Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ জুন, ২০১৯ ১৫:৪৪

রাসিক মেয়র ও ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূতের বৈঠক

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কাজ করছে ইন্দোনেশিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী:

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কাজ করছে ইন্দোনেশিয়া
রোহিঙ্গা সম্যসা সমাধানে ইন্দোনেশিয়া কাজ করছে উল্লেখ করে বাংলাদেশে নিযুক্ত সেদেশের রাষ্ট্রদূত রিনা পি সোমারনো বলেছেন, রোহিঙ্গা সম্যসা শিগগিরই পুরোপুরিভাবে সমাধানের জন্য আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক ফোরামে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা ও চিঠিপত্র আদান-প্রদান করছেন তারা। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য সার্কের সাথে ইন্দোনেশিয়াও সচেষ্ট। একই সাথে প্রত্যাবাসনে সহযোগিতা করার জন্য একটি সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টিতে দেশটি কাজ করছে, যা চলমান থাকবে। 
 
বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামন লিটনের সাথে সাক্ষাৎ শেষে গণমাধ্যকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়ে তিনি এসব কথা বলেন।
             
রিনা পি সোমারনো আরো বলেন, ইন্দোনেশিয়ার সিস্টার সিটি কনসেপ্টের আওতায় বাংলাদেশে বিশেষ করে রাজশাহীর শিক্ষা, কৃষি ও প্রযুক্তি খাতে সক্ষমতা বৃদ্ধিতে তার দেশ সহযোগিতা করতে চায়। এর ফলে জনগণের অভ্যন্তরণি যোগাযোগ বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি দুই দেশের অর্থনৈতিক উন্নতি অর্জিত হবে।
 
এ সময় রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ইন্দোনেশিয়া আমাদের বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্র। ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূতের সাথে দীর্ঘ সময় বৈঠক হয়েছে। বৈঠককালে তিনি রাজশাহীর শিক্ষা, কৃষি ও তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। ইন্দোনেশিয়ার রাজস্বের ২৫ শতাংশ আসে ট্যুারিজম থেকে। রাজশাহীর ট্যুরিজমের উন্নয়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ইন্দোনিশয়ার রাষ্ট্রদূত।
 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ রজব আলীসহ অন্যান্য কাউন্সিলরবৃন্দ, সচিব রেজাউল করিম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী খন্দকার খায়রুল বাশার, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম। 
       
এদিকে বৈঠক শেষে নগর ভবনের বঙ্গবন্ধুর কর্ণার ঘুরে দেখেন ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত রিনা পি সোয়েমারনো। সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন রাষ্ট্রদূতকে বঙ্গবন্ধু কর্ণার ঘুরে দেখান। বঙ্গবন্ধু কর্ণার পরিদর্শন শেষে পরিদর্শন বই‘য়ে মন্তব্য লিখেন ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত।
 

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য