শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জুন, ২০২১ ২০:২৪
প্রিন্ট করুন printer

কুড়িগ্রামে প্রচারের অভাবে সিনোভ্যাক্সের টিকাগ্রহীতার হার কম

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামে প্রচারের অভাবে সিনোভ্যাক্সের টিকাগ্রহীতার হার কম
Google News

চীন সরকারের দেয়া উপহার সিনোভ্যাক্সের ভ্যাকসিন কুড়িগ্রামে দেয়া শুরু হয়েছে। কিন্তু প্রচারণার অভাবে রেজিস্ট্রেশন করেছেন এমন অনেকেই বিষয়টি জানেন না। রবিবার মাত্র ১৭ জনকে প্রথম ডোজ হিসাবে এ টিকা দেয়া হয় কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে। প্রচার না থাকায় মানুষ নতুন টিকা প্রদান কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত নয়।

কুড়িগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান জানান, জেলার জন্য ৮ হাজার ৪০০ ভ্যাকসিন আমরা পেয়েছি। দ্বিতীয় ডোজ নিশ্চিত করতে হবে এ কারণে ৪ হাজার ২০০ জনকে প্রথম ডোজ দেয়া হবে। এরপর ওই ব্যক্তিরা পরবর্তীতে দ্বিতীয় ডোজ হিসেবে সিনোভ্যাক্সের এই ভ্যাকসিন পাবেন। সার্ভারের কিছু সমস্যার কারণে শনিবার মাত্র একজনকে ডেকে এনে ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। আর রবিবার দেয়া হয়েছে ১৭ জনকে।

এখন টিকা প্রদানের বুথ জেলা সদরে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল। ফলে অন্য ৮টি উপজেলার মানুষকে জেলা সদরেই আসতে হবে টিকা গ্রহণ করতে চাইলে। আমরা প্রচার প্রচারণার বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছি যাতে টিকা কার্যক্রম সফল করা যায়।

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নজরুল ইসলাম জানান, কুড়িগ্রাম সদরে টিকা গ্রহণের জন্য এক হাজার ৪০০ জন অপেক্ষমাণ তালিকায় আছে। আর জেলায় মোট রেজিস্ট্রেশন করে অপেক্ষমাণ তালিকায় আছে প্রায় ১০ হাজার জন। সার্ভারের সমস্যার কারণে নতুন করে কেউ রেজিস্ট্রেশন করতে পারছে না। আবার আমরা রেজিস্ট্রেশনকারী টিকা গ্রহীতাদের ম্যাসেজও দিতে পারছি না। ফলে টিকা গ্রহণের হার কম।

যারা প্রচার শুনে আসছে বা আমাদের ব্যক্তিগত পরিচিতদের ডেকে এনে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে। এ সমস্যা হয়তো দ্রুতই কেটে যাবে। তিনি আরও বলেন, সিনোভ্যাক্সের ভ্যাকসিন এর ডোজ নষ্ট হওয়ার আশংকা নেই। কারণ এর প্রতি ডোজের জন্য একটি আলাদা অ্যাম্পল। আগের মতো ভায়াল সিস্টেম নয়। আগে এক ভায়ালে ছিল ১০ ডোজ। ভায়াল খুলে ১০ জনকে পাওয়া না গেলে তখন নষ্ট হতো ডোজ।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর