প্রকাশ : ১৫ আগস্ট, ২০২০ ১৮:১২

বগুড়া প্রেসক্লাবের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসে আলোচনা সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়া প্রেসক্লাবের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসে আলোচনা সভা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে বগুড়া প্রেসক্লাবের আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, জাতির পিতার সাজাপ্রাপ্ত খুনিদের অবিলম্বে দেশে ফিরিয়ে এনে সাজা কার্যকর করতে হবে। সেইসঙ্গে ওই খুনি চক্রের সহযোগিরা বারবার দেশকে অস্থিতিশীল করার যে চক্রান্ত করছে তা মোকাবেলায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন সভায় সভাপতিত্ব করেন। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমান এর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য্য শংকর, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক জেএম রউফ, সাজ্জাদ হোসেন পল্লব, শফিউল আযম কমল, মেহেরুল সুজন, ইলিয়াস হোসেন, লতিফুল করিম, আহম্মেদ উল্লাহ মনু, জুয়েল খন্দকার প্রমুখ। 

বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ সমার্থক। তিনিই বিশ্বের একমাত্র রাষ্ট্রনায়ক যিনি বিদেশের কারাগারে বন্দি থাকলেও তার নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। সশস্ত্র সংগ্রামের মধ্যদিয়ে দেশকে স্বাধীন করেছে। যে আকাঙ্খা নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে, মাত্র ৫ বছরের মাথায় বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্যদিয়ে সেই পথ থেকে সরে আসে এদেশ। ফলে দীর্ঘ পরিক্রমায় এখনও অর্থনৈতিক মুক্তি মেলেনি। অর্থনৈতিকভাবে দেশকে স্বাবলম্বী করতে হলে তাঁর আদর্শের সরকারকেই রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকতে হবে।

সকালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করণ ও কালো পতাকা উত্তোলন এবং কালোব্যাজ ধারণ করেন প্রেসক্লাবের সদস্যবৃন্দ। এর আগে শহরের সাতমাথায় মুজিব মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন নেতৃবৃন্দ।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর