শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৯ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০২১ ২২:৫৩

মার্চজুড়ে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে উৎসবের আমেজ

মোস্তফা মতিহার

মার্চজুড়ে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে উৎসবের আমেজ

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীতে চলছে উৎসবের আমেজ। পোস্টার ও ফেস্টুনে শৈল্পিকতা, নাচ, গান, আবৃত্তি, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, মোমবাতি প্রজ্বালন, ফায়ার ও লেজার শো-সহ অপরূপ রূপে সেজেছে রাজধানী। মহান এই অর্জনকে উদযাপনের লক্ষ্যে আনন্দের বন্যায় ভাসছে গোটা মহানগরী। ১৭ মার্চের প্রথম প্রহরে কেক কেটে, ফানুস উড়িয়ে আতশবাজির মধ্য দিয়ে জাঁকজমকভাবে আরটিভি ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের যৌথ আয়োজনে উদযাপিত হয় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান ‘মুক্তির মহানায়ক’। রাজধানীর হাতিরঝিলের অ্যাম্ফিথিয়েটারে ১৬ মার্চ ২০২১ সকাল ৯টায় চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শুরু হয় এই অনুষ্ঠান। বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ‘মুক্তির মহানায়ক’ শিরোনামে রবিউল ইসলাম জীবনের রচনা এবং ইবরার টিপুর সুর ও সংগীতে প্রবীণ-নবীন শতাধিক শিল্পীর পরিবেশনা ছিল মনোমুগ্ধকর। ১৭ মার্চের প্রথম প্রহর রাত ১২টা শূন্য শূন্য মিনিটে হাতিরঝিলের আকাশজুড়ে ১০১টি ফানুস উড়িয়ে, আতশবাজি ফুটিয়ে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মোৎসবের কেক কাটার মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হয় মাহেন্দ্রক্ষণটি। শিবলী জিয়ার প্রযোজনায় শিমুল মুস্তাফা, শাকিলা মতিন মৃদুলা ও শান্তা জাহানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয় আরটিভি ও আরটিভির ফেসবুক পেজে। এদিকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের আয়োজনে নাটক সরণিখ্যাত রাজধানীর বেইলি রোডের মহিলা সমিতি মিলনায়তনে চলছে ১০ দিনের নাট্য উৎসব। মুক্তিযুদ্ধের ১০টি নাটক দিয়ে সাজানো হয়েছে এই উৎসব। ১৭ মার্চ বুধবার উদ্বোধনী দিনে মঞ্চায়ন হয় থিয়েটার আর্ট ইউনিটের নাটক ‘কোর্ট মার্শাল’। পরের দিন গতকাল বৃহস্পতিবার মঞ্চায়ন হয় ঢাকা নান্দনিকের নাটক ‘গ্রহণকাল’, আজ শুক্রবার তৃতীয় দিনে মঞ্চায়ন হবে দৃশ্যকাব্যের নাটক ‘বাঘ’। কাল শনিবার চতুর্থ দিন মঞ্চায়ন হবে শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্রের নাটক ‘রাইফেল’, পঞ্চম দিন ২১ মার্চ মঞ্চায়ন হবে নাগরিক নাট্যাঙ্গন অনসাম্বালে নাটক ‘তোরা সব জয়ধ্বনি কর’, ২২ মার্চ ষষ্ঠ দিন মঞ্চায়ন হবে ঢাকা পদাতিকের নাটক ‘কথা ৭১’, ২৩ মার্চ সপ্তম দিন মঞ্চায়ন হবে খেয়ালী নাট্যগোষ্ঠীর নাটক ‘কদমতলী আর্মি ক্যাম্প’, ২৪ মার্চ অষ্টম দিন মঞ্চায়ন হবে প্রাঙ্গণেমোরের ‘কনডেমড সেল’, ২৫ মার্চ নবম দিনে রয়েছে পদাতিক নাট্য সংসদের (টিএসসি) নাটক ‘কালরাত্রি’ ও শেষ দিন ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে মঞ্চায়ন হবে থিয়েটার বেইলি রোডের নাটক ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ‘ধ্রুবতারা, বাঙালি সংস্কৃতির ধারক’ শিরোনামের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ছায়ানট। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত গান ও কবিতা দিয়ে সাজানো থাকবে এই আয়োজন। আজ শুক্রবার রাত ৮টা ১৫ মিনিটে ছায়ানটের ফেসবুক পেইজে অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। অপরদিকে, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর আয়োজনে রাজধানীতে চলছে মাসব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব। ১৩ মার্চ শনিবার রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে শুরু হয় এই উৎসব। রায়েরবাজার বধ্যভূমি ও বাহাদুরশাহ পার্কে চলছে এই আয়োজন। ১৩ এপ্রিল শেষ হবে মাসব্যাপী এই অনুষ্ঠান।

অন্যদিকে, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ‘সংস্কৃতির ছোঁয়ায় অবক্ষয় ঘুচে জাগ্রত হোক মানবতা’ সেøাগানে সাংস্কৃতিক জাগরণ শিরোনামের উৎসবের আয়োজন করেছে খেয়ালী নাট্যগোষ্ঠী। মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক নাটক ‘কদমতলী আর্মি ক্যাম্প’ মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে যুদ্ধের ভয়াবহতা ও স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানানোর প্রয়াসে দলটি বিভাগীয় শহরসহ দেশময় সাংস্কৃতিক জাগরণের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। এছাড়া মাতৃভূমি সাংস্কৃতিক সংসদের আয়োজনে রাজধানীর শাহবাগ চত্বরে চলছে ‘মুজিব মানেই স্বাধীনতা’ শিরোনামের ১০ দিনের সাংস্কৃতিক উৎসব। বঙ্গবন্ধুর ১০১তম জন্মদিনের আগের দিন ১৬ মার্চ শুরু হয় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষের এই উৎসব। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত উৎসব প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে নাচ, গান, আবৃত্তি ও আলোকচিত্র প্রদর্শনী। সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতাকে মূর্ত করে তুলছেন শিল্পীরা। ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে শেষ হবে ১০ দিনের এই উৎসব। আর বাংলা একাডেমির আয়োজনে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে চলছে মাসব্যাপী বইমেলা। গতকাল বিকাল ৩টায় গণভবন থেকে এবারের মেলা ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।