শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:১৩

শেরপুরের গজনীতে হবে মুক্তিযুদ্ধ-বঙ্গবন্ধু যাদুঘর

শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরের গজনীতে হবে মুক্তিযুদ্ধ-বঙ্গবন্ধু যাদুঘর

মুজিববর্ষ উপলক্ষে শেরপুরের মনোমুগ্ধ পর্যটন কেন্দ্র গজনী অবকাশে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কৃষ্টি, সংস্কৃতি জীবনমান ও তাদের ঐতিহ্য নিয়ে সুজ্জিত একটি নৃতাত্ত্বিক জাদুঘর হতে যাচ্ছে। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়েও পৃথক আরেকটি যাদুঘর করা হবে। সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসনের সভাকক্ষে জেলার নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর নেতৃবৃন্দদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব এ কথা বলেন। 

সূত্র জানায়, সারা বছর প্রচুর পর্যটক গজনীতে বেড়াতে আসেন। গারো পাহাড়ের আশপাশে নয়টি নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর মানুষের বসবাস রয়েছে এবং তাদের একটি সমৃদ্ধ কৃষ্টি ও সংস্কৃতি রয়েছে। পর্যটকরা এসব জাতিগোষ্ঠীর ইতিহাস ও ঐতিহ্য জানতে পারলে গজনীতে আসতে উদ্বুদ্ধ হবে এবং পর্যটন বিকশিত হবে। তাই জেলা প্রশাসন এ যাদুঘর নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

মতবিনিময় সভায় ডিডিএলজি (উপসচিব)  এটিএম জিয়াউল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ওয়ালিউল হাসান, জেলা হিন্দু, বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সভাপতি দেবাশীষ ভট্টাচার্য, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন, সাংবাদিক সঞ্জীব চন্দ বিল্টু, দেবাশীষ সাহা রায়, আদিবাসী নেতা প্রাঞ্জল এম সাংমা, কেয়া নকরেক, বন্দনা চাম্বুগং, যুগল কিশোর কোচ, চিন্তাহরণ হাজং, মনিন্দ্র চন্দ্র বিশ্বাস, মিন্টু বিশ্বাস, নবেস খকশি প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য