Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১২:১৬

আট বছর লাইব্রেরিয়ান দিয়েই চলছে জেলা শিশু একাডেমি!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:

আট বছর লাইব্রেরিয়ান দিয়েই চলছে জেলা শিশু একাডেমি!

আট বছর ধরে জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা না থাকায় লাইব্রেরিয়ান দিয়ে চলছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চাঁপাইনবাবগঞ্জের কার্যক্রম। ফলে লাইব্রেরিয়ান সরকার প্রদত্ত বিভিন্ন অর্থ নিজ খেয়াল-খুশি মতো বিল-ভাউচার দাখিল করে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। 

জানা গেছে, ২০১১ সাল থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার পদ শূণ্য থাকায় লাইব্রেরিয়ান মো. শফিকুল আলম অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। অভিযোগ রয়েছে, এই অফিসে শিশু ও প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা প্রকল্পে ৬০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে এবং শিক্ষার্থীদের পোষাক বাবদ প্রতিবছর ২৪ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। কিন্তু কোন রকম টেন্ডার ছাড়াই শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা লাইব্রেরিয়ান মো. শফিকুল আলম নিজের চেষ্টায় অত্যন্ত নিম্নমানের কাপড় কিনে শিক্ষার্থীদের পোষাক বানিয়ে তা সরবরাহ করেন এবং প্রায় অর্ধেক অর্থ তিনি পকেটস্থ করেন। 

অন্যদিকে বিভিন্ন দিবস ও অনুষ্ঠান বাবদ যে অর্থ বরাদ্দ পান তা নিজের ইচ্ছামতো বিল-ভাউচার দাখিল করেন। এছাড়াও অভিযোগ রয়েছে অফিসে তার দাপট বজায় রাখার জন্য কতিপয় কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা না দেয়ার জন্য প্রতিনিয়ত চেষ্টা-তদ্বির চালিয়ে আসছেন। 

এসব অভিযোগের ব্যাপারে লাইব্রেরিয়ান মো. শফিকুল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো অস্বীকার করে বলেন, তিনি ভালোভাবে কাজ চালিয়ে আসছেন বলে সংশ্লিষ্ট দপ্তর তার ওপর সন্তুষ্ট। এছাড়া তিনি সংবাদটি না করার জন্য অনুরোধ করেন।  


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য