নুর শান্তাসহ পাঁচ জন আহত হয়েছেন।

হামলা আহতরা অন্যান্যরা হলেন ইসরাত জাহান, হামিদা বেগম, কোহিনুর বেগম এবং রোজি আকতার। রবিবার সন্ধ্যায় বাকলিয়া থানাধীন চর চাক্তাই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বাকলিয়া থানার ওসি রুহুল আমিন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থীর অফিস ভাঙচুর ও হামলার অভিযোগ পেয়েছি। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই জনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।’

১৯নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল আলম মিয়া বলেন, ‘সন্ধ্যায় শান্তসহ মহিলা লীগের নেতা কর্মীরা প্রচারণায় বের হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। 

এসময় বিএনপি’র কাউন্সিলর প্রার্থী ইয়াসিন চৌধুরী আসু এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আজিজুর রহমানের অনুসারীরা হামলা চালায়। তারা নৌকার মেয়র প্রার্থীর অফিস ও কাউন্সিলর প্রার্থীর অফিস ভাঙচুর করে। হামলায় পাঁচজন আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।’

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:২২
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:৫৮
প্রিন্ট করুন printer

সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করাকে ‘ষড়যন্ত্র’ হিসেবে দেখছেন ডা. শাহাদাত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করাকে ‘ষড়যন্ত্র’  হিসেবে দেখছেন ডা. শাহাদাত
ডা. শাহাদাত হোসেন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনের দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করাকে ‘ষড়যন্ত্র’ হিসেবে দেখছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন। 

রবিবার উত্তর পতেঙ্গা, দেয়ানবাজার এবং বক্সিরহাট এলাকায় গণসংযোগকালে তিনি এ শঙ্কার কথা জানান।

গণসংযোগকালে ডা. শাহাদাত হোসেন দাবি করেন- বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধিনে কোন নির্বাচনে ভোটারদের আস্থা নেই। ভোটাররা কেন্দ্র বিমুখ হয়ে পড়ছে। ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোর জন্য সাধারণ ছুটি ঘোষণাসহ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা প্রয়োজন। অথচ সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করে সরকার ভোটারদের কেন্দ্র বিমুখ করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।

বিএনপি মনোনীত এ প্রার্থী উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের চড়ি হালদার মোড় থেকে গণ সংযোগ শুরু করে ধুমপাড়া, কাঠগড় দলীয় কার্যলয়ের মোড়, কাঠগড় বাজার, জিএম কোম্পানী গেইট হয়ে স্টিল মিল বাজারে শেষ করে। দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডের দিদার মার্কেট থেকে শুরু হয়ে খলিফা পট্টি, মাষ্টারপোল, কোরবানীগঞ্জ, বলুয়ার দীঘিরপাড়ের মোড়ে গিয়ে শেষ করে। বক্সিরহাট ওয়ার্ডের ফুলের দোকান থেকে শুরু হয়ে পইলাপুল, মধ্য চাকতাই রোড়, পুরান চাক্তাই রোড়, রেড়া মার্কেট, নতুন চাক্তাই, চাউল পট্টি, রাজাহাখালি, বিশ্বরোড়, ফিশারী হয়ে সিবিচ কলোনী গিয়ে গণসংযোগ শেষ করে। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রিয় বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মো: মিয়া ভোলা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন প্রমুখ।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই বিভাগের আরও খবর