শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ জুলাই, ২০২০ ২০:২৩

বগুড়ায় ফের বিপৎসীমার ওপরে যমুনার পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়ায় ফের বিপৎসীমার ওপরে যমুনার পানি

বগুড়ায় ফের বেড়েছে যমুনা ও বাঙ্গালী নদীর পানি। যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্রবল বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে জেলার সারিয়াকান্দি পয়েন্টে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

গত এক সপ্তাহে এ নদীর পানি ৬৭ সেন্টিমিটার থেকে পর্যায়ক্রমে মোট ৮৭ সেন্টিমিটার কমে বিপৎসীমার ২৩ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার পর আবারও পানি বাড়তে শুরু করেছে। অন্যদিকে, বাঙ্গালীর বেড়েছে ৪০ সেন্টিমিটার।

আজ রবিবার দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে বিষয়টি  নিশ্চিত করেন বগুড়া জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির।

জানা যায়, যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে সারিয়াকান্দি উপজেলার চরা লের চালুয়াবাড়ী, কর্নিবাড়ী, কুতুবপুর, চন্দনবাইশা, কাজলা, কামালপুর, রহদহ ও সারিয়াকান্দি সদর ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলগুলো এবং পাট, ধানসহ ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে যায়। এমন অবস্থায় কৃষক তাদের অপিরক্ক পাট কাটতে শুরু করে।

এদিকে, পানি কমতে শুরু করে আবার বৃদ্ধি পাওয়ায় নদী তীরবর্তী মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দেয় এবং অসংখ্য মানুষ আশ্রয় নেয় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে।

বগুড়া জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির জানান, রবিবার দুপুর ৩টার হিসেব অনুযায়ী যমুনা নদীর পানি বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে এবং পানি বৃদ্ধি অব্যহত রয়েছে। 
তিনি আরও জানান, বাঙ্গালী নদী পানি ৪০ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ৩১ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা সারিয়াকান্দি উপজেলার প্রায় ১০টি চরের প্রায় ১৫ হাজার পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। পানিবন্দি মানুষ আশ্রয়ন ও গুচ্ছ গ্রামে গবাদি পশু, হাঁস-মুরগীসহ নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাচ্ছে। 

বন্যা দুর্গতদের জন্য সব রকম প্রস্তুতি আছে বলে জানান সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাসেল মিয়া।  তিনি জানান, দ্বিতীয় দফা বন্যায় গোখাদ্য ক্রয়ের জন্য ১ লাখ টাকা, শিশু খাদ্যের জন্য ১ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। 


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ তাফসীর


আপনার মন্তব্য