শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:২৩

সোনাতলা-সারিয়াকান্দি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ, পথচারীদের চরম দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

সোনাতলা-সারিয়াকান্দি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ, পথচারীদের চরম দুর্ভোগ

বগুড়ার সোনাতলা-সারিয়াকান্দি সড়কের বুড়ামেলা নামক স্থানে সুখদহনদীর অব্যাহত ভাঙনে ব্রিজের দক্ষিণ পার্শ্বের এ্যাপ্রোচ ধ্বসে গিয়ে যান-চলাচল বন্ধ হয়েছে। সেই সাথে পথচারীদের যাতায়াতে দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। একটি সড়ক ও একটি ব্রিজ সংস্কারের অভাবে প্রায় ৪ লাখ মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

জানা যায়, বগুড়া জেলার সোনাতলা-সারিয়াকান্দি সড়কের সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের বুড়ামেলা নামক স্থানে সুখদহ নদীর অব্যাহত ভাঙনে উক্ত স্থানের ব্রিজের দক্ষিণ পাশের এ্যাপ্রোচের মাটি সরে যাওয়ায় সকল প্রকার যান-চলাচল বন্ধ হয়েছে। এতে করে ওই দুটি উপজেলার ১৯ টি ইউনিয়নের প্রায় ৪ লাখ মানুষের প্রতিনিয়ত যাতায়াতের ক্ষেত্রে ভোগান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। উক্ত স্থানে মেরামত না করায় পথচারীদেরকে প্রায় ৬ থেকে ৭ কিলোমিটার পথ ঘুরে ঘুরে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

একদিকে পথচারীদের সময়ের অপচয় অন্যদিকে বাড়তি অর্থ গুণতে হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের। এছাড়াও মুমূর্ষু রোগীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কিংবা বগুড়া শহরের শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে (শজিমেক) নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বিড়ম্বনার স্বীকার হতে হচ্ছে। 

প্রতিদিন ওই সড়ক দিয়ে কয়েক হাজার পথচারী দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করেন। তাদেরকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই পথ দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় এখন চাপ কমেছে ব্রিজ ও সড়কটির উপর দিয়ে। নয়তো সারাবছর সড়কটি যানজট লেগে থাকতো। 

ওই সড়ক দিয়ে কোন রকমে সিএনজি, অটোরিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেল চলাচল করলেও যেকোনো সময় যানবাহন উল্টে গিয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনার স্বীকার হতে পারে পথচারীরা। 

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউপি চেয়ারম্যান মো. রোস্তম আলী মন্ডল জানান, এটি একটি জন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। জরুরি ভিত্তিতে সড়কটি মেরামত করা প্রয়োজন। এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলীকে অবগত করা হয়েছে। 

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ রাশেদ ইমরানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সংশ্লিষ্ট স্থানটি মেরামত করার জন্য এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলীকে অবগত করা হয়েছে। তিনি অনুমোদন দিলে কাজটির প্রাক্কলন করে অর্থ বরাদ্দের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করা হবে। অর্থবরাদ্দ পাওয়া সাপেক্ষে ব্রিজ ও সড়কের মেরামত করা হবে। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর