শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ মে, ২০১৮ ২৩:২৭

মহাসড়কে যানজট

কর্তৃপক্ষের কঠোর মনোভাব কাম্য

মহাসড়কগুলোর ভয়াবহ যানজট সংশ্লিষ্ট সড়ক ব্যবহারকারীরাই শুধু নয়, দেশের কোটি কোটি মানুষের জন্য ভোগান্তি সৃষ্টি করছে। মাহে রমজানের প্রাক্কালে পণ্যের দাম গত কয়েক বছরের চেয়ে এ বছর বেশি বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে এক ঘণ্টার রাস্তা পাঁচ ঘণ্টায় অতিক্রম করার বিড়ম্বনা অনেকাংশে দায়ী। দেশের অর্থনীতির মূল ধমনি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ভয়াবহতম যানজট চলছে কয়েক সপ্তাহ ধরে। ১২০ কিলোমিটার দীর্ঘ জটও সৃষ্টি হয়েছিল এ মহাসড়কে। তা কমতে কমতে ৪২ কিলোমিটারে ঠেকেছিল গত মঙ্গলবার। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কেও যানজটের অভিশাপ এ সড়ক ব্যবহারকারীদের ভোগাচ্ছে। মহাসড়কে নির্মাণকাজের জন্য যেমন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে তেমন হঠাৎ করে লক্কড়-ঝক্কড় গাড়ি বিকল হয়ে পড়ায় ভোগান্তি সৃষ্টি করছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দির মেঘনা-গোমতী ব্রিজের দুই পাশে ৪২ কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয় গত মঙ্গলবার সকালে। কুমিল্লার চান্দিনা কুটুম্বপুর থেকে দাউদকান্দি ব্রিজ পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার ও ব্রিজের অন্য পাশে মুন্সীগঞ্জ এলাকায় ২২ কিলোমিটারজুড়ে যানজটে আটকে পড়ে শত শত যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী পরিবহন। ঢাকা-ময়মনসিংহ চার লেন মহাসড়কের টঙ্গী থেকে ভালুকা অংশের দুই পাশে গড়ে উঠেছে অসংখ্য অবৈধ দোকানপাট আর স্থায়ী পার্কিং ব্যবস্থা। টঙ্গী থেকে ভালুকা পর্যন্ত কিলোমিটারের পর কিলোমিটার এলাকাজুড়ে পার্কিং করে রাখা হয় ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান। গাজীপুর চৌরাস্তার সন্নিকটে পার্কিং করে রাখা হচ্ছে যাত্রীবাহী বাস। ফলে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করা হলেও তার শতভাগ সুফল পাচ্ছেন না সড়ক ব্যবহারকারীরা। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের যানজট টাঙ্গাইলসহ উত্তরাঞ্চলগামী লাখ লাখ মানুষের জন্য ভোগান্তি সৃষ্টি করছে। পণ্যমূল্য বৃদ্ধিতেও তা মদদ জোগাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন মহাসড়ক চার লেনে রূপান্তর করা হচ্ছে যানজট নিরসন ও সুষ্ঠু যোগাযোগ নিশ্চিত করতে। মহাসড়ক অবৈধ দোকানপাট, পার্কিং কিংবা এলাকার রাজনৈতিক মস্তান ও পুলিশের অসৎ সদস্যদের চাঁদাবাজির সুযোগ সৃষ্টির জন্য নয়। চার লেন তৈরির সুফল নিশ্চিত করতে অবৈধ দখলদারিত্বের অবসানে কর্তৃপক্ষকে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।


আপনার মন্তব্য