শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ মে, ২০১৯ ২২:৪০

সক্ষমতা বাড়ছে মোংলা বন্দরের

৪৩৩ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন চাপ কমবে চট্টগ্রাম বন্দরের

বাগেরহাট প্রতিনিধি

সক্ষমতা বাড়ছে মোংলা বন্দরের
বাগেরহাটের মোংলা বন্দরের একাংশ -বাংলাদেশ প্রতিদিন

পদ্মা সেতু চালুর আগেই বাগেরহাটের মোংলা বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে যুক্ত হচ্ছে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ক্রেনসহ অন্যান্য সরঞ্জাম। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে মোংলা বন্দরের জন্য ৪৩৩ কোটি ৫২ লাখ টাকা ব্যয়ে অত্যাবশকীয় যন্ত্রপাতি-সরঞ্জাম সংগ্রহ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে। অনুমোদিত প্রকল্পে রয়েছে সাতটি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন মোবাইল হারবার ও মাল্টিপারপাস ক্রেন, উচ্চক্ষমতার ফর্কলিফট, রিচ ট্রাক, লো-মাস্ট ফর্ক লিফট ট্রাক, রোড রোলার, ডাম্প ট্রাক ও এম্পটি কনটেইনার হ্যান্ডলার। বন্দর সংশ্লিষ্টরা জানান, পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্পন্ন হলে ঢাকা ও এর আশপাশের আমদানি-রপ্তানি পণ্য, বিশেষ করে গার্মেন্টসামগ্রী মোংলা বন্দরের মাধ্যমে পরিবহন সহজ হবে। মোংলায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল চালু হলে বাড়বে আমদানি-রপ্তানি। ভারত, নেপাল ও ভুটানে ট্রানজিট সুবিধা চালু হলে এ বন্দর ব্যবহারের ব্যাপক চাহিদা সৃষ্টি হবে। এ ছাড়া মোংলা থেকে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র পর্যন্ত বাংলাদেশ ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ কোম্পানির মাধ্যমে বছরে ৪৫ লাখ টন কয়লা পরিবহন হবে। ফলে মোংলা বন্দরের ওপর চাপ বাড়বে। এসব কারণে অর্থনৈতিক কর্মকা-ে গতি ত্বরান্বিত করতে পদ্মা সেতু চালুর আগেই মোংলার সক্ষমতা বৃদ্ধি জরুরি হয়ে পড়েছে। মোংলা বন্দর কর্তৃৃপক্ষের সদস্য ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ আলী চৌধুরী বলেন, ‘ঢাকা-মাওয়া-মোংলা মহাসড়ক উন্নয়ন, পদ্মা সেতু, খানজাহান আলী বিমানবন্দর, রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মোংলা বন্দর এলাকায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল, মোংলা ইপিজেড সম্প্রসারণ, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এজন্য মোংলা বন্দরের উন্নয়নে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় অনুমোদিত এ প্রকল্পে বন্দরে যন্ত্রপাতি/সরঞ্জাম যুক্ত হলে ৪০-৫০ শতাংশ পর্যন্ত সময় সাশ্রয় হবে। বৃদ্ধি পাবে মোংলা বন্দরের সক্ষমতা। পাশাপাশি চট্টগ্রাম বন্দরের ওপর চাপ কমবে। জানা গেছে, বর্তমানে মোংলা বন্দরে ছয়টি নিজস্ব জেটি, ব্যক্তি মালিকানাধীন সাতটি জেটি এবং ২২টি অ্যাংকরেজের মাধ্যমে ৩৫টি জাহাজ একসঙ্গে হ্যান্ডলিং করা সম্ভব।


আপনার মন্তব্য