শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর, ২০২০ ২২:১৬
প্রিন্ট করুন printer

বরিশালে রাত্রীকালীন নো মাস্ক ক্যাম্পেইন শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে রাত্রীকালীন নো মাস্ক ক্যাম্পেইন শুরু

বরিশালে জনসমাগম করে যে কোন রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং ধর্মীয় অনুষ্ঠান আয়োজনের আগে প্রশাসনের অনুমতি নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। করোনার দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এ ধরনের অনুষ্ঠানে নিরুৎসাহিত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধ জেলা কমিটির সভায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

অপরদিকে বরিশাল মেট্রোপলিটান পুলিশের উদ্যোগে রাত্রীকালীন নো মাস্ক ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডে পর্যায়ক্রমে রাতের বেলায় করোনা সচেতনতা বৈঠক করবে পুলিশ। বৃহস্পতিবার প্রথম দিন নগরীর নদী বন্দর এলাকায় মেট্রোপলিটন পুলিশের উদ্যোগে এক সচেতনতা সভার আয়োজন করা হয়।

জেলা প্রশাসক ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এসএম অজিয়র রহমানের সভাপতিত্বে সভায় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মাইদুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. মো. মনোয়ার হোসেন, বিএমপির উপ-কমিশনার মো. মোক্তার হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. নাইমুল হক, বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ন পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান এবং সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সাইদুর রহমান রিন্টুসহ জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় সবার মতামতের ভিত্তিতে বর্তমান পরিস্থিতিতে সব ধরনের সভা-সমাবেশ ও জনসমাগমমূলক আয়োজন থেকে বিরত থাকার পাশাপাশি প্রশাসনের অনুমতি ব্যতিত কোন অনুষ্ঠান আয়োজন থেকে বিরত থাকার আহবান জানানো হয়।

সভায় বলা হয়, দ্বিতীয় দফা সংক্রমণে বিশ্ব এখন হিমশিম খাচ্ছে। প্রথম দিকের ধাক্কা সামলিয়ে উঠতে না উঠতেই এবার দ্বিতীয় দফা সংক্রমন প্রতিরোধে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ সরকার। বাস ও লঞ্চ যাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয় নিয়েও সভায় আলোচনা হয়। 

সভায় সরকারের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন পরিচালনা, লঞ্চ এবং গাড়িতে যাত্রার আগে এবং গন্তব্যে পৌঁছানোর পর অবশ্যই জীবানুনাশক পানি স্প্রের মাধ্যমে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। যাত্রী বা পরিবহনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা মাস্ক ব্যবহার না করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের সিদ্ধান্ত হয় সভায়। সব ধরনের পরিবহনকে ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী যাত্রী পরিবহন করতে হবে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মনিটরিং কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সন্ধ্যায় নদী বন্দর এলাকায় রাত্রীকালীন নো মাস্ক ক্যাম্পেইন করে মেট্রোপলিটন পুলিশ। নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডে ধারাবাহিকভাবে রাতের বেলায় করোনা সচেতনতা বৈঠক করবে পুলিশ। প্রথম দিন নদী বন্দরে অনুষ্ঠিত সচেতনতা সভায় মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার প্রলয় চিসিম প্রধান অতিথি ছিলেন। 

সভায় জানানো হয়, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় বিএমপি দিনের বেলায় মাস্ক নিশ্চিতে নগরীর অন্তত ১৩ টি চেক পোস্টে কাজ করে। এখন থেকে বিএমপি এলাকায় রাতের বেলায়ও সচেতনতা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয় চিসিম। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর