শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪৯

দুই প্রকল্পেই বদলে যাবে খুলনা

জলাবদ্ধতা নিরসনে কনসালট্যান্ট নিয়োগ, সড়ক সংস্কারে দরপত্র

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

দুই প্রকল্পেই বদলে যাবে খুলনা

বৃষ্টি হলেই খুলনা মহানগরীর বিভিন্ন সড়কে হাঁটু পানি জমে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতার। ড্রেনের নোংরা পানির সঙ্গে তখন আবর্জনায় তলিয়ে যায় চারপাশ। সেই সঙ্গে সড়কে ছোট-বড় গর্ত, খানা-খন্দে রয়েছে নাগরিক ভোগান্তি। বিশ্লেষকদের মতে, জলাবদ্ধতা নিরসন ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নয়নে ৮২৩ কোটি টাকা এবং সড়ক মেরামত ও উন্নয়নে ৬০৮ কোটি টাকার বড় দুটি প্রকল্পে বদলে যাবে খুলনা মহানগরী। প্রকল্প দুটি একনেকে অনুমোদনের পর ১ম কিস্তির ৪০০ কোটি টাকা হাতে পেয়েছে সিটি করপোরেশন। এরই মধ্যে             জলাবদ্ধতা নিরসন কাজে কনসালট্যান্ট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সড়ক সংস্কার কাজেও প্রায় দেড়শ কোটি টাকার দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। জানা যায়, শহরের তুলনায় রূপসা নদীর তলদেশ উঁচু হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টির পানি দ্রুত নিষ্কাশন হতে পারে না। এ ছাড়া অপ্রশস্ত ড্রেনগুলো পরিকল্পিতভাবে সংস্কার করা প্রয়োজন। সিটি করপোরেশনের নগর পরিকল্পনাবিদ আবিরুল জব্বার জানান, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে ময়ূর নদ খনন, নতুন ড্রেন নির্মাণ-সংস্কার ও জোয়ারের সময় শহরের পানি পাম্প করে নদীতে অপসারণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পে ৯টি প্রধান সড়কের পাশে ৬২ কিলোমিটার প্রাইমারি ড্রেন ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের ১২৮ কিলোমিটার সেকেন্ডারি ড্রেন (৩ ফুটের কম) সংস্কার করা হবে।

একই সঙ্গে ময়ূর নদসহ ৮টি খাল খনন, পাড় বাঁধাই ও ময়ূর নদের ওপর তিনটি ঝুলন্ত সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

অপরদিকে সড়ক মেরামত প্রকল্পে ৭৮ কিলোমিটার সড়ক কার্পেটিং, ১৫১ দশমিক ৯২ কিলোমিটার সড়ক আরসিসি ঢালাই ও ৩৩ কিলোমিটার সড়ক সিসি ঢালাই দেওয়া হবে। ২০টি গুরুত্বপূর্ণ মোড় উন্নয়ন, সৌন্দর্যবর্ধন ও কিছু যানবাহন কেনার প্রস্তাব রয়েছে প্রকল্পে।

সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক বলেন, দুই প্রকল্পের ১ম কিস্তির ৪০০ কোটি টাকা ব্যাংকে রয়েছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে কনসালটেন্ট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সার্ভে করার পরই টেন্ডার দেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর